ফের নেতৃত্বে ফিরতে আগ্রহী স্মিথ

মাইকেল ক্লার্কের অবসরের পর ২০১৫ সালে অস্ট্রেলিয়া দলের নেতৃত্বভার ওঠে স্টিভ স্মিথের কাঁধে। তবে ২০১৮ সালে কেপ টাউনে বল বিকৃতি কাণ্ডে জড়িয়ে নিষেধাজ্ঞায় পরতে হয় এই ক্রিকেটারকে। ১২ মাসের লম্বা নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে স্মিথ ক্রিকেটে ফিরেছেন বেশ আগে, তবে এখনো দলের নেতৃত্বে তাকে বিবেচনা করেনি ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া (সিএ)।

স্মিথ নিষেধাজ্ঞায় পড়লে টেস্ট ফরম্যাটে টিম পেইন এবং সীমিত ওভারের ক্রিকেটে অ্যারন ফিঞ্চকে অধিনায়ক করে সিএ। কিন্তু সাম্প্রতিক সময়টা বেশ খারাপ যাচ্ছে এই দুই অধিনায়কের জন্য। ভারতের কাছে ঘরের মাঠে আত্মসমর্পণ করেছে পেইনের দল। অন্যদিকে নিউজিল্যান্ডে ওয়ানডে সিরিজে খাবি খেয়েছে ফিঞ্চরা।

অধিনায়কত্ব নেয়ার প্রসঙ্গে স্মিথ বলেন, ‘আমি মনে করি, আমি এখন এমন এক পর্যায়ে পৌঁছেছি যেখানে সুযোগটা আবার আসলে আমি তা নিতে আগ্রহী। যদি এটা ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া চায় এবং এই মুহুর্তে যদি দলের জন্য এটাই ভালো হয় তাহলে এমন দায়িত্ব নেয়ার ব্যাপারে আমি উৎসাহিত।’

বর্তমান ক্রিকেট বিশ্বের অন্যতম এই সেরা ব্যাটসম্যান আরও বলেন, ‘নেতৃত্ব পাই বা না পাই আমাকে অবশ্যই কেপ টাউনের স্মৃতি নিয়ে বাঁচতে হবে। এটা সবসময়ই থাকবে। সময় এগিয়ে যেতে থাকবে এবং গত কয়েক বছরে আমি নিজের সম্পর্কে অনেককিছু শিখেছি এবং আরও অনেক বেশি পরিণত হয়েছি।’

অস্ট্রেলিয়া দলের অধিনায়কত্ব নেয়ার ব্যাপারে স্মিথের আগে নিজের আগ্রহ প্রকাশ করেছিলেন বর্তমানে সহ-অধিনায়কের দায়িত্বে থাকা প্যাট কামিন্স। তবে অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেটের সংস্কৃতি অনুযায়ী একজন পেসারের কাঁধে অধিনায়কত্ব তুলে দেয়ার সম্ভাবনা খুবই কম। সর্বশেষ ১৯৫৬ সালে এমন নজির দেখা গিয়েছিল। যখন অস্ট্রেলিয়াকে নেতৃত্ব দিয়েছিলেন পেস বোলার রে লিন্ডওয়াল।

অর্থসূচক/এএইচআর

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •   
  •