উহানের ল্যাব থেকেই করোনা ছড়িয়েছে, ধারণা মার্কিন গবেষকদের

এক বছরেরও বেশি সময় ধরে করোনা মহামারিতে বিপর্যস্ত সারা বিশ্ব। কিন্তু কোথা থেকে এলো এই মারাত্মক ছোঁয়াচে জীবাণু; আর কিসের মাধ্যমেই বা এর উৎপত্তি, এ নিয়ে প্রশ্নের অন্ত নেই। চলছে তদন্তও। তবে সবার সন্দেহের আঙুলও যেন চীনের দিকেই। মার্কিন সরকারের রিপোর্টেও উঠে এসেছে একই তথ্য। বলা হয়েছে, চীনের উহানের গবেষণাগার থেকেই করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে থাকতে পারে।

সোমবার (০৭ জুন) প্রকাশিত দ্য ওয়াল স্ট্রিট জার্নালের এক প্রতিবেদনের বরাত দিয়ে বার্তা সংস্থা রয়টার্স আজ মঙ্গলবার (০৮ জুন) এই তথ্য জানিয়েছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ২০২০ সালের মে’তে ক্যালিফোর্নিয়ার লরেন্স লিভারমোর ন্যাশনাল ল্যাবরেটরি এই গবেষণা চালিয়েছে।

দ্য ওয়াল স্ট্রিট জার্নালের প্রতিবেদন মতে, মহামারির উৎপত্তি নিয়ে বিগত ট্রাম্প প্রশাসনের স্টেট ডিপার্টমেন্টের তদন্তে এই গবেষণার উদ্ধৃতি দেওয়া হয়েছিল।

এতে আরও বলা হয়েছে, লরেন্স লিভারমোর পর্যালোচনা কোভিড-১৯ ভাইরাসের জেনোমিক বিশ্লেষণ থেকে নেওয়া হয়েছে। তবে, গবেষণা সংস্থাটি ওয়াল স্ট্রিট জার্নালের প্রতিবেদনের ওপর কোনো মন্তব্য করতে রাজি হয়নি।

শুরু থেকেই করোনা ভাইরাসের উৎপত্তির জন্য চীনকে দায়ী করে আসছে যুক্তরাষ্ট্র। তবে, চীন সবসময় এই অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করেছে।

মার্কিন গোয়েন্দারা অবশ্য বলছেন, বিশ্বব্যাপী করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার পেছনে দু’টি কারণ থাকতে পারে। প্রথমত, দুর্ঘটনাবশত চীনের উহান ইনস্টিটিউট অব ভাইরোলজি (ডব্লিউআইভি) থেকে করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে থাকতে পারে। দ্বিতীয়ত, বাদুড়ের শরীর থেকে এই ভাইরাস মানুষের শরীরে ছড়িয়ে থাকতে পারে।

সম্প্রতি আরেকটি প্রতিবেদনে ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল জানায়, চীন করোনা মহামারির তথ্য প্রকাশ করার আগেই ২০১৯ সালের নভেম্বরে দেশটির উহান ইনস্টিটিউট অব ভাইরোলজির (ডব্লিউআইভি) তিন গবেষক হাসপাতলে চিকিৎসা নিয়েছিলেন। এ বিষয়ে ট্রাম্প প্রেসিডেন্ট থাকাকালীন যুক্তরাষ্ট্রের অপ্রকাশিত একটি গোয়েন্দা প্রতিবেদনের তথ্যও উল্লেখ করে পত্রিকাটি।

সূত্র: রয়টার্স।

অর্থসূচক/কেএসআর