পল্লবীর খুনিকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড

0
41
pallavi
বাঙ্গালী আইনজীবী পল্লবী পুরকায়স্থ- ফাইল ছবি
pallavi
বাঙ্গালী আইনজীবী পল্লবী পুরকায়স্থ- ফাইল ছবি

বাঙ্গালী নারী আইনজীবী পল্লবী পুরকায়স্থ হত্যার ঘটনায় তার ভাড়া বাড়ির নিরাপত্তা প্রহরীকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন ভারতের একটি আদালত।

সোমবার মুম্বাইয়ের বিশেষ বিচারক ব্রুশালি জোসির আদালত এ রায় দেন। খবর এনডিটিভি ও জিনিউজের।

এর আগে গত সোমবার একই আদালত তাকে দোষী সাব্যস্ত করে।

২০১২ সালের ৯ আগস্ট মুম্বাইয়ের ওয়াদেলার ভাড়া বাড়িতেই নির্মমভাবে খুন হন পল্লবী। ঘটনার পর থেকেই নিখোঁজ ছিলেন ওই বাড়ির নিরাপত্তা কর্মী সাজ্জাদ আহমেদ মুঘল আলিয়াস সাজ্জাদ পাঠান।

পরে তাকে মুম্বাই সেন্ট্রাল স্টেশন থেকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

সে সময় পুলিশের দাবি করে, জেরায় সাজ্জাদ খুনের কথা স্বীকার করেছেন। উদ্ধার করা হয়েছে খুনে ব্যবহৃত ধারালো ছুরিটিও।

পল্লবী পেশায় আইনজীবী ছিলেন। বয়স আনুমানিক ২৫ বছর। অভিনেতা পরিচালক ফারহান আখতারের আইনি পরামর্শদাতা ছিলেন তিনি। পল্লবীর বাবা একজন আইএএস অফিসার। মা দিল্লির মহানগর টেলিফোন নিগমে কর্মরত।

এর আগে এক প্রতিবেদনে জানানো হয়, পুলিশের জেরায় সাজ্জাদ জানান, পল্লবীর ওপর তার দুর্বলতা ছিল। উদ্দেশ্যপূর্ণভাবে পল্লবীর ফ্ল্যাটের বিদ্যুতের লাইন কেটে দেন তিনি। এরপর ইলেকট্রিশিয়ানকে সঙ্গে নিয়ে পল্লবীর ফ্ল্যাটে যান। সে সময়ই তিনি ফ্ল্যাটের চাবি পকেট করেন।

এরপর দিবাগত রাত দেড়টা নাগাদ ফের পল্লবীর ফ্ল্যাটে যান সাজ্জাদ। বেডরুমে ঢুকে পল্লবীকে ধর্ষণের চেষ্টা করলে পল্লবী বাধা দেন। খুন করার আগে তাদের মধ্যে ধস্তাধস্তি হয়েছিল বলে জেরায় জানিয়েছেন সাজ্জাদ। এরপরই ছুরি দিয়ে গলা কেটে নৃশংসভাবে পল্লবীকে হত্যা করেন তিনি।

পল্লবীর পুরুষবন্ধু অভীক সে সময় ফ্ল্যাটে ছিলেন না। এরপর খুনের মামলা দায়ের করেন তার পুরুষবন্ধু অভীক সেনগুপ্ত।

যে বহুতল ভবন থেকে পল্লবীর লাশ উদ্ধার হয়েছে সেই আবাসনে তার পুরুষবন্ধু অভীক সেনগুপ্তের সঙ্গে থাকতেন বলে জানায় পুলিশ। তিনিও পেশায় আইনজীবী।