ইরাকে ২ তেলক্ষেত্র কুর্দিদের দখলে

0
58
iraq oil fileld
ইরাকের কিরকুকে অবস্থিত একটি তেলক্ষেত্র (ছবি-ইন্টারনেট)
iraq oil fileld
ইরাকের কিরকুকে অবস্থিত একটি তেলক্ষেত্র (ছবি-ইন্টারনেট)

ইরাক সরকার ও কুর্দিদের মধ্যে বিরোধ চরম পর্যায়ে পৌঁছেছে।

এই বিরোধের জের ধরে শুক্রবার ইরাক সরকারের নিয়ন্ত্রণাধীন দুটি তেলক্ষেত্র দখল করে নিয়েছে কুর্দিরা।

ইরাক সরকারের বরাত দিয়ে এক খবরে এএফপি জানিয়েছে, ইরাকের দক্ষিণাঞ্চলের কিরকুক ও বাই হাসানে অবস্থিত তেলক্ষেত্র দুটি থেকে দৈনিক ৪ লাখ ব্যারেল তেল উৎপাদিত হয়।

ধারণা করা হচ্ছে, আল-কায়েদার মদদপুষ্ট সুন্নি জঙ্গিদের দমনে ব্যর্থ হওয়ায় ইরাকের প্রধানমন্ত্রী নুরি আল-মালিকিকে পদত্যাগে বাধ্য করতে কুর্দিরা এই তেলক্ষেত্রগুলো দখল করে নিয়েছে।

কুর্দিদের দাবি, মালিকির ব্যর্থতার কারণে ইরাক কার্যত কুর্দিস্তান, অ্যা ব্ল্যাক স্টেট ও বাগদাদ তিন ভাগে বিভক্ত হয়ে পড়েছে।

এদিকে আরেক খবরে বিবিসি জানিয়েছে, কুর্দিদের এই আগ্রাসনের তীব্র নিন্দা জানিয়েছে নুরি আল-মালিকির সরকার।

এক বিবৃতিতে ইরাক সরকার জানিয়েছে, কুর্দিদের উচিত তেলক্ষেত্র দখল না করে সুন্নি জঙ্গি সংগঠন ইসলামিক স্টেট ইন ইরাক অ্যান্ড দ্য লেভান্টের (আইসিস) দখলে থাকা তেলক্ষেত্র উদ্ধারে সরকারি বাহিনীকে সহায়তার করা।

প্রসঙ্গত, ইরাকে সংখ্যালঘু হলেও ২০০৫ থেকে কুর্দিস্তান নামে একটি স্বায়ত্তশাসিত অঞ্চল প্রতিষ্ঠা করে কুর্দিরা।

সাম্প্রতিক সময়ে আইসিসের উত্থানের পর থেকে তারা স্বাধীনতাও দাবি করে আসছে। এ ব্যাপারে খুব শিগগির গণভোট আয়োজনের ঘোষণা দিয়েছে অঞ্চলটির শাসকরা।

ইরাক সরকার এ ঘোষণার তীব্র নিন্দা জানায় এবং গত বুধবার আল-মালিকি অভিযোগ করেন, কুর্দিস্তান আইসিসের জঙ্গিদের মদদ যোগাচ্ছে।

ইরাকি প্রধানমন্ত্রীর এই বিবৃতির পরই কুর্দিরা বিক্ষোভে ফেটে পড়ে এবং পার্লামেন্ট থেকে পদত্যাগের মাধ্যমে সরকারের ওপর থেকে সমর্থন প্রত্যাহারের হুমকি দেয়।