বাংলাদেশের পরিস্থিতিতে ত্রিপুরা সীমান্তে নিরাপত্তা জোরদারের প্রস্তুতি

Brahmanbaeia

Brahmanbariaবাংলাদেশের চলমান রাজনৈতিক উত্তপ্ত পরিস্থিতিতে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার সীমান্তবর্তী ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যের সীমান্তে অতিরিক্ত নিরাপত্তা প্রস্তুতি নিচ্ছে সেদেশের সরকার। অশান্ত বাংলাদেশের উত্তাপ ভারতের সীমান্ত অঞ্চলে পড়ার আশঙ্কায় ত্রিপুরা রাজ্যের সমগ্র দক্ষিণ জেলার সীমান্ত গ্রামগুলোকে নিরাপত্তার চাদরে মুড়ে দেবার প্রস্তুতি নিয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার ত্রিপুরা থেকে প্রকাশিত দৈনিক সংবাদ পত্রিকায় ‘বাংলাদেশে অশান্তির জেরে সীমান্তে জোর নিরাপত্তার প্রস্তুতি’ শিরোনামে প্রকাশিত সংবাদ থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

সংবাদে আরও জানা যায়, সামনের দিনগুলোতে বাংলাদেশ আরও অগ্নিগর্ভ হয়ে উঠবে এমন ধারণা সংশিষ্ট মহলের। তাই সীমান্তের নিরাপত্তা নিয়ে কোনো ঝুঁকি নিতে রাজি নন ভারত সরকার। দক্ষিণ ত্রিপুরা সীমান্তবর্তী বিওপি (বর্ডার অভজারভেশন পোষ্ট) গুলোর শক্তি বৃদ্ধি করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। বিএসএফ ইতোমধ্যে ২৪ ঘণ্টা নজরদারির ব্যবস্থা চালু রেখেছে। সমগ্র দক্ষিণ জেলার সীমান্ত অঞ্চলের উপর সতর্ক দৃষ্টি রাখছে তারা।  ঊর্ধ্বতন বিএসএফ কর্মকর্তারা নিয়মিত দক্ষিণের বিভিন্ন মহকুমা অঞ্চলে আসতে শুরু করেছে। সীমান্ত অঞ্চলে কর্মরত কেন্দ্রীয় গোয়েন্দারা তাদের নেটওয়ার্ক সম্প্রসারণ ঘটাতে বাড়তি উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। সীমান্ত এলাকার পরিস্থিতি সম্পর্কে নিয়মিত রিপোর্ট যাচ্ছে নয়াদিল্লীতে। বিএসএফ’র ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ দক্ষিণ জেলা শাসক, বিভিন্ন মহকুমা এসডিও, মহকুমা পুলিশ আধিকারীকের সঙ্গে সীমান্ত নিরাপত্তা নিয়ে একাধিকবার বৈঠক করেছে। সাব্রুম মহকুমা প্রশাসনের সামনে বাড়তি সমস্যা পার্বত্য চট্টগ্রাম সমস্যা। মৌলবাদি শক্তি পাবর্ত্য চট্টগ্রামে সক্রিয় হয়ে উঠায় সার্বিক এই সমস্যা নিয়ে চিন্তার ভাঁজ পড়েছে ভারতীয় শিবিরে।

এআর