রাজশাহী মেডিকেলে মৃত্যু আরও ৯

গত ২৪ ঘণ্টায় রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালের করোনা আইসোলেশন ইউনিটে আরও ৯ জন মারা গেছেন। এদের মধ্যে করোনায় পাঁচজন, করোনা উপসর্গে তিনজন এবং করোনা নেগেটিভ হয়েও একজন মারা গেছেন।

বৃহস্পতিবার (১৯ আগস্ট) সকালে রামেক হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল শামীম ইয়াজদানী এ তথ্য নিশ্চিত করে জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা সংক্রমণে পাবনার তিনজন, রাজশাহীর একজন এবং নাটোরের একজন প্রাণ হারিয়েছেন। করোনা সংক্রমণের উপসর্গ নিয়ে মারা গেছেন পাবনার দুইজন এবং রাজশাহী একজন। এ ছাড়া করোনা নেগেটিভ হয়েও অন্যান্য শারীরিক জটিলতায় নওগাঁর একজন মারা গেছেন। স্বাস্থ্যবিধি মেনে তাদের মরদেহ দাফনের পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

গত ২৪ ঘণ্টায় সর্বোচ্চ পাঁচজন মারা গেছেন হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ)। এ ছাড়া ১৫ নম্বর ওয়ার্ডে দুইজন এবং ১৭ ও ২৯/৩০ নম্বর ওয়ার্ডে একজন করে মারা গেছেন। এই একদিনে পাঁচজন পুরুষ এবং চারজন নারী প্রাণ হারিয়েছেন করোনা ইউনিটে। যাদের চারজনের বয়স ৬১ বছরের ওপরে। এ ছাড়া ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে তিনজন, ৪১ থেকে ৫০ বছর বয়সী একজন এবং ১১ থেকে ২০ বছর বয়সী একজন মারা গেছেন।

রামেক হাসপাতালের পরিচালক আরও জানান, বৃহস্পতিবার সকাল ৯টা পর্যন্ত ৫১৩ শয্যার রামেক হাসপাতালের করোনা আইসোলেশন ইউনিটে রোগী ভর্তি ছিলেন ২৫৪ জন। একদিন আগেও এই সংখ্যা ছিল ২৬১। বর্তমানে রাজশাহীর ১২২ জন, চাঁপাইনবাবগঞ্জের ৩২, নাটোরের ৩৮, নওগাঁর ১৭, পাবনার ৩০, কুষ্টিয়ার ৮, জয়পুরহাটের ৩, মেহেরপুরের ২, বগুড়ার এবং টাঙ্গাইলের একজন করে হাসপাতালে করোনা নিয়ে ভর্তি রয়েছেন। করোনা উপসর্গ নিয়ে ভর্তি রয়েছেন ৭৪ জন। করোনা ধরা পড়েনি এমন রোগী ভর্তি রয়েছেন ৪০ জন। এ ছাড়া গত ২৪ ঘণ্টায় ভর্তি হয়েছেন ৩০ জন। এই একদিনে হাসপাতাল ছেড়েছেন ২৮ জন।

এর আগে বুধবার (১৮ আগস্ট) রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতাল ল্যাবে ১৬৪ জনের নমুনা পরীক্ষা হয়েছে। এর মধ্যে করোনা ধরা পড়েছে ৪০ জনের। একই দিনে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ ল্যাবে নমুনা পরীক্ষা হয়েছে আরও ৭১৭ জনের। এর মধ্যে করোনা শনাক্ত হয়েছে ৮১ জনের। পরীক্ষার অনুপাতে রাজশাহীর ১৫ দশমিক ৩ শতাংশ, নাটোরের ১৩ দশমিক ৮৮ শতাংশ, নওগাঁর ৮ দশমিক ৮৬ শতাংশ, জয়পুরহাটের ১০ দশমিক ৯৪ শতাংশ এবং চাঁপাইনবাবগঞ্জের ১৩ দশমিক ৯৫ শতাংশ নমুনায় করোনা শনাক্ত হয়েছে।

প্রসঙ্গত, গত ১ আগস্ট থেকে ১৯ আগস্ট পর্যন্ত রামেক হাসপাতালের করোনা ইউনিটে মারা গেছেন ২৫৩ জন। এর মধ্যে করোনায় ১০৩ জন, করোনা সংক্রমণের উপসর্গ নিয়ে ১২১ জন এবং করোনা নেগেটিভ সত্ত্বেও অন্যান্য শারীরিক জটিলতায় ২৯ জনের মৃত্যু হয়।

 

অর্থসূচক/এএইচআর

 

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •   
  •