‘সুনামের সুবাদেই এতো সুবিধা পান সঞ্জয়!’

sonjoy dattaস্ত্রী মান্যতার অসুস্থতার কারণে জেল থেকে মুক্তি পেয়েছিলেন সঞ্জয়। পুনের ইয়েরপাড়া জেল থেকে দ্বিতীয় বারের মতো প্যারেলে মুক্তি পেয়েছিলেন গত ৬ ডিসেম্বর। এই পর্যন্ত কেউ তার প্যারেলে মুক্তি নিয়ে কোন প্রশ্ন তোলেননি। কিন্তু যার দেখাশোনার জন্য এক মাসের প্যারোলে মুক্তি পেয়েছিলেন মুন্নাভাই, সেই অসুস্থস্ত্রীকেই জিন্স, টি-শার্ট পরা অবস্থায় দেখা গেল সিনেমার প্রিমিয়ার পার্টিতে! তারপর থেকে বিতর্ক পিছু ছাড়ছে না তার।

তবে আর বিতর্ক নয়, বিতর্কের পেছনের সত্য উদ্ঘাটনের জন্য এবার শুরু হচ্ছে তদন্ত। তদন্তের আদেশ দিয়েছেন স্বয়ং মহারাষ্ট্র রাজ্যের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আর আর পাতিল। সঞ্জয় স্রেফ সুনামের সুবাদে ইয়েরপাড়া কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে আইনি সুবিধা পেয়ে আসছেন কিনা তা খতিয়ে দেখার আদেশ দেওয়া হয়েছে গতকাল।

ইয়েরপাড়া কর্তৃপক্ষ জেলে বন্দি অবস্থায় মদ সরবরাহ করতো সঞ্জয়কে এ নিয়ে ১৫ ডিসেম্বরের দিকে তুমুল বিতর্ক শুরু হয়। বিতর্ক রয়েছেঅক্টোবর মাসে সামান্য পায়ের অসুস্থতার জন্য সঞ্জয়ের ১৫ দিনের প্যারোলে মুক্তি পাওয়া নিয়ে। এখানেই শেষ নয়,  মহারাষ্ট্র সরকারের কাছে সঞ্জয়ের হয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সাজা কমানোর আবেদন নিয়েও রয়েছে বিতর্ক। এরই পরিপ্রেক্ষিতে এবার বিতর্কের পেছনের সত্য উদ্ঘাটনের জন্য তদন্তের আদেশ দেয়া হয়েছে।

উল্লেখ্য, ১৯৯৩ সালের মার্চ মাসের দিকে মুম্বাইয়ে বোমা বিস্ফোরণে ২৫৭ জন প্রাণ হারান। ভয়াবহ ওই সহিংসতায় সম্পৃক্ত থাকা সন্দেহে সঞ্জয় দত্তের বাড়িতে তল্লাশি করে অবৈধ অস্ত্র খুঁজে পায় পুলিশ। পরে বাড়িতে অবৈধ অস্ত্র রাখার দায়ে ২০ বছর আগের মামলায় গত ২০১৩ এর ২১ মার্চ সঞ্জয়কে পাঁচ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দেন ভারতের সর্বোচ্চ আদালত। এরপর থেকে তিনি ইয়েরপাড়া জেলে বন্দী।