ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীরা পাচ্ছেন বিশেষ সুবিধা

Bangladesh bank

Bangladesh bankঋণ শ্রেণীকরণের ক্ষেত্রে ক্ষতিগ্রস্থ ব্যবসায়ীরা বিশেষ সুবিধা পাবেন। এক্ষেত্রে তাদের সংশ্লিষ্ট ব্যাংক বরাবর আবেদন করতে হবে। এরপর ব্যাংকের বোর্ড সভার অনুমোদন নিয়ে স্বল্প ডাউন পেমেন্টে সর্বোচ্চ ৬ মাসের জন্য ঋণ পুনঃতফসিলের সুযোগ দেওয়া হবে। ব্যবসায়ীদের ক্ষতি পুষিয়ে নিতে ব্যাংকগুলো তাদের সুবিধামত সুদহারও কমাতে পারবে।

সোমবার সকালে বাংলাদেশ ব্যাংকের কনফারেন্স হলে ব্যাংকের নির্বাহীদের সাথে বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। তবে এক্ষেত্রে ঋণ শ্রেণিকরণের নীতিমালা পরিবর্তন বা নতুন কোন প্রজ্ঞাপন জারি করা হবে না।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের ডেপুটি গভর্নর এস কে সুর চৌধুরী অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন। প্রথম দফায় রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকের সাথে এবং দ্বিতীয় দফায় দেশীয় ও বিদেশি বাণিজ্যিক ব্যাংকের সাথে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

বৈঠক শেষে এস কে সুর চৌধুরী সাংবাদিকদের বলেন, বর্তমান রাজনৈতিক অস্থিরতায় যেসব ব্যবসায়ীরা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে শুধু তারাই এ সুবিধা পাবেন। তবে সব ব্যবসায়ীরা এ সুবিধা পাবেন না। বাস্তব পরিস্থিতিতে যুক্তিসঙ্গত কারণ সাপেক্ষে ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীরা স্বল্প ডাউন পেমেন্টে এ ঋণ পুনঃতফসিলিকরণের সুবিধা পাবেন।

সভা শেষে অ্যাসোসিয়েশন অব ব্যাংকার্স বাংলাদেশ (এবিবি)-এর সভাপতি ও এনসিসি ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক নুরুল আমিন বলেন, বৈঠকে চলমান অস্থিরতায় পরিবহন, আবাসন ও পোশাক শিল্পসহ সকল ক্ষেত্রেই যারা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন তাদের বিষয়ে আলোচনা হয়েছে। আমরা (ব্যাংকার্সরা) আমাদের সমস্যা তুলে ধরেছি।  কেন্দ্রীয় ব্যাংক কয়েক দিনের মধ্যে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত জানাবে।

তিনি আরও বলেন, ঋণ পুন:তফসিলিকরণের ক্ষেত্রে বাংলাদেশ ব্যাংকের শর্ত শিথিল করার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

প্রসঙ্গত, সাম্প্রতিক রাজনৈতিক অস্থিরতায় ব্যবাসায়ীরা বিভিন্নভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে ।  তাই ব্যবসায়ী সংগঠনগুলো বিভিন্ন সময় বাংলাদেশ ব্যাংকের কাছে তাদের জন্য অনুকূল ব্যাংক ব্যবস্থা করার আবেদন জানিয়ে আসছে। এরই অংশ হিসেবে সম্প্রতি এফবিসিসিআই ও ডিসিসিআই কেন্দ্রীয় ব্যাংকের গভর্নরের কাছে লিখিত আবেদন করেন। আবেদনে তারা দেশের বর্তমান অস্থিতিশীল পরিস্থিতিতে অর্থনীতির চাকাকে সচল রাখতে ঋণ শ্রেণিকরণ, পুনঃতফসিলি করণ ও সুদহার কমানোর জন্য বাংলাদেশ ব্যাংকের হস্তক্ষেপ কামনা করেন।