প্রতিশোধ না পুনরাবৃত্তি

0
56
brasil vs germany semifinal
ব্রাজিল বনাম জার্মানি

বিশ্বকাপে আজ শুরু হচ্ছে সেরা চার দলের লড়াই। মঙ্গলবার দিবাগত রাতে ব্রাজিলের বেলো হরিজন্তেই চলতি বিশ্বকাপের ৬১ তম ম্যাচ এবং প্রথম সেমিফাইনালে খেলতে নামবে দুই সাবেক বিশ্বচ্যাম্পিয়ন লাতিন পরাশক্তি ব্রাজিল ও ইউরোপিয়ান দৈত্য জার্মানি।

brasil vs germany semifinal
ব্রাজিল বনাম জার্মানি

এবার নিয়ে বিশ্বকাপ ফুটবলের ২০টি আসরে জার্মানি ১৪ বার সেমিফাইনাল খেলছে। ব্রাজিল এবার নিয়ে খেলছে১১ বার। নিজেদের মধ্যে বিশ্বকাপে ম্যাচ হয়েছে মাত্র ১টি। ২০০২ সালে ফাইনালে সেই ম্যাচে জার্মানিকে ২-০ গোলে হারিয়ে পেন্টা জেতে ব্রাজিল।

দুই দল বিশ্বকাপে এখন পর্যন্ত সর্বোচ্চ সংখ্যক ম্যাচ খেলেছে,ব্রাজিল ১০২টি, জার্মানি খেলেছে১০৪টি ম্যাচ। এখন পর্যন্ত সব মিলিয়ে ২১ বার মুখোমুখি হয়েছে দু’দল। ব্রাজিল জিতেছে ১২ বার,জার্মানির জয় ৪টিতে। ড্র ৫টিতে।

ঘরের মাটিতে শিরোপা জয়ে মানসিকভাবে প্রস্তুত সেলেসাওরা। ব্রাজিল এই ম্যাচে আক্রমণ ও রক্ষণের সেরা দুই খেলোয়াড়কে হারিয়েছে। দলের প্রাণভোমরা নেইমার শিরদাঁড়ায় চোট পেয়ে মাঠের বাইরে। ব্রাজিল বিশ্বকাপ জিততে চায় এই সেনসেশনের জন্য। আর সে জন্য হাল্ক, অস্কার কিংবা লুইজের সেরা পারফরম্যান্সের দিকে তাকিয়ে স্বাগতিকরা।

বিশ্ব সেরা সেন্টার ব্যাক থিয়াগো সিলভা কার্ডজনিত সমস্যায় সেমিফাইনাল মিস করছেন। সিলভার বদলে খেলতে নামবেন বায়ার্নের দান্তে। জার্মান দলের আক্রমণভাগকে বিশেষ করে টিমমেট মুলারকে কিভাবে সামলাতে হয় দান্তের ভালোই জানা থাকার কথা। অন্যদিকে ফিলিপ লাম টুর্নামেন্টের প্রথম থেকে মাঝমাঠে খেললেও গত ম্যাচে ফ্রান্সের সাথে খেলেছে রাইট ব্যাকে। আজ যদি ব্রাজিলিয়ান কোচ স্কলারি অস্কারকে মাঝ মাঠে না খেলিয়ে আক্রমণে যেতে বলেন সেক্ষেত্রে লামের দায়িত্ব পড়বে অস্কারকে আটকানোর।

আজ হাল্ক দলের আক্রমণভাগের বাম পাশে থাকবেন, পিছনে থাকবেন বিশ্বের সেরা লেফট উইঙ্গার মার্সেলো। ব্রাজিল আজ সফল হবে যদি হাল্ক বাম পাশ দিয়ে মার্সেলোর সহায়তায় আক্রমণে যেতে পারে। নেইমার জায়গা নেবেন উইলিয়ান। গত ম্যাচগুলোতে মূল স্ট্রাইকার ফ্রেডের পারফরমেন্স একেবারেই হতাশাজনক ছিল। হাল্কও তেমন ভাবে জ্বলে উঠতে পারেন নি। তবে নিষেধাজ্ঞা থেকে ফিরছেন লুইস গুস্তাভো। ডিফেন্সিভ মিডফিল্ডে গুস্তাভোর সঙ্গে থাকবেন ফার্নান্দিনিয়ো।

জার্মানির বিরুদ্ধে বিগ সেমিফাইনালে মুলার, শোয়াইনস্টাইগারদের দৌড় থামাতে শেষ পর্যন্ত স্ট্রাটেজি ও ফর্মেশনে বদল করতে পারেন মাস্টার ট্যাকটিশিয়ান স্কলারি।

World-Cup 2002
২০০২ বিশ্বকাপে জার্মানিকে হারিয়ে শিরোপার উৎসবে মাতে ব্রাজিল

৬২’র বিশ্বকাপ স্মৃতিতেই স্বস্তি খুঁজছে স্বাগতিকরা। সেবার ইনজুরি ছিটকে দিয়েছিল দলের সেরা তারকা পেলেকে। তবে ঠিকই বিশ্বকাপ জিতে ফিরেছিল সেলেসাওরা।

গত ম্যাচে ফ্রান্সের সাথে বেশ ভালোই বেগ পেতে হয়েছে জার্মানিকে। ম্যাচের শুরুতেই কর্নার থেকে গোল পায় জার্মানরা। এরপর বাকি আশি মিনিট ডিফেন্ড করে গেছে তারা। ফ্রান্সের বেশকিছু মারাত্মক শট গোলরক্ষক নয়ার অসামান্য দক্ষতায় রুখেছে। দলের স্ট্রাইকারদের মধ্যে সফল বলতে মুলার, ক্লোসার খেলায় বয়সের ছাপ।ওজিল একটা গোল পেলেও নেই সেরা ফর্মে। প্রথম ম্যাচে পর্তুগালকে চার গোল দেওয়ার পর জার্মানিকে আর কোনো ম্যাচেই সেই রকম দুর্দান্ত মনে হয় নি।

জার্মানদের এখন ভয় এটাই যে, শোককে শক্তিতে পরিণত করে ব্রাজিল অপ্রতিরোদ্ধ হয়ে ওঠে কিনা।