পাঞ্জশিরে যুদ্ধ থামানোর আহ্বান মাসুদের, প্রত্যাখ্যান তালেবানের

আফগানিস্তানের পাঞ্জশিরে যুদ্ধ থামানোর আহ্বান জানিয়েছেন অঞ্চলটিতে তালেবানবিরোধী প্রতিরোধ আন্দোলনের নেতা আহমেদ শাহ মাসুদ। ন্যাশনাল রেসিস্ট্যান্স ফ্রন্ট অব আফগানিস্তান (এনআরএফএ)-এর প্রধানের দায়িত্ব পালন করছেন তালেবানবিরোধী এই রাজনীতিক।

রোববার (৫ সেপ্টেম্বর) এক ফেসবুক পোস্টে এই আহ্বান জানিয়েছেন তিনি। ফেসবুকে দেওয়া পোস্টে আহমেদ শাহ মাসুদ বলেন, এনআরএফ নীতিগতভাবে বর্তমান সমস্যার সমাধানকল্পে এবং অবিলম্বে যুদ্ধের অবসান ঘটাতে আলোচনা চালিয়ে যেতে রাজি আছে। দীর্ঘমেয়াদে শান্তির জন্য এনআরএফ যুদ্ধ বন্ধ করতে প্রস্তুত। তবে এর জন্য শর্ত হচ্ছে, তালেবান পাঞ্জশির ও আন্দরাবের ওপর তাদের হামলা এবং এ অঞ্চলে তাদের সামরিক কর্মকাণ্ড বন্ধ করবে। আলোচনার মাধ্যমে বিদ্যমান সংঘাত নিরসনের আলেমদের প্রস্তাবকেও স্বাগত জানিয়েছেন তিনি।

আফগানিস্তানের সংবাদমাধ্যমগুলো জানিয়েছে, দেশটির ধর্মীয় নেতারা পাঞ্জশির ইস্যুতে একটি মীমাংসায় পৌঁছাতে তালেবান বাহিনীকে এই প্রস্তাব মেনে নেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন।

এদিকে এনআরএফ নেতা আহমেদ মাসুদের আলোচনার প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করেছে তালেবান। তালেবানের রাজনৈতিক দপ্তরের মুখপাত্র মোহাম্মাদ নাঈম ওই প্রস্তাব নাকচ করে দিয়ে বলেন, আহমাদ মাসুদ আমাদের শান্তির প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করার পর এখন আর আলোচনায় বসার কোনো সুযোগ নেই।

অভিযান শুরুর আগেই তালেবান বাহিনীকে বৈঠকে বসার আহ্বান জানিয়েছিল এনআরএফ, কয়েকবার তার উদ্যোগও নেওয়া হয়েছিল, কিন্তু শেষ পর্যন্ত আর কোনো বৈঠক হয়নি। তালেবান এবং এনআরএফ অবশ্য এই ব্যর্থতার জন্য একে অপরকে দায়ী করে আসছে।

এর আগে রোববার সন্ধ্যায় তালেবান জানায়, তাদের যোদ্ধারা পাঞ্জশির রাজধানীর পথে অগ্রসর হয়েছেন। তালেবানের মুখপাত্র বেলাল কারিমী এক টুইট বার্তায় বলেন, তালেবান যোদ্ধারা পাঞ্জশির রাজধানী বাজারাক সংলগ্ন রুখাহ জেলা কেন্দ্র দখল করে নিয়েছে। ব্যাপক সংখ্যক বিদ্রোহী যোদ্ধা হতাহত হয়েছে। অনেক সংখ্যক কারাবন্দীকে মুক্ত করা হয়েছে এবং সামরিক যান দখল করা হয়েছে।

পাঞ্জশিরে তালেবানের বিরুদ্ধে দেশটির প্রতিরোধ যোদ্ধাদের পরিচিত মুখ ফাহিম দাস্তি নিহত হয়েছে। তিনি আহমেদ মাসুদের নেতৃত্বাধীন এনআরএফ-এর মুখপাত্রের দায়িত্ব পালন করছিলেন। এনআরএফ-এর ফেসবুক পেজে দেওয়া এক পোস্টে ফাহিম দাস্তির নিহত হওয়ার খবর নিশ্চিত করে বলা হয়েছে, রেসিস্ট্যান্স ফ্রন্ট তার দুই প্রিয় ভাই এবং সহকর্মী ও যোদ্ধাকে হারিয়েছে। তারা হচ্ছে আহমেদ শাহ মাসুদের দফতরের প্রধান ফাহিম দাস্তি এবং জেনারেল সাহেব আবদুল ওয়াদুদ জোহর। ফাহিম ছিলেন আহমদ শাহ মাসুদের অন্যতম সহচর। তার রাজনৈতিক জীবন শুরু হয়েছিল আফগানিস্তানে তালেবানবিরোধীর প্রধান রাজনৈতিক জোট নর্দার্ন অ্যালায়েন্সের সাবেক নেতা আহমদ শাহ মাসুদের মাধ্যমে।

২০০১ সালের ৯ সেপ্টেম্বর গুপ্তহত্যার শিকার হন আহমদ শাহ মাসুদ। তার ছেলে আহমাদ মাসুদ বর্তমানে এনআরএফের নেতৃত্ব দিচ্ছেন। আফগানিস্তানের ৩৪ টি প্রদেশের মধ্যে ৩৩ টির দখল নেওয়ার পর গত ১৫ আগস্ট কাবুলে প্রবেশ করতে সক্ষম হয় তালেবান বাহিনী। একমাত্র যে প্রদেশটি তালেবান দখলের বাইরে ছিল- তার নাম পাঞ্জশির। আফগানিস্তানের উত্তরপূর্বাঞ্চলীয় এলাকার ক্ষুদ্র এই পার্বত্য প্রদেশটির দখল নিতে গত প্রায় এক সপ্তাহ আগে পাঞ্জশিরে সামরিক অভিযান শুরু করে তালেবান বাহিনী।

পাঞ্জশির বরাবরই তার স্বাধীনচেতা মনোভাবের জন্য বিখ্যাত। আশির দশকে আফগানিস্তানে যখন সোভিয়েত আগ্রাসন শুরু হয়, সেসময় যেমন পাঞ্জশিরকে দখলে আনা যায়নি, তেমনি ১৯৯৬ সালে যখন তালেবান প্রথম দফায় আফগানিস্তানে সরকার গঠন করল- তখনও অপরাজিত ছিল পাঞ্জশির।

 

অর্থসূচক/এএইচআর