উন্নত বাংলাদেশ গড়তে প্রয়োজন প্রযুক্তি খাতের বিকাশ: ওয়ালটন এমডি

বাংলাদেশের টেক জায়ান্ট খ্যাত ওয়ালটন হাই-টেক ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক গোলাম মুর্শেদ বলেছেন, বর্তমান সরকারের লক্ষ্য ২০৪১ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে উন্নত দেশে পরিণত করা। সেই লক্ষ্য অর্জনে গবেষণা ও উন্নয়ন খাতের পাশাপাশি প্রয়োজন ইলেকট্রনিক্স ও প্রযুক্তি শিল্পখাতের বিকাশ। আর এ খাতে ওয়ালটন বাংলাদেশের শীর্ষ ব্র্যান্ড, ইলেকট্রনিক্স জায়ান্ট। বিশ্বের ৪০টিরও বেশি দেশে ওয়ালটন পণ্য রফতানি হচ্ছে। বর্তমান সরকারের দেওয়া অবকাঠামোগত সুবিধা ও নীতিগত সহায়তা কাজে লাগিয়ে ওয়ালটন এখন গ্লোবাল ব্র্যান্ড।

সোমবার (২০ সেপ্টেম্বর) সুইজারল্যান্ডের জুরিখ শহরের দি ডলডার গ্রান্ড হোটেলের বলরুমে অনুষ্ঠিত রোড শো’র প্রথম দিনের সমাপনী অধিবেশনে ধন্যবাদ জ্ঞাপনকালে গোলাম মুর্শেদ এসব কথা বলেন।

বাংলাদেশের পুঁজিবাজারে বিদেশি বিনিয়োগ বাড়ানোর উদ্দেশ্যে ‘ইনভেস্টর সামিট: বাংলাদেশ ক্যাপিটাল মার্কেটস’ শীর্ষক ওই রোড শো’র আয়োজন করে বাংলাদেশ স্টক এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)।

রোড শো’তে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী, বিএসইসি চেয়ারম্যান অধ্যাপক শিবলী রুবাইয়াত-উল-ইসলাম, বাংলাদেশে নিযুক্ত সুইজারল্যান্ডের রাষ্ট্রদূত নাথালি চুয়ার্ড, অর্থ বিভাগের সিনিয়র সেক্রেটারি আব্দুর রউফ তালুকদার, আইসিটি বিভাগের সিনিয়র সেক্রেটারি এন এম জিয়াউল আলম, বেপজার এক্সিকিউটিভ চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল মো. নজরুল ইসলাম, বিএসইসি কমিশনার ড. শেখ শামসুদ্দিন আহম্মেদ, চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের চেয়ারম্যান আসিফ ইবরাহিম প্রমুখ।

গোলাম মুর্শেদ আরো বলেন, সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান শিল্পোসমৃদ্ধ এবং অর্থনৈতিকভাবে উন্নত এক সোনার বাংলাদেশের স্বপ্ন দেখেছিলেন। তার সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিরলস শ্রম, দূরদৃষ্টি, প্রজ্ঞা ও মেধায় বঙ্গবন্ধুর সেই স্বপ্নকে বাস্তবে রূপ দিচ্ছেন। জিডিপি বৃদ্ধি, দারিদ্র দূরীকরণ, জীবনমান উন্নয়ণ, শিক্ষার হার বৃদ্ধি, নারীর ক্ষমতায়ণ, বৈদেশিক মুদ্রার যোগান বৃদ্ধি, স্থিতিশীল পুঁজিবাজার, রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা, অবকাঠামো ও নীতিগত উন্নয়নসহ অসংখ্য ক্ষেত্রে বাংলাদেশ দারুণ সফলতা দেখাচ্ছে। অফুরন্ত সম্ভাবনার বাংলাদেশে সবাইকে আমন্ত্রণ।

উল্লেখ্য, বাংলাদেশের পুঁজিবাজারের বর্তমান পরিস্থিতি, বিনিয়োগ সুযোগ-সুবিধা এবং উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ডের চিত্র তুলে ধরে দেশি-বিদেশি বিনিয়োগ আকৃষ্ট করতে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ‘দি রাইজ অব বেঙ্গল টাইগার: পটেনশিয়ালস অব ট্রেড অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট ইন বাংলাদেশ’ শীর্ষক রোড শো করছে বিএসইসি। এর আগে দুবাই এবং যুক্তরাষ্ট্রের চারটি শহরে রোড শো হয়েছে। সুইজারল্যান্ডের পর পর্যায়ক্রমে লন্ডন, রাশিয়াসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশেও বিএসইসির রোড শো হবে। যুক্তরাষ্ট্র ও সুইজারল্যান্ড রোড শো’র অন্যতম সহযোগি ওয়ালটন। সুইজারল্যান্ড রোড শো’র দ্বিতীয় ও শেষ পর্ব ২২ সেপ্টেম্বর জেনেভায় অনুষ্ঠিত হবে।

রোড শোতে ওয়ালটনের নিজস্ব অত্যাধুনিক কারখানায় বিভিন্ন পণ্যের উৎপাদন প্রক্রিয়া নিয়ে একটি বিশেষ ভিডিও ডকুমেন্টারি দেখানো হয়।

অর্থসূচক/কেএসআর

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •   
  •