শীর্ষ ইপিএসে উঠে আসছে দেশি কোম্পানি
মঙ্গলবার, ২২শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » পুঁজিবাজার

শীর্ষ ইপিএসে উঠে আসছে দেশি কোম্পানি

Top_EPSপুঁজিবাজারে শেয়ার প্রতি আয় বা ইপিএস-এর দিক থেকে বিদেশী কোম্পানিগুলোর একচেটিয়া আধিপত্য কমছে। উঠে আসছে অনেক দেশী কোম্পানি। বর্তমানে শীর্ষ ২০ ইপিএসধারীর তালিকায় দেশী ও বহুজাতিক কোম্পানির সংখ্যা প্রায় সমান। তালিকায় পাঁচটি রয়েছে মিউচ্যুয়াল ফান্ড। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) সেপ্টেম্বর মাসের রিভিউ সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

তালিকায় শীর্ষে রয়েছে আইসিবি ফার্স্ট মিউচ্যুয়াল ফান্ড। কোম্পানিগুলোর মধ্যে সবার উপরে বিএটিবিসি। আর দেশী কোম্পানির মধ্যে রেনেটা লিমিটেড। তালিকায় সরকারি মালিকানাধীন তিনটি কোম্পানিও জায়গা করে নিয়েছে। তিনটিই আবার তেল বিপণন কোম্পানি। এগুলো হচ্ছে-পদ্মা অয়েল, মেঘনা পেট্রোলিয়াম ও যমুনা অয়েল।

বাজার সংশ্লিষ্টরা বলছেন, দেশী কোম্পানিগুলোর তুলনায় বহুজাতিক কোম্পানিগুলো আর্থিক বিবরনীতে স্বচ্ছতা বেশী। এছাড়া এদের পরিশোধিত মূলধনও কম। তাই এদের শেয়ার প্রতি আয় বা ইপিএস অন্যদের চেয়ে বেশী হয়ে থাকে।

এ বিষয়ে সিটিজেন সিকিউরিটিজ অ্যাণ্ড ইনভেস্টমেন্টের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা তাহিদ আহমেদ চৌধুরী অর্থসূচককে বলেন, একদিকে বহুজাতিক কোম্পানিগুলোর মধ্যে জবাবদিহীতা ও স্বচ্ছতা রয়েছে, অন্যদিকে তাদের কোম্পানিগুলোর ফান্ডও বেশি। এ কারণে এ সব কোম্পানির আয়ও বেশি।

দেশী কোম্পানি: বাংলাদেশি কোম্পানিগুলোর মধ্যে সবচেয়ে ভালো অবস্থানে রেনেটা লিমিটেডের। ওষুধ ও রসায়ন খাতের এ কোম্পানি সর্বশেষ বছরে শেয়ার প্রতি ৩৩ টাকা ৫৭ পয়সা আয় করেছে। এর পরে থাকা ন্যাশনাল টি কোম্পানির শেয়ার ইপিএস ২৯ টাকা ৮৮ পয়সা। দেশী কোম্পানিগুলোর মধ্যে তৃতীয় স্থানে থাকা অ্যাপেক্স এডেলসি ফুটওয়্যারের ইপিএস ২৩ টাকা এক পয়সা। ২২ টাকা ৭৮ পয়সা ইপিএস নিয়ে চতুর্থ অবস্থানে রয়েছে যমুনা অয়েল। এর পরে থাকা মেঘনা পেট্রোলিয়ামের ইপিএস ১৬ টাকা ৯৬ পয়সা। বস্ত্র খাতের কোম্পানি স্টাইল ক্রাফটের ইপিএস ১৯ টাকা ৮৯ পয়সা। ষোল টাকা ৩৮ পয়সা ইপিএস নিয়ে তালিকায় উঠে আসা শেষ কোম্পানি হচ্ছে পদ্মা অয়েল লিমিটেড।

বহুজাতিক কোম্পানি: বহুজাতিক কোম্পানিগুলোর মধ্যে সবচয়ে ভালো অবস্থানে রয়েছে বিএটিবিসি। কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় বা ইপিএস ৬৫ টাকা ৬৯ পয়সা। এর পর রয়েছে বাটা সু। এর ইপিএস ৪৯ টাকা ১২ পয়সা। ৩৩ টাকা ৫৭ পয়সা ইপিএস নিয়ে তৃতীয় অবস্থানে রয়েছে রেনেটা। বার্জার পেইন্টসের ইপিএস ৩২ টাকা ৪৬ পয়সা, লিন্ডে বিডির ৩১ টাকা ৭০ পয়সা, ম্যারিকো বাংলাদেশের ২৭ টাকা ৫৩ পয়সা। রেকিট বেনকিজারের ইপিএসব ২৭ টাকা ১৬ পয়সা, হাইডেলবার্গ সিমেন্টের ২২ টাকা ৮৫ পয়সা আর গ্লাসকো স্মিথক্লাইনের ইপিএস ২০ টাকা ২৫ পয়সা।

মিউচ্যুয়াল ফান্ড: তালিকার শীর্ষে থাকা আইসিবি ফার্স্ট মিউচ্যুয়াল ফান্ডের ইপিএস ৭৫ টাকা ৬৩ পয়সা। এর পর রয়েছে সেকেন্ড আইসিবি মিউচ্যুয়াল ফান্ড। এর ইপিএস ৪৪ টাকা ১০ পয়সা। ফোর্থ আইসিবি মিউচ্যুয়াল ফান্ডের ইপিএস ২৯ টাকা ২৪ পয়সা, থার্ড আইসিবি মিউচ্যুয়াল ফান্ডের ২৬ টাকা ১৬ পয়সা। আর ফিপথ আইসিবি মিউচ্যুয়াল ফান্ডের ইপিএস ২৩ টাকা ৪৫ পয়সা।

 

জিইউ

এই বিভাগের আরো সংবাদ