সুচিত্রা সেন সংগ্রহশালা স্থাপনে হাইকোর্টের নির্দেশ

0
40
suchitra sen's Father's House
সুচিত্রা সেনের পৈত্রিক বাড়িতে দীর্ঘদিন কার্যক্রম পরিচালনা করেছে ইমাম গাজ্জালি ট্রাস্ট। ফাইল ছবি

পাবনায় সুচিত্রা সেনের পৈত্রিক বাড়ি দখলমুক্ত করতে সরকারকে নির্দেশে দিয়েছেন সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ।

suchitra sen's Father's House
সুচিত্রা সেনের পৈত্রিক বাড়িতে এখন পরিচালিত হচ্ছে ইমাম গাজ্জালি ইনস্টিটিউটের কিন্ডারগার্টেন স্কুল। ফাইল ছবি

সুচিত্রা সেনের বাড়ি দখলমুক্ত করার বিষয়ে বৃহস্পতিবার প্রকাশিত আপিল বিভাগের পূর্ণাঙ্গ রায়ে এই নির্দেশ দেওয়া হয়।

জনস্বার্থে করা এক রিট আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ২০১২ সালের ২৬ জুলাই ইমাম গাজ্জালি ইনস্টিটিউটের দখলে থাকা সুচিত্রা সেনের পৈত্রিক বাড়িটি দখলমুক্ত করে ‘সুচিত্রা সেন সংগ্রহশালা’ স্থাপনে সরকারকে নির্দেশ দেয় হাইকোর্ট।

ওই রায়ের বিরুদ্ধে করা লিভ টু আপিল (আপিল অনুমতি) আবেদন গত ৪ মে খারিজ করেছেন আপিল বিভাগের বিচারপতি এস.কে, সিনহার নেতৃত্বাধীন বেঞ্চ। ওই বেঞ্চের দেওয়া পূর্ণাঙ্গ রায় আজ প্রকাশিত হয়।

বাড়িটি উদ্ধার করে অবিলম্বে ‘সুচিত্রা সেন সংগ্রহশালা’ স্থাপনের নির্দেশও দেওয়া হয়েছে। এছাড়া হাইকোর্টের রায়ের ভুল তথ্য দিয়ে সুচিত্রা সেনের বাড়ি দখলে রাখায় আপিলকারী ইমাম গাজ্জালি ট্রাস্ট্রের মহাসচিব আবিদ হাসান দুলাল ও তার আইনজীবী ইমরান সিদ্দিকীকে তিরস্কার করা হয়।

সুচিত্রা সেনের বাড়ি উদ্ধারে রিটকারী আইনজীবী মনজিল মোরসেদ সাংবাদিকদের জানান, আপিল বিভাগের রায়ের ফলে যত দ্রুত সম্ভব সরকারকে সুচিত্রা সেনের বাড়ি দখলমুক্ত করে সেখানে ‘সুচিত্রা সেন সংগ্রহশালা’ স্থাপন করতে হবে। এক্ষেত্রে আইনগত কোনো বাধা এখন আর নেই।

রাষ্ট্রপক্ষে অতিরিক্ত অ্যাটর্নি জেনারেল মুরাদ রেজা সাংবাদিকদের বলেন, জামায়াত পরিচালিত ইমাম গাজ্জালি ইনস্টিটিউিট সুচিত্রা সেনের পাবনার পৈত্রিক বাড়িটি একটি কিন্ডারগার্টেন স্কুলে রূপান্তর করে ট্রাস্টের নামে বহু বছর ধরে দখলে রেখেছে।

২০০৯ সালের ১২ জুন পাবনার তৎকালীন জেলা প্রশাসক ইমাম গাজ্জালি ট্রাস্টকে উচ্ছেদের নোটিশ দেয়। কিন্তু তারা দখল ছাড়েনি। আপিল বিভাগের রায় অনুসারে এখন ইমাম গাজ্জালি ইনস্টিটিউিটকে উচ্ছেদে আর কোনো বাধা রইল না।

১৯৫১ সালের মাঝামাঝি সময়ে সুচিত্রা সেনের বাবা পাবনা থেকে সপরিবারে কলকাতায় চলে যান। সে সময় জেলা প্রশাসন ঊর্ধ্বতন সরকারি কর্মকর্তাদের আবাসনের জন্য সুচিত্রা সেনের পৈত্রিক ভিটা গোপালপুর মৌজার এসএ ৯৯ খতিয়ানভুক্ত ৫৮৭ এসএ দাগের ০.২১২৫ একরের ওই বাড়িটি অধিগ্রহণ করে। এরপর ইমাম গাজ্জালি এক সনা ইজারা নিয়ে বাড়িটির দখল নেয়। পরে বরাদ্দ বাতিল করা হলেও অবৈধ দখল অব্যাহত রাখে গাজ্জালি ইনস্টিটিউিট।

গত ১৭ জানুয়ারি কলকাতায় মারা যান বাংলা চলচ্চিত্রের কিংবদন্তি সুচিত্রা সেন। ১৯৩১ সালের ৬ এপ্রিল জন্ম নেওয়া সুচিত্রার শৈশব ও কৈশোর কেটেছে পাবনা সদর উপজেলার গোপালপুর মহল্লার হেমসাগর লেনের ওই বাড়িতে।

এমই/