‘ক্ষুদ্রঋণের ওপর আয়কর প্রস্তাব বাতিলের দাবি’

0
93
ক্ষুদ্রঋণের ওপর আয়কর ধার্যের প্রস্তাবের উদ্বেগ প্রকাশ ও বাতিলেরা দাবিতে আয়োজিত সংবাদ সম্মলনে বক্তব্য রাখছেন বক্তারা
ক্ষুদ্রঋণের ওপর আয়কর ধার্যের প্রস্তাবের উদ্বেগ প্রকাশ ও বাতিলেরা দাবিতে আয়োজিত সংবাদ সম্মলনে বক্তব্য রাখছেন বক্তারা
ক্ষুদ্রঋণের ওপর আয়কর ধার্যের প্রস্তাবের উদ্বেগ প্রকাশ ও বাতিলেরা দাবিতে আয়োজিত সংবাদ সম্মলনে বক্তব্য রাখছেন বক্তারা
ক্ষুদ্রঋণের ওপর আয়কর ধার্যের প্রস্তাবের উদ্বেগ প্রকাশ ও বাতিলেরা দাবিতে আয়োজিত সংবাদ সম্মলনে বক্তব্য রাখছেন বক্তারা

ক্ষুদ্র ঋণের আয়ের ওপর সম্ভাব্য আয়কর ধার্যের প্রস্তাবনা বাতিলের দাবি জানিয়েছে এ খাত সংশ্লিষ্ট তিনটি বেসরকারি সংগঠন। রোববার বিকেলে জাতীয় প্রেসক্লাবে ক্ষুদ্র ঋণের ওপর আয়কর ধার্যের প্রস্তাবনায় উদ্বেগ প্রকাশ এবং বাতিলের দাবিতে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে সংগঠন তিনটির নেতারা এ দাবি জানান ।

ক্রেডিট এন্ড ডেভোলপমেন্ট ফোরাম (সিডিএফ), ফেডারেশন অব এনজিও ইন বাংলাদেশ (এফএনবি) ও ইন্টারন্যাশনাল নেটওয়ার্ক অব অল্টারনেটিভ ফিনানশিয়াল ইনস্টিটিউশন (ইনাফি) সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে।

সংগঠন তিনটির নেতারা বলেন, ক্ষুদ্রঋণ প্রতিষ্ঠানের ওপর আয়কর ধার্য করা হলে সরাসরি ক্ষতিগ্রস্ত হবে ক্ষুদ্রঋণ গ্রহীতারা। এ জন্য ঋণ গ্রহীতাদের উচ্চ মূল্য দিতে হবে। এর ফলে অতি দরিদ্র জনগোষ্ঠী ক্ষুদ্রঋণ কর্মসূচী থেকে ছিটকে পড়ার সম্ভাবনা সৃষ্টি হবে।

সিডিএফ’র চেয়ারম্যান মোশাররফ হোসেন বলেন, ক্ষুদ্রঋণের আয়ের ওপর করা আরোপ হলে তা হবে সরকারের দারিদ্র নিরসন নীতিমালার সাথে সাংঘর্ষিক। সরকার ক্ষুদ্রঋণের আয়ের উপর ১০ শতাংশ করারোপ করলে ক্ষুদ্র ঋণ খাত তহবিল সংকটে পড়বে। এর ফলে দারিদ্র বিমোচন খাতে ঋণ প্রবাহ কমে যাবে এবং ক্ষুদ্রঋণের স্থায়ীত্ব হুমকীর মুখে পড়বে। ফলে বাধাগ্রস্থ হবে দেশের উন্নয়ন কর্মসূচী ।

তিনি আরো বলেন, ক্ষুদ্রঋণ প্রতিষ্ঠানসমূহ অগ্রাধিকার মূলক দারিদ্র বিমোচনে গৃহীত সামাজিক কর্মকাণ্ড বিশেষ করে স্বাস্থ্য, শিক্ষা ও খাদ্য নিরাপত্তার জন্য কৃষি ঋণ কার্যক্রম সংকুচিত হয়ে পড়বে।

প্রাকৃতিক দূর্যোগে ক্ষুদ্র ঋণ খাত সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত হয় উল্লেখ করে তিনি বলেন, প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবেলায় এ খাতের উদ্বৃত্ত আয় দূর্যোগকালীন সময়ে এবং পরবর্তী সময়ে দরিদ্র জনগোষ্ঠীর আর্থিক ও সামাজিক পুর্নবাসন কাজে ব্যবহার করা হয়।  এছাড়া ক্ষতিগ্রস্ত ঋণ গ্রহীতাদের সমন্বয় করা দুরূহ হবে।

তিনি আরও বলেন, ক্ষুদ্রঋণের ওপর ১০ শতাংশ রাজস্ব আহরণ ক্ষুদ্র ঋণের উপর ধার্যকৃত কর কোন বড় ভূমিকা রাখবে না বরং ক্ষুদ্র ঋণ খাতের উপর সরাসরি নেতিবাচক আঘাত আনবে। আর তা হবে সরকারের দারিদ্র বিমোচন নীতিমালার সাথে সম্পূর্ণ সাংঘর্ষিক।

সংবাদ সম্মেলনে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, সিডিএফ’র নির্বাহী পরিচালক মো. আ. আউয়াল, এফএনবি’র পরিচালক মো. তাজুল ইসলাম, ইনাফী’র নির্বাহী পরিচালক মো. আতিক উন নবী, মো. ফয়েজুর রহমান, মো. এমরানুল হক, মো. এনামুল হক প্রমুখ।

জেইউ/