সাকিবের শাস্তিতে ফেসবুকে মিশ্র প্রতিক্রিয়া

0
37
Shakib-Al-Hasan jpg
সাকিব-আল-হাসান

শৃঙ্খলা ভঙ্গের দায়ে সাকিব আল হাসানকে ৬ মাসের জন্য নিষিদ্ধ করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। একইসাথে ২০১৫ সালের ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত বিদেশি কোনো লিগে খেলতে পারবেন না তিনি।

সোমবার বিকালে বিসিবির এই সিদ্ধান্তের পর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে পক্ষে-বিপক্ষে উঠেছে সমালোচনার ঝড়।

Shakib-Al-Hasan jpg
সাকিব-আল-হাসান

ফেসবুকে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্বরিদ্যালয়ের ছাত্র আব্বাস উদ্দীন নয়ন লিখেছেন, বিসিবির উচিত কিছু বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী নিয়ে টিম গঠন করা। যারা বিদেশ গিয়ে খেলবে না, বিসিবির ইচ্ছামতো সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে কোনো কথা বলবে না। আচরণবিধি লঙ্ঘন করবে না। শুধু বিসিবিকে হুজুর হুজুর করবে।

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যারয়ের ফার্মেসি বিভাগের ছাত্র ওবাদুর রহমান বাবু লিখেছেন, এক সাকিবের ওপর ভর করে বাংলাদেশ ক্রিকেটের উন্নতি হয় নি। বাংলাদেশে হাজার সাকিব তৈরি হবে। সে নিয়মের কোনো তোয়াক্কা করে না। তার কাছে বাংলাদেশের ক্রিকেট জিম্মি হতে পারে না।

বাংলাদেশ ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য সাইদুল ইসলাম রুবেল লিখেছেন, সাকিবের শাস্তি বাড়াবাড়ি রকমের বেশি। বিসিবি’র যে সকল কর্তা ব্যক্তির ঔদাসীন্য ও দায়িত্বে অবহেলার কারণে এমন অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনার সূত্রপাত এবং যারা সমস্যাটির একটি সহজ সমাধানের পথে না গিয়ে নিজেদের কর্মব্যর্থতাকে ধামাচাপা দেওয়ার উদ্দেশ্যে পুরো দোষ সাকিবের কাঁধে চাপিয়ে মিডিয়ার সামনে অর্থহীন গলাবাজি করে দায়মুক্ত হওয়ার চেষ্টা করছে তাদের শাস্তি হওয়াটা বেশি জরুরি।

যমুনা টেলিভিশনের বিশেষ প্রতিবেদক মাহফুজুর রহমান মিশু লিখেছেন, সরি! সাকিব আল হাসান….তোমাকে দেয়া শাস্তি কাঁদাচ্ছে আমাদেরও। তারপরও প্রত্যাশা, সত্যি সত্যিই শৃঙ্খলা ফিরে আসুক সবক্ষেত্রে। শাস্তি পাক সব শৃঙ্খলাভঙ্গকারীরা।

খুলনার উত্তম প্রতীক লিখেছেন, দিন যত যাচ্ছে সাকিব তত বেয়াড়া হচ্ছে। একটা না একটা পর্যায়ে ওর ব্যাপারে বিসিবি একটা সিদ্ধান্তে আসতই। ৬ মাস ইজ নট সো লং। এই ৬ মাসে সাকিব ব্যবহারে পরিশুদ্ধ হবে এটাই আশা করি।

সালমান ফার্সি লিখেছেন, বাংলাদেশের ক্রিকেট ইতিহাসে সবচেয়ে নিকৃষ্ট মানের কোচ এই হাতুরাসিংহে! সে এসে প্রথম আঘাত করলো সাকিবকে। এরপর টার্গেট কে?

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের ছাত্র হুমায়ন কবির বিপ্লব লিখেছেন, বাংলাদেশ ক্রিকেট দলে দরকার সৎ,অনুগত,নিবেদিত প্রাণ খেলোয়াড়। আর মাঠে নিয়মিত ফ্লপ মারার যোগ্যতা সম্পন্ন অনুগত প্রাণ।

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী অধ্যাপক আর রাজী লিখেছেন, বড় মানুষকে কিভাবে ধারণ করতে হয় বিসিবির বেঁটে মানুষগুলোর তা জানার কোনো কারণ নাই। আমাদের এ সময়ের সবচেয়ে উঁচু মানুষটিকে যারা ছেঁটে ফেলতে উদ্যত তারা নিপাত যাক।

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র জাভেদ হাসান আনন্দ ফেসবুকে লিখেছেন, শাস্তিটা ভালই হয়েছে। তবে সে সাথে সাকিবকে কাউন্সিলিংয়ের ব্যবস্থা করানো হোক। সাকিবের ডিসিপ্লিনে সমস্যা আছে। যেটা তামিমেরও আছে। শচীনের মতো আইডল প্লেয়াররাও কোনোদিন নিয়ম ভাঙ্গে নাই। বলে নাই আমি দেশের হয়ে খেলব না। সাকিব আমাদের দেশের আইডল। তো ওর কাছ থেকে আমরা কি শিখি?

ইউএম/