বাসচাপায় প্রাণ গেলো ৩ বন্ধুর

সুনামগঞ্জের শান্তিগঞ্জ উপজেলায় বাসচাপায় মোটরসাইকেল আরোহী তিন বন্ধু নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও তিন জন।

বুধবার (১৩ অক্টোবর) দিবাগত রাতে উপজেলার পূর্ব পাগলা ইউনিয়নের সুনামগঞ্জ-সিলেট সড়কের দামোদরতপী এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেন- জাউয়াবাজার ইউনিয়নের কৈতক গ্রামের জালাল উদ্দিনের ছেলে হৃদয় হোসেন (২০), আঙ্গুর মিয়ার ছেলে লায়েক আহমদ (২০) এবং সাদিকুর রহমানের ছেলে জামিল মিয়া (২০)।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, সুনামগঞ্জ থেকে ময়মনসিংহগামী আরএমপি পরিবহনের একটি যাত্রীবাহী বাস বিপরীত থেকে আসা একটি মোটরসাইকেলকে চাপা দেয়। এ সময় মোটরসাইকেলটি বাসের নিচে ঢুকে যায়, আর তাতে আরোহী তিন তরুণ ছিটকে পড়ে থাকেন সড়কে। বাম্পারে আটকে গেলে মোটরবাইকটিকে প্রায় এক কিলোমিটার টেনে নিয়ে যায় ওই বাস।

এদিকে, ছাতকের গৌবিন্দগঞ্জ এলাকায় বাসচালক দুলাল মিয়াকে আটক করে পিটুনি দিয়ে পুলিশের হাতে তুলে দেয় এলাকাবাসী। প্রত্যক্ষদর্শী দামোদরতপী গ্রামের বাসিন্দা এনামুল হক বলেন, বিকট শব্দ শুনে বাড়ি থেকে বের হয়ে সড়কে এসে দেখি মোটরসাইকেল চাপা দিয়ে যাত্রীবাহী বাস দ্রুতগতিতে পালিয়ে যাচ্ছে। তিনজনের লাশ সড়কে পড়ে আছে। বাসের বাম্পারে মোটরসাইকেলটি আটকে আছে। পরে স্থানীদের দেওয়া খবরে পুলিশ ওই তিন তরুণের লাশ উদ্ধার করে সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠায়।

জয়কলস হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির ওসি মোহাম্মদ সালেহ আহমদ বলেন, দুটি মোটরসাইকেলে ছয় যুবক কৈতক এলাকা থেকে সুনামগঞ্জে যাচ্ছিলেন। পথে বাসের ধাক্কায় এক মোটরসাইকেলের তিন আরোহী নিহত হন। অন্য মোটরসাইকেলের তিন আরোহীও আহত হন।

 

অর্থসূচক/এএইচআর