পার্টি ফ্রকে নজর খুদে ক্রেতাদের

0
117
party frock

party frock

ঈদের এখনও ঢের বাকি। কিন্তু এর মাঝে পড়ে গেছে কেনা-কাটার ধুম।

বয়োজ্যেষ্ঠ থেকে শুরু করে নবজাতক সবার জন্য চাই নতুন পোশাক। নয়তো ঈদের আনন্দই যে মাটি হয়ে যাবে। তবে ঈদ বাজারের তালিকায় শিশুদের প্রভাব অন্য সবার চাইতে বেশি।

কারণ ঈদের সময় শিশুদের আনন্দ অন্য সবাইকে হার মানায়।

তাই শিশুদের কথা মাথায় রেখে রাজধানীর শপিংমলগুলো সেজেছে রঙিন সাজে। আর এই আয়োজন থেকে বাদ পড়েনি দেশীয় ফ্যাশন হাউজগুলোও।

বাজার ঘুরে দেখা গেছে, এসব পোশাকে ডিজাইন ও কাঁটছাটের পাশাপাশি নামেও রয়েছে নানা বৈচিত্র্য।

দেশীয় প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে ‘শৈশব’এ নবজাতক থেকে শুরু করে ১৬ বছর পর্যন্ত বয়সী বাচ্চাদের পোশাক পাওয়া যাচ্ছে।

মেয়েদের জন্য রয়েছে ফ্রক, লেহেঙ্গা, এক্সটা টপস, ঘাঘরা সেট, রেডি শাড়ি, থ্রিপিচ ও পার্টি ড্রেস। আর ছেলেদের বিশেষ আয়োজনে রয়েছে, জিন্স, টি-শার্ট, ফতুয়া, পাঞ্জাবি ও ধুতি পাজামা।

রাজধানীর সীমান্ত স্কয়ার শাখার বিক্রয় কর্মকর্তা রায়হান বলেন, এই ঈদে শৈশব বাচ্চাদের জন্য ৫০ ডিজাইনের পোশাক এনেছে শৈশব।

তিনি জানান, বাচ্চাদের পার্টি ফ্রক এবার সবচেয়ে বেশি নজর কাড়ছে খুদে ক্রেতাদের।

এছাড়াও দেশীয় ফ্যাশন হাউজগুলোর মধ্যে নগরদোলা, আড়ং, সাদাকালো, অন্যমেলা, নিত্য উপহার, রঙ, দেশাল, প্রবর্তনা, নিপুণ, অঞ্জন’স, ওটু, চাঁদের হাসি, ইনফিনিটিসহ প্রায় সব ধরনের ফ্যাশন হাউজেই বড়দের পাশাপাশি বাচ্চাদের পোশাক রয়েছে।

আড়ং মেয়ে শিশুদের জন্য এনেছে বিভিন্ন ফ্রক ও ফ্রিলের পার্টি ফ্রক।আরও রয়েছে সালোয়ার-কামিজ, ঘাঘড়া চোলি ও নকশা করা বিভিন্ন ধরনের প্যান্ট।ছেলে শিশুদের জন্য রয়েছে এমব্রয়ডারি ও কারচুপির হাতের কাজ।এ ছাড়াও ধুপিয়ান, সিল্ক ও মসলিন কাপড়ের পার্টি পোশাক তো রয়েছেই।তবে সব কাজেই উজ্জ্বল রঙকে বেশি প্রাধান্য দেওয়া হয়েছে।

শিশুদের পোশাকের আরও ব্যাপক সংগ্রহ রয়েছে নগরদোলায়।ঈদে শিশুদের বিভিন্ন পোশাকে ব্যবহার করা হয়েছে সিল্ক, মসলিন, অ্যান্ডি ও খাদি।এগুলোতে উৎসবের আমেজ ফুটিয়ে তোলা হয়েছে বিভিন্ন রকম হাতের কাজ দিয়ে।

এছাড়াও যাত্রায় শিশুদের পোশাকের কাটিংয়ে নান্দনিক নকশা করা হয়েছে।এখানে ড্যান্ডির ও সুতির কাপড়কে বেশি প্রাধান্য পেয়েছে।ভিন্নতা আনতে মেয়েদের পোশাকে ব্যবহার করা হয়েছে রঙিন রঙিন সব বেল্ট।আর ছেলেদের পোশাকের মধ্যেও আছে ফতুয়া, শার্ট ও পাঞ্জাবি।

দেশীয় ফ্যাশন হাউজ ছাড়াও বিদেশি পোশাকের দোকানগুলোতেও রয়েছে নান্দনিক পোশাকের কালেকশন।হিন্দি সিরায়ালের নায়ক নায়িকাদের নামেও শিশুদের পোশাক পাওয়া যাচ্ছে।এমনকি ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির নামেও ছেলে শিশুদের পোশাক বিক্রি হচ্ছে।

পাখি, রামলিলা, গুঞ্জন, মধুরমা, মনের খুশি, ফড়িং, কোয়েল মল্লিকসহ বিভিন্ন মডেলদের নামে ট্যাগ বসানো হয়েছে মেয়ে শিশুদের পোশাকে। এছাড়া ছোটাভীম ও ডোরেমনসহ বিভিন্ন কার্টুনের নামেও বাচ্চাদের পোশাক পাওয়া যাচ্ছে।

কেউ চাইলেই রাজধানবীর নিউমার্কেট, মৌচাক, টুইন টাওয়ার, ইস্টার্ন প্লাস, বেইলি রোড, সুবাস্তু টাওয়ার, কর্ণফুলী মার্কেট, আজিজ সুপার মার্কেট, বসুন্ধরা ও গাউছিয়া মার্কেটের বিভিন্ন দোকান থেকে সংগ্রহ করতে পারবেন শিশুদের বাহারি পোশাক।

এ ফ্যাশন হাউজগুলোতে মেয়েদের সালোয়ার-কামিজের দাম পড়ছে ৮৫০ থেকে ৭ হাজার টাকা পর্যন্ত।ফ্রক পাওয়া যাচ্ছে ৫০০ টাকা থেকে ৪ হাজার টাকার মধ্যে।

পাশাপাশি ছেলেদের পাঞ্জাবি ৫৫০ থেকে ৩ হাজার টাকা এবং ফতুয়া ২৫০ থেকে ১ হাজার ২০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।