আ.লীগ ও বিদ্রোহী কাউন্সিলর প্রার্থীর সমর্থকদের গোলাগুলি, নিহত ১

0
59

চট্টগ্রাম নগরীর ডবলমুরিং থানাধীন পাঠানটুলি ওয়ার্ডে আওয়ামী লীগ মনোনীত কাউন্সিলর প্রার্থী নজরুল ইসলাম বাহাদুর ও একই দলের বিদ্রোহী প্রার্থী মো. আব্দুল কাদেরের সমর্থকদের মধ্যে গোলাগুলিতে আজগর আলী বাবুল (৫৫) নামে একজন নিহত হয়েছেন। তিনি আওয়ামী লীগ প্রার্থীর সমর্থক বলে জানা গেছে। এ ছাড়া গুলিবিদ্ধ এক যুবককে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (১২ জানুয়ারি) রাত ৯টার দিকে ২৮ নম্বর পাঠানটুলি ওয়ার্ডের মগপুকুর পাড় এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এতে উভয় পক্ষ আগ্নেয়াস্ত্র ও ধারালো অস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে জড়ায়।

এ তথ্য নিশ্চিত করে ডবলমুরিং থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সদীপ কুমার দাশ বলেন, ‘এলাকায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে রাতে আওয়ামী লীগ সমর্থিত কাউন্সিলর প্রার্থীর সমর্থকদের সঙ্গে বিদ্রোহী প্রার্থীর সমর্থকদের গোলাগুলির ঘটনা ঘটে। সংঘর্ষে আজগর আলী বাবুল নামে একজন গুলিবিদ্ধ হন। পরে তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠালে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।’

আওয়ামী লীগ সমর্থিত কাউন্সিল প্রার্থী নজরুল ইসলাম বাহাদুর বলেন, ‘আমি ওই এলাকায় গণসংযোগে গেলে আব্দুল কাদেরের সমর্থকরা আমাদের ওপর অতর্কিতে হামলা চালায়। কোনও কিছু বুঝে ওঠার আগেই তারা আমাদের লক্ষ্য করে গুলি ছুঁড়তে শুরু করে। তাদের গুলিতে বাবুল নিহত হন।’

অন্যদিকে বিদ্রোহী প্রার্থী আব্দুল কাদের বলেন, ‘সন্ধ্যায় আজী শাহ মাজার থেকে প্রচারণা শুরু করি। গণসংযোগ করতে করতে আমরা যখন আজম ম্যানশন পর্যন্ত যাই। তখন নজরুল ইসলামের সমর্থকরা আমাদের নেতাকর্মীদের লক্ষ্য করে হামলা চালায়। এ সময় আমি একটি বাসায় আশ্রয় নিই। পরে পুলিশকে খবর দিলে তারা ঘটনাস্থলে এসে আমাদের উদ্ধার করেন। বাবুল তাদর গুলিতেই নিহত হয়েছেন।’

সংঘর্ষে জড়ানো কাউন্সিলর পদপ্রার্থী আব্দুল কাদের ও নজরুল ইসলাম বাহাদুর দুই জনই ২৮ নম্বর ওয়ার্ডের সাবেক কাউন্সিলর। সদ্য সাবেক কাউন্সিলর আব্দুল কাদের নগর আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক আ জ ম নাছিরের অনুসারী হিসেবে পরিচিত। অপরদিকে নজরুল ইসলাম বাহাদুর শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেলের অনুসারী হিসেবে পরিচিত। আব্দুল কাদের এর আগে ২০০০ থেকে ২০১৪ সাল পর্যন্ত দুই মেয়াদে কাউন্সিলর ছিলেন।

অর্থসূচক/এএইচআর