বাচ্চাদের করোনা আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা কমছে

সম্প্রতি ‘যামা নেটওয়ার্ক ওপেন’ এ প্রকাশিত একটি গবেষণায় দেখা গেছে, ১০ বছরের নিচের শিশুদের শরীরে কারোনার অ্যান্টিবডি বাকিদের থেকে অনেকটা বেশি মাত্রায় তৈরি হচ্ছে, যার ফলে ১০ বছরের নিচের শিশুদের করোনা সংক্রমণ কম হচ্ছে। সংক্রমণ হলেও তা সে ভাবে প্রভাব ফেলতে পারছে না।

কানাডীয় সংবাদ মাধ্যম সিটিভির বরাতে জানা যায়, ওয়েল কর্নেল মেডিসিন এর গবেষকরা নিউ ইয়র্কে ৩২ হাজার অ্যান্টিবডি পরীক্ষা করেছেন গত বছরের এপ্রিল থেকে আগস্ট পর্যন্ত। যাতে তারা এক হাজার ২০০ শিশু ও ৩০ হাজার প্রাপ্তবয়স্কদের মধ্যে ইনফেকশন দেখেছেন ১৭ শতাংশ ও ১৯ শতাংশ হারে।

এর পর যে ৮৫ জন শিশু ও তিন হাজার ৬৪৮ জন প্রাপ্তবয়স্ক করোনা আক্রান্ত হয়েছিলেন, তাদের উপরে পরীক্ষা করা হয়। তাদের শরীরে ইমিউনোগ্লোবিন জি (আইজিজি) অ্যান্টিবডির পরিমাণ দেখা হয়। এই অ্যান্টিবডিই শরীরে করোনার প্রভাব কমায়।

গবেষণায় দেখা যায়, ১০ বছরের কম বয়সী ৩২ জনের মধ্যে এই ইমিউনোগ্লোবিন জি (আইজিজি) পরিমাণ প্রাপ্তবয়স্কদের থেকে পাঁচগুণ বেশি রয়েছে। বিশেষ করে ১৯ থেকে ২৪ বছরের মধ্যে যাদের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছিল, তাদের থেকে তো বেশি আছেই।

তবে, এটাও ঠিক ২৪ বছরের মধ্যে যে ১২৬ জনের করোনা পজিটিভ নমুনা পাওয়া গিয়েছিল, তাদের শরীরেও সে ভাবে করোনা প্রভাব ফেলতে পারেনি।

তাই গবেষকরা সিদ্ধান্তে পৌঁছেছেন, বয়ঃসন্ধিতে থাকা বাচ্চাদের থেকে ১০ বছরের নিচে থাকা বাচ্চাদের শরীরে অ্যান্টিবডি অনেক বেশি তৈরি হচ্ছে। ফলে এই বয়সের বাচ্চাদের করোনা আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা কমছে।

অর্থসূচক/আরএস