প্রাধান্য পেয়েছে সমুদ্রিক সম্পদ আহরণ ইস্যু

0
42
enewspaprer

enewspaprerবৃহস্পতিবার প্রকাশিত দেশের বেশিরভাগ পত্রিকা সমুদ্রিক সম্পদ আহরণের বিষয়কে প্রাধান্য দিয়ে লিড নিউজ করেছে। কোন কোন পত্রিকা খেলার খবরকে লিড নিউজের মর্যাদা দিলেও বেশিরভাগ পত্রিকা দ্বিতীয় লিড নিউজ হিসেবে গুরুত্ব দিয়েছে।

ভারত ও মিয়ানমারের সঙ্গে সমুদ্রসীমা নির্ধারিত হওয়ায় বাংলাদেশের জন্য সামুদ্রিক সম্পদ আহরণের পথ উন্মুক্ত হয়েছে। তাই দেশের সামুদ্রিক মানচিত্র প্রণয়নের পাশাপাশি সম্পদ আহরণ ও সমুদ্র এলাকার নিরাপত্তার বিষয়টিকে গুরুত্ব দিয়ে কাজ শুরু করার পরিকল্পনা নিয়েছে সরকার।এর অংশ হিসেবে পররাষ্ট্র, নৌপরিবহন, মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ এবং পরিবেশ ও বন মন্ত্রণালয় নিয়ে সমন্বিত উদ্যোগ নেওয়ার বিষয়টিকে গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে।

অন্যদিকে টাইব্রেকারে ৪-২ গোলে নেদারল্যান্ডসকে হারিয়ে ২৪ বছর পর ফাইনালে আর্জেন্টিনা। দেশের প্রায় সব পত্রিকা তাই দুটি বিষয়কে গুরুত্ব দিয়ে নিউজ করেছে।

প্রথম আলোর লিড নিউজের শিরোনাম হলো- ‘সামুদ্রিক সম্পদ আহরণের পথ খুলছে’। আর এর টিকার হলো- ‘এবার মহীসোপানের দাবি প্রতিষ্ঠার পালা’। খেলার খবরকে গুরুত্ব দিয়ে পত্রিকাটি ৪ কলামের একটি ছবিসহ ক্যাপশন প্রকাশ করেছে। খেলার নিউজের শিরোনাম হলো- ‘ফাইনালে উঠেছে সেরা দলটিই’

সমকাল খেলার খবরকে প্রাধান্য দিয়েই লিড নিউজ করেছে। এর লিড নিউজের শিরোনাম হলো-‘আর্জেন্টিনাই ফাইনালে’। আর সামুদ্রিক সম্পদ আহরণ নিয়ে পত্রিকাটি নিউজ করেছে- ‘তেল- গ্যাস অনুসন্ধান হবে জোরদার’। এর উপ-শিরোনাম হলো- ‘সাগরে নিরুপদ্রবে মাছ ধরা যাবে’।

দৈনিক ইত্তেফাকের লিড নিউজের শিরোনাম হলো- ‘ক্ষোভের আগুনে জ্বলছে ব্রাজিল’। আর এর টিকার হলো- ‘ব্যাপক হাঙ্গামা ভাংচুর অগ্নিসংযোগ’। খেলার খবর নিয়ে পুত্রকাটি নিউজ করেছে- ‘সেমিতে ওঠাকেই জয় বলছেন আর্জেন্টিনা কোচ’।

কালের কণ্ঠের লিড নিউজের শিরোনাম হলো- ‘তালপট্টি ‘ভূখণ্ড’ থাকলে সাগর কমত এ দেশের’। আর খেলার খবর নিয়ে পত্রিকাটি দ্বিতীয় লিড নিউজ করেছে- ‘ফাইনালে আর্জেন্টিনা’।

ইংরেজি দৈনিক দ্য ডেইলি স্টারের লিড নিউজের শিরোনাম হলো- ‘It’s Argentina vs Germany.’ নিউজের সাথে পত্রিকাটি ক্যাশসনসহ পাঁচ কলামের একটি ছবিও দিয়েছে। এর দ্বিতীয় লিড নিউজের শিরোনাম হলো- ‘Govt wants to withdraw CID.’ আর এর উপ-শিরোনাম হলো- ‘Seven-murder Probe’.

দ্য ফিনান্সিয়াল এক্সপ্রেস লিড নিউজ করেছে- ‘Economic downturn halts but recovery remains fragile’. এর টিকার হলো- ‘Inertia in pvt investment persists amid simmering political discontent: Experts.’

এএসএ/