বলিউডে জয়া আহসান, বিপরীতে নওয়াজউদ্দিন সিদ্দিকী

বাংলাদেশের সিনেমাপ্রেমীদের জন্য বড় খুশির সংবাদ। জনপ্রিয় অভিনেত্রী জয়া আহসানের অভিষেক হতে যাচ্ছে বলিউডে। আরও বড় চমকপ্রদ খবর হলো, খ্যাতিমান অভিনেতা নওয়াজউদ্দিন সিদ্দিকীর বিপরীতে অভিনয়ের মধ্য দিয়ে মুম্বাই ইন্ডাস্ট্রিতে পা রাখতে যাচ্ছেন জয়া। ভারতের আনন্দবাজার পত্রিকা খবরটি নিশ্চিত করেছে।

জানা গেছে, নির্মাতা সায়ন্তন মুখার্জির একটি হিন্দি ওয়েব সিরিজে জুটিবদ্ধ হচ্ছেন জয়া ও নওয়াজউদ্দিন। আগামী বছরের দুর্গাপুজার আগেই সিরিজটির কাজ সারতে চান নির্মাতা। এটি নির্মিত হবে ১৯৬৭ সালের নকশালবাড়ি আন্দোলন ঘিরে। তৎকালীন বিতর্কিত পুলিশ অফিসার রুণু গুহ নিয়োগীর লেখা ‘সাদা আমি কালো আমি’ উপন্যাস অবলম্বনে বাংলা, হিন্দি, ইংরেজি তিনটি ভাষায় তৈরি হতে চলেছে এই সিরিজ। সায়ন্তনের কথায়, ‘এখানে চারু মজুমদার হবেন নওয়াজ। জয়া হবেন তার স্ত্রী লীলা মজুমদার।’

জানা গেছে, বিতর্কিত পুলিশ অফিসারের চোখ দিয়েই দেখানো হবে গোটা সিরিজ। রুণু গুহ নিয়োগীর চরিত্রে দেখা যাবে রণিত রায়কে। এ ছাড়াও প্রাথমিক কথা হয়েছে সব্যসাচী চক্রবর্তীর সঙ্গে। তাকে সম্ভবত দেখা যাবে তৎকালীন মুখ্যমন্ত্রী প্রয়াত সিদ্ধার্থ শঙ্কর রায়ের ভূমিকায়। শাশ্বত চট্টোপাধ্যায়কে ভাবা হয়েছে চারু মজুদারের অন্যতম সঙ্গী কানু সান্যালের চরিত্রে। এ ছাড়া, জ্যোতি বসুর চরিত্রের জন্য প্রাথমিক ভাবে বাছা হয়েছে দুই বলিউড অভিনেতার নাম। তারা পরেশ রাওয়াল এবং বোমান ইরানি।

সায়ন্তনের ভাষ্য, ‘শারীরিক সাদৃশ্য মেনে আমাদের প্রথম পছন্দ পরেশজি। বাকিটা ক্রমশ প্রকাশ্য।’

চলতি বছরের দুর্গাপুজার পরে আরও একঝাঁক তারকার নাম সামনে আনবে সায়ন্তন-অরিন্দম চট্টোপাধ্যায়ের প্রযোজনা সংস্থা সিনেক্স। কলকাতার পাশাপাশি মুম্বাই, কেরালা, অন্ধ্রপ্রদেশ, চীন ও রাশিয়াতে সিরিজটির চিত্রায়ন হবে।

ব্যাপক আয়োজনে নির্মিত হবে এই ওয়েব সিরিজ। সায়ন্তন বলেন, “মুম্বাইয়ের পটভূমিকায় যদি ‘সেক্রেড গেমস’ বা উত্তরপ্রদেশকে নিয়ে ‘মির্জাপুর’ সিরিজ তৈরি হতে পারে, তাহলে বাংলাই বা পিছিয়ে থাকবে কেন? পশ্চিমবঙ্গের আন্দোলনের ইতিহাসও তুলে ধরার সময় এসেছে। সেই জায়গা থেকেই আমার এই উপন্যাস নির্বাচন।’’

অর্থসূচক/