ঢেলে সাজানো হচ্ছে বাংলাদেশ ইন্স্যুরেন্স একাডেমি

0
54

IDRA_BIAবিমা খাতে দক্ষ জনবল সৃষ্টির লক্ষ্যে ১৯৭৩ সালে প্রতিষ্ঠিত ‘বাংলাদেশ ইন্স্যুরেন্স একাডেমি (বিআইএ)’ আজ নানা সমস্যায় জর্জরিত। প্রতিষ্ঠানটি ঢেলে সাজাতে এ খাতের তদারকি সংস্থা বিমা উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষ (আইডিআরএ) ২০১১ সালে বেশ কিছু সুপারিশ করে অর্থ মন্ত্রণালয়ে। সেই সুপারিশের আলোকে বিমা খাতের জনবল উন্নয়নে প্রতিষ্ঠিত দেশটির একমাত্র সরকারি প্রতিষ্ঠানটিকে নতুন রূপে সাজানোর উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, এর অংশ হিসেবে ‘বাংলাদেশ বিমা একাডেমি’র নাম ও পরিচালনা পর্ষদে পরিবর্তন আনার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। এ লক্ষ্যে আইডিআরসহ সংশ্লিষ্ঠদের মত নিতে গত ৮ জুলাই অর্থ মন্ত্রণালয়ের ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগ থেকে চিঠি দেয়া হয়েছে নিয়ন্ত্রক সংস্থাটিকে। সেসব মতামত আগামি ২০ জুলাইয়ের মধ্যে মন্ত্রণালয়ে পাঠাতেও বলা হয়েছে।

জানা যায়, ‘বাংলাদেশ বিমা একাডেমি’র নাম পরিবর্তন করে ‘বাংলাদেশ বিমা ও ঝুঁকি ব্যবস্থাপনা একাডেমি’ রাখার প্রস্তাব করেছে অর্থ মন্ত্রণালয়ের ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগ।

‘বাংলাদেশ বিমা একাডেমি’র বর্তমান পরিচালনা পর্ষদে সদস্য ১০ জন। পর্ষদের চেয়ারম্যান ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের সচিব। অন্য সদস্যরা হলেন- আইডিআরের চেয়ারম্যান, ব্যাংক ও অর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের একজন অতিরিক্ত সচিব, সাধারণ বিমা ও জীবন বিমা কর্পোরেশনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক, বাংলাদেশ ইন্স্যুরেন্স অ্যাসোসিয়েশন (বিআইএ) মনোনীত তিনজন সদস্য এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি মনোনীত একজন অধ্যাপক ও বিমা একাডেমির মহাপরিচালক।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে আরও জানা গেছে, ‘বাংলাদেশ বিমা একাডেমি’ ‘বাংলাদেশ বিমা ও ঝুঁকি ব্যবস্থাপনা একাডেমি’ হলে পরিচালনা পর্ষদের সদস্যা সংখ্যা হবে ১১ জন। নতুন পর্ষদে আইডিআর চেয়ারম্যানকেই চেয়ারম্যান করার প্রস্তাব করা হয়েছে। আর মহাপরিচালক হিসেবে প্রস্তাব করা হয়েছে একজন সচিবকে। এছাড়া ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের একজন সচিব, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সচিব, আইডিআরএ’র একজন সদস্য, সাধারণ বিমা ও জীবন বিমা কর্পোরেশনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক, বিআইএ মনোনীত একজন সদস্য এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি মনোনীত একজন অধ্যাপক ও সরকার মনোনীত দুই জন সদস্য থাকার প্রস্তাব করা হয়েছে নতুন পরিচালনা পর্ষদের জন্য।

এ বিষয়ে আইডিআর সদস্য কুদ্দুছ খান অর্থসূচককে বলেন, বিমা কোম্পানিগুলোর জনশক্তিকে দক্ষ করে গড়ে তুলতে ‘বাংলাদেশ বিমা একাডেমি’ প্রতিষ্ঠিত হয়। কিন্তু প্রতিষ্ঠানটি তেমন ভূমিকা পালন করতে পারেনি।

তিনি বলেন, এ জন্য প্রতিষ্ঠানটির কিছু পরিবর্তনের উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। এ পরিবর্তন দীর্ঘ দিনের দাবি। এ জন্য অর্থ মন্ত্রণালয়ের ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগ মতামত চেয়েছে। সংশ্লিষ্ট সবার মতামত নির্ধারিত সময়েই মন্ত্রণালয়ে জমা দেওয়ার আশা করছি আমরা।

সূত্র জানায়, বিমা খাতের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হিসেবে ১৯৭৩ সালে প্রতিষ্ঠিত হয় বিআইএ। তবে কোনো সরকারের আমলেই প্রতিষ্ঠানটির সুফল মেলেনি। বিমা খাতের উন্নয়নে ২০১০ সালে আইডিআরএ পুনর্গঠনের পর বিআইএর উন্নয়নের বিষয়টিও আলোচনায় আসে। ২০১১ সালের নভেম্বরে বিআইএ পুনর্গঠন নিয়ে আইডিআরের সঙ্গে আলোচনায় বসে অর্থ মন্ত্রণালয়।

এর ধারাবাহিকতায় ২০১২ সালের ১৫ এপ্রিল একাডেমির অবস্থা সম্পর্কে লিখিতভাবে অর্থ মন্ত্রণালয়কে জানায় আইডিআরএ। বিআইএকে আন্তর্জাতিক মানের প্রতিষ্ঠানে রূপ দিতে বেশ কিছু সুপারিশ করে আইডিআরএ। পাশাপাশি প্রতিষ্ঠানটির নিয়ন্ত্রণ অর্থ মন্ত্রণালয়ের কাছ থেকে নিজেদের কাছে ন্যস্ত করার অনুরোধ জানায় আইডিআরএ।

সুপারিশে বলা হয়েছে, বাংলাদেশ ব্যাংকের অধীনে বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ব্যাংক ম্যানেজমেন্ট (বিআইবিএম) ও ইনস্টিটিউট অব ব্যাংকার্স (আইবিবি) নামে দুটি সফল প্রতিষ্ঠান রয়েছে। যেখান থেকে ব্যাংক কর্মকর্তা ও ব্যাংকিং খাতের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট আগ্রহী ব্যক্তিদের বিভিন্ন কোর্সের আওতায় প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা হয়। এদিকে বিমা খাত দেশের সম্ভাবনাময় খাত হলেও এ খাতে সংশ্লিষ্টদের পেশাগত দক্ষতা বাড়ানোর জন্য তেমন কোনো প্রতিষ্ঠান নেই।

এজন্য অর্থ মন্ত্রণালয়ের অধীনে থাকা বিআইএকে আইডিআরের নিয়ন্ত্রণে এনে একটি বিশ্বমানের বিমা প্রশিক্ষণ প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলার আগ্রহ প্রকাশ করা হয়েছে সুপারিশে। এজন্য এর গঠন কাঠামো, অবকাঠামো, অর্থায়নসহ নানা বিষয়ও সুনির্দিষ্টভাবে সুপারিশে উল্লেখ করেছে আইডিআরএ।

জানা যায়, বিআইএতে বেসিক ও ডিপ্লোমাসহ বিভিন্ন ট্রেনিং বিষয়ক ২৫টি কোর্সে চালু রয়েছে। এজন্য যে কয়টি বিভাগ আছে, তাতে বিমা খাতের বিপুল সংখ্যক জনবলকে প্রশিক্ষণ দেওয়া সম্ভব হচ্ছে না। এজন্য বিভাগের সংখ্যা ১৬টি করার সুপারিশ করেছে আইডিআরএ। বিভাগের প্রশিক্ষক হিসেবে ৩০ শতাংশ জনবল বিমা কোম্পানির দক্ষ কর্মকর্তাদের মধ্য থেকে এবং বাকি ৭০ শতাংশ সরাসরি নিয়োগ দেওয়ার প্রস্তাব করেছে আইডিআরএ। এছাড়া প্রতিটি বিমা কোম্পানিকে বাধ্যতামূলকভাবে একাডেমির সদস্যপদ নেওয়ার সুপারিশ করেছে আইডিআরএ।

জিইউ