নকশায় নতুনত্ব রাজশাহী সিল্কে, বিক্রিও বেশ

0
225
Rajshahi Silk 2
ধানমণ্ডির সপুরা সিল্কে রাজশাহী সিল্ক শাড়ি বাছাই করছেন কয়েকজন ক্রেতা। ছবি: খালেদুল কবির নয়ন

আজ ৯ রমজান। ২০ দিন পরই ঈদুল ফিতর। আর ঈদকে সামনে রেখে শুরু হয়ে গেছে কেনাকাটা। জমে উঠতে শুরু করেছে ঈদ বাজার। এই উৎসবকে কেন্দ্র করে রাজশাহীর সিল্ক হাউসগুলো সেজেছে ভিন্ন আঙ্গিকে। পোশাকের কালেকশনে থাকছে ভিন্নধর্মী বৈচিত্র ও নতুনত্বের ছোঁয়া।

Rajshahi Silk 2
ধানমণ্ডির সপুরা সিল্কে রাজশাহী সিল্ক শাড়ি বাছাই করছেন কয়েকজন ক্রেতা। ছবি: খালেদুল কবির নয়ন

রাজশাহী সিল্ক শাড়িতে পেইন্টিং, কারচুপি, কাটওয়াক, ফুলের নকশা ও জ্যামিতিক নকশাকে প্রাধান্য দেওয়া হয়েছে। এছাড়া বলাকা, ধুপিয়ান, এন্ডি সিল্ক, সফট সিল্ক, মসলিন, হাফ সিল্ক, তসর, র সিল্কসহ সব ধরনের সিল্কের ব্যাপক আয়োজন রয়েছে শো-রুম গুলোতে।

সপুরা সিল্কে পাওয়া যাচ্ছে রাজশাহী সিল্ক শাড়ি, থ্রি-পিস, ওড়না, পাঞ্জাবি ও শার্ট। ঈদ উপলক্ষে তারা এনেছে সিল্ক জামদানি, ধুপিয়ান সিল্কের কুচিপ্রিন্ট, কাটওয়াক ও এপ্লিক করা মসলিন কাপড়। এছাড়া এন্ডি সিল্কের হ্যান্ডপ্রিন্টও তাদের নতুন কালেকশন।

পাঞ্জাবিতেও এনেছে বৈচিত্র। এপ্লিক, কারচুপি ও হাতের কাজ করা পাঞ্জাবি ২,০০০-৩,৫০০ টাকা, সিল্কের শার্ট ১,০৫০-১,২৫০ টাকা, সিল্কের ওড়না ৭৫০-১,২৫০ টাকা, সিল্ক জামদানি ৫,০৫০ টাকা, ধুপিয়ান সিল্কের কুচিপ্রিন্ট ৫,০৫০-৫,২০০ টাকা, কাটওয়াক ও এপ্লিক করা মসলিন কাপড় ৬,২৫০-১০,৮০০ টাকায় পাওয়া যাচ্ছে।

সপুরা সিল্কে শাড়ির সর্বনিম্ম দাম ১,৫৫০ টাকা। এখানে বিভিন্ন রংয়ের সিল্কের গজ কাপড়ের চাহিদাও বেশ। প্রতিগজ কাপড়ের দাম ৩১০-৯৫০ টাকা।

সপুরা সিল্কের বিক্রয়কর্মী সেলিম হোসেন বললেন, এবার রমজানের প্রথম থেকেই বাজার চাঙ্গা। আশা করছি, ১৫ রমজানের পর থেকে বাজার আরও জমে উঠবে।

উষা সিল্কেও ঈদকে সামনে রেখে নতুন ডিজাইনের কাপড় পাওয়া যাচ্ছে। উষা সিল্কের প্রোপাইটর মনজুর ফারুক চৌধুরী বলেন, এবার শাড়ির চেয়ে গজ কাপড় বেশি বিক্রি হচ্ছে। তবে বিক্রি গতবারের তুলনায় কিছুটা কম।

Rajshahi Silk 4
ধানমণ্ডির মমতাজ প্লাজায় ক্রেতাদের রাজশাহী সিল্ক দেখাচ্ছেন এক বিক্রেতা। ছবি: খালেদুল কবির নয়ন

ঈদ উপলক্ষে দোয়েল সিল্ক ১০০ টি নতুন আইটেম বাজারে এনেছে। এখানে শাড়ির দাম ১,৮৫০-১৫,০০০ টাকা পর্যন্ত। থ্রি-পিস পাওয়া যাচ্ছে ৫,০০০-৫,৫৫০ টাকার মধ্যে। দোয়েল সিল্ক দাবার ছকের নকশায় ঈদ স্পেশাল পাল্লুপাটি শাড়ি এনেছে। শাড়িটির দাম ৫,০০০ টাকা।

দোয়েল সিল্কের ব্যবস্থাপনা পরিচালক জি.এম. আলমগীর বলেন, এবার ঈদে পাল্লুপাটি শাড়ির কদর বেশ ভালো। এন্ডি সিল্ক, মসলিন, সফট সিল্ক, র সিল্কও ভালো চলছে।

মোহাম্মদপুর থেকে কাপড় কিনতে সপুরা সিল্কে এসেছিলেন গৃহবধূ মণি। তিনি বলেন, কিছু শাড়ির সাথে সিল্কের ব্লাউজ ছাড়া মানায় না। এছাড়া আরামের ব্যাপার তো আছেই। তাই সিল্কের কাপড় কিনতে এসেছি।

দোয়েল সিল্কে কাপড় কিনতে দেখা যায় একটি বেসরকারি টেলিভিশনের সংবাদকর্মী শাহরিমা বৃতিকে। তিনি জানালেন, সিল্ক একটি ঐতিহ্যবাহী পোশাক। তাছাড়া এবার অনেক নতুন ডিজাইনের সিল্ক শাড়ি পাওয়া যাচ্ছে। তাই এখানে আসা।

এমই/