ভারতের কোচ হচ্ছেন দ্রাবিড়

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের পরই ভারতের প্রধান কোচের দায়িত্ব ছাড়ছেন রবি শাস্ত্রী। এরপর থেকেই আলোচনা শুরু হয় কে হচ্ছেন বিরাট কোহলিদের পরবর্তী কোচ। সেই তালিকায় সবার উপরে ছিলেন রাহুল দ্রাবিড়। যদিও কদিন আগে ভারতের কোচ হওয়ার প্রস্তাব নাকোচ করে দিয়েছিলেন ভারতের সাবেক এই ব্যাটসম্যান। তবে মত পাল্টে রোহিত শর্মা-কোহলিদের কোচ হওয়ার প্রস্তাবে রাজি হয়েছেন দ্রাবিড়।

২০১৬ সালে অনিল কুম্বলে ভারতের কোচ হলেও বোর্ডের প্রথম পছন্দ ছিলেন দ্রাবিড়। কিন্তু সেবার প্রস্তাব ফিরিয়ে দিয়েছিলেন তিনি। পরের বছর কুম্বলে দায়িত্ব ছাড়লে আবারও দ্রাবিড়কে ডাকে বোর্ড অব কন্ট্রোল ফর ক্রিকেট ইন ইন্ডিয়া (বিসিসিআই)। সেবারও অভিন্ন পথে হেঁটেছিলেন দ্রাবিড়।

বছর চারেক পর আবারও যখন ভারতের প্রধান কোচ হওয়ার সুযোগ আসে তখন পরিবারের সদস্যদের সময় দিতে দীর্ঘ সময়ের জন্য প্রস্তাব ফিরিয়ে দেন। যদিও তরুণ ও উঠতি ক্রিকেটারদের নিয়ে কাজ করা উপভোগ করেন বলে আপাতত প্রধান কোচের দায়িত্ব নিতে অনাগ্রহী দ্রাবিড়। তবে বিষয়টি নিয়ে আইপিএলের ফাইনালের দিন দ্রাবিড়ের সঙ্গে আলোচনায় বসেন বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট সৌরভ গাঙ্গুলি ও সচিব জয় শাহ। সেই আলোচনায় দ্রাবিড়কে রাজি করিয়ে ফেলেন তারা।

এ প্রসঙ্গে বিসিসিআইয়ের এক সূত্র বলেন, ‘হ্যাঁ, রাহুল ২০২৩ বিশ্বকাপ পর্যন্ত ভারত দলের কোচ হতে রাজি হয়েছে। প্রাথমিকভাবে সে অনিচ্ছুক ছিল। কিন্তু আইপিএল ফাইনালের দিন দ্রাবিড়ের সঙ্গে আলোচনায় বসেছিল বিসিসিআই সভাপতি সৌরভ গাঙ্গুলি ও সচিব জয় শাহ। সেই আলোচনায় তারা দ্রাবিড়কে রাজি করাতে সমর্থ হয়েছে। দ্রাবিড় অন্তর্বর্তীকালীন কোচ হচ্ছে না।’

রোহিত শর্মা, বিরাট কোহলি, মোহাম্মদ শামি, ইশান্ত শর্মাদের বয়স বাড়ছে। খুব বেশি হলে আগামী কয়েক বছরের মধ্যেই ক্রিকেট থেকে অবসরে যাবেন তারা। তাই তাদের শূন্যস্থান পূরণে অনুর্ধ্ব-১৯ দলের ক্রিকেটারদের পাইপলাইনে রেখেছে বিসিসিআই। এদিকে বিগত ছয় বছর ধরে ভারত অনুর্ধ্ব-১৯ দলকে কোচিং করিয়ে আসছেন দ্রাবিড়।

তার হাত ধরে উঠে এসেছেন ঋষভ পান্ত, ইয়াশভি জয়শওয়াল, কার্তিক তিয়াগি, রবি বিষ্ণইদের মতো তরুণ ক্রিকেটাররা। ভারত জাতীয় দলের ভবিষ্যৎ হিসেবে বিবেচনা করা হয় এ সমস্ত ক্রিকেটারদের। অনুর্ধ্ব-১৯ দলের হয়ে খেলায় দ্রাবিড়ের সঙ্গে তাদের সখ্যতা দারুণ। সে কারণে দ্রাবিড়কে ভারতের কোচ হিসেবে অপরিহার্য হয়ে উঠেছে বলে জানিয়েছেন বিসিসিআইয়ের সেই কর্মকর্তা।

তিনি বলেন, ‘আগামী বছর রোহিতের বয়স ৩৫ বছর হবে, বিরাট কোহলি ৩৩ এ পা দিতে চলেছে। এদিকে মোহাম্মদ শামি, ইশান্ত শর্মা, চেতেশ্বর পূজারা ও আজিঙ্কা রাহানেরা সবাই দুর্দান্ত খেলোয়াড়। কিন্তু পরবর্তী দুই বছরে পর্যায়ক্রমে তারা দল থেকে সরে যেতে শুরু করবে। পরবর্তীতে যারা আসবে তাদের বেশিরভাগই অনুর্ধ্ব-১৯ দলের ক্রিকেটার। সে কারণে দ্রাবিড়কে নিয়োগ দেয়া অপরিহার্য হয়ে উঠেছে।’

 

অর্থসূচক/এএইচআর

 

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •   
  •  

Leave a Reply