‘সোহেলের দেশত্যাগে কারও গাফিলতি আছে কি-না খতিয়ে দেখা হচ্ছে’

ই-অরেঞ্জের কথিত পৃষ্ঠপোষক বনানী থানার পরিদর্শক (তদন্ত) সোহেল রানার দেশত্যাগে কারও গাফিলতি আছে কি-না তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) ড. বেনজীর আহমেদ।

রোববার (৫ সেপ্টেম্বর) বিকেলে পুলিশ সদরদপ্তরে বাংলাদেশ পুলিশের সব সদস্যদের পদমর্যাদাভিত্তিক প্রশিক্ষণ কর্মসূচির উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ বলেন।

বেনজীর আহমেদ বলেন, পরিদর্শক সোহেল রানা কিভাবে দেশত্যাগ করলো, তার দেশত্যাগে কারও গাফিলতি ছিল কি-না সেসব বিষয়ে আজ সকালে ডিএমপি কমিশনারের সঙ্গে কথা বলেছি। এসব বিষয় খতিতে দেখা হচ্ছে।

পরিদর্শক সোহেল রানাকে দেশে ফিরিয়ে আনার বিষয়ে আইজিপি বলেন, ভারতের সঙ্গে আমাদের বন্দি বিনিময় চুক্তি রয়েছে। তাই সোহেল রানাকে ফিরিয়ে আনা সমস্যা হবে না। যেহেতু সোহেল ভারতে একটি মামলার আসামি সেই প্রক্রিয়া শেষ হলে অবশ্যই বাংলাদেশে ফিরিয়ে আনা হবে। আর প্রক্রিয়া দেখে এটি স্পষ্ট যে সে অবৈধভাবে দেশ ত্যাগ করেছে।

এর আগে, দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি) কমিশনার মোহা. শফিকুল ইসলাম বলেন, বনানী থানার পরিদর্শক (তদন্ত) সোহেল রানাকে দেশে ফিরেয়ে আনা হবে।

তিনি বলেন, যেহেতু ভারতে মামলা হয়েছে, এ কারণে তাকে ফিরিয়ে আনা যাবে কি-না সেটি নিশ্চিত নয়। তবে ফিরিয়ে আনার রাস্তা রয়েছে। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে বিএসএফকে চিঠি দিয়ে ফিরিয়ে আনা সম্ভব। এটি অনেক সময় করা হয়। আমরা চেষ্টা করছি, ফিরিয়ে আনার জন্য। যদি এ মাধ্যমে ফিরিয়ে আনা সম্ভব না হয়, তাহলে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে তাকে ফেরত আনার চেষ্টা করা হবে।

ডিএমপি কমিশনার আরও বলেন, তার (পরিদর্শক সোহেল রানা) বিষয়ে গুলশান বিভাগ পুলিশ তদন্ত শুরু করছে। প্রতিবেদন পেলে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

অর্থসূচক/এমএস