বিদায়ী অর্থবছরে এসেছে রেকর্ড রেমিট্যান্স

বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাস অতিমারি চলছে। ঝাঁকুনি লেগেছে প্রায় সব দেশের অর্থনীতিতে। এই বৈশ্বিক সঙ্কটের মধ্যেও দেশে বিপুল পরিমাণ অর্থ (Remittance) পাঠিয়েছেন আমাদের প্রবাসী রেমিট্যান্স যোদ্ধারা। এ কারণে বিদায়ী ২০২০-২১ অর্থবছরে প্রবাসী আয়ের নতুন রেকর্ড হয়েছে।

আলোচিত বছরে প্রবাসীরা ২০২০-২১ অর্থবছর শেষে ২ হাজার ৪৭৭ কোটি ৭৭ লাখ (২৪ দশমিক ৭৭ বিলিয়ন) মার্কিন ডলার রেমিট্যান্স পাঠিয়েছেন প্রবাসীরা। যা টাকার হিসাবে প্রায় দুই লাখ ১০ হাজার ৬১০ কোটি টাকা। এর আগের অর্থবছরে (২০১৯-২০২০) ১ হাজার ৮২০ কোটি ডলার বা ১৮ দশমিক ২ বিলিয়ন ডলার রেমিট্যান্স এসেছিল। আর তার আগের অর্থবছরে (২০১৮-২০১৯) রেমিট্যান্স এসেছিল ১ হাজার ৬৪২ কোটি ডলার।

বাংলাদেশ ব্যাংক সূত্রে এই তথ্য জানা গেছে।

বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রতিবেদন মতে, বিদায়ী ২০২০-২০২১ অর্থবছরের শেষ মাস জুনে ১৯৪ কোটি ডলার মার্কিন ডলার রেমিট্যান্স দেশে পাঠিয়েছেন প্রবাসীরা। যা পুরো অর্থবছরের মধ্যে সবচেয়ে বেশি দেশে আসা রেমিট্যান্স।

বিদায়ী অর্থবছরে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে কর্মরত বাংলাদেশি প্রবাসীরা বেসরকারি ৩৯টি বাণিজ্যিক ব্যাংকের মাধ্যমে রেমিট্যান্স পাঠিয়েছেন ১ হাজার ৮১৪ কোটি ৪০ লাখ ডলার। আর রাষ্ট্রায়ত্ত্ব ৬ ব্যাংকের মাধ্যমে এসেছে ৬১০ কোটি ৬২ লাখ ডলারের রেমিট্যান্স, বিশেষায়িত একটি ব্যাংকে এসেছে ৪১ কোটি ৩০ লাখ ডলার এবং ৮ বিদেশি ব্যাংকের মাধ্যমে এসেছে ১১ কোটি ৪৫ লাখ ডলারের রেমিট্যান্স।

২০২০-২০২১ অর্থবছরে একক ব্যাংক হিসাবে প্রতিবারের মতো এবারও সবচেয়ে বেশি রেমিট্যান্স এসেছে ইসলামী ব্যাংক থেকে। বেসরকারি খাতের এ ব্যাংকটি থেকে মোট ৭৪৫ কোটি ৭৬ লাখ ডলারের রেমিট্যান্স এসেছে। এর পরই রয়েছে সরকারি অগ্রণী ব্যাংক। রাষ্ট্রায়াত্ত্ব এ ব্যাংকটি থেকে ২৮২ কোটি ৩২ লাখ ডলারের রেমিট্যান্স এসেছে। ডাচ বাংলা ব্যাংকের মাধ্যমে এসেছে ২৪৯ কোটি ডলার। আর সোনালী ব্যাংকে এসেছে ১৫৩ কোটি ডলারের রেমিট্যান্স।

 

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •   
  •