দেড়শও করতে পারল না পাকিস্তান

উইকেটে খানিকটা সবুজ ঘাস থাকায় বাড়তি সুবিধা পেয়েছেন বোলাররা। সেটা কাজে লাগিয়ে পাকিস্তানকে অল্পতেই আটকে রেখেছেন স্যাম কারান-আদিল রশিদরা। বাবর আজম ও শান মাসুদের ধীরগতির ইনিংসে ফাইনালে ১৩৭ রানের পুঁজি পেয়েছে পাকিস্তান। বিশ্বকাপ জিততে ইংল্যান্ডের প্রয়োজন ১৩৮ রান।

মেলবোর্নে টস হেরে ব্যাটিং করতে নেমে প্রথম ওভারেই আউট হতে পারতেন মোহাম্মদ রিজওয়ান। বেন স্টোকসের বলে মিড অফে ঠেলে দিয়ে রান নেওয়ার জন্য দৌড় দিয়েছিলেন এই উইকেটকিপার ব্যাটার। দ্রুত থ্রো করলেও সরাসরি স্টাম্প ভাঙতে পারেননি জর্ডান। তাতে বাইরে থাকলেও জীবন পেয়ে যান রিজওয়ান। জীবন পেলেও ইনিংস বড় করতে পারেননি পাকিস্তানের এই ব্যাটার।

স্যাম কারানের দারুণ এক ডেলিভারিতে ইনসাইড এজ হয়ে বোল্ড হন ১৫ রান করা রিজওয়ান। তিনে নেমে এদিন ব্যাট হাতে আলো ছড়াতে পারেননি মোহাম্মদ হারিস। আদিল রশিদের ঝুলিয়ে দেয়া বলে উড়িয়ে মারতে গিয়ে লং অনে ক্যাচ দেন তরুণ এই ব্যাটার। স্টোকস ক্যাচ নিলে মাত্র ৮ রানে ফিরে যান হারিস। এরপর শান মাসুদকে সঙ্গে নিয়ে জুটি গড়ার চেষ্টা করেন বাবর আজম।

তাদের দুজনের ৩৯ রানের জুটিও ভাঙেন রশিদ। ডানহাতি এই লেগ স্পিনারের গুগলি বুঝতে না পেরে রশিদের হাতেই ক্যাচ তুলে দেন পাকিস্তানের অধিনায়ক। সেমিফাইনালে সেমিফাইনাল করা বাবর এদিন আউট হয়েছেন ২৮ বলে ৩২ রান করে। পাঁচে নামা ইফতিখার আহমেদ সাজঘরে ফেরেন শূন্য রানে। স্টোকসের বলে ডিফেন্স করতে গিয়ে জস বাটলারের গ্লাভসে ক্যাচ দেন ডানহাতি এই ব্যাটার।

অর্থসূচক/এএইচআর

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
মন্তব্য
Loading...