‘মার্কিন নিরাপত্তা সংস্থাগুলোর ব্যাপক ক্ষতি করেছেন ট্রাম্প’

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

0
190

যুক্তরাষ্ট্রের নিরাপত্তার জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ রাষ্ট্রীয় সংস্থাগুলো ট্রাম্প প্রশাসনের কারণে ‘চরমভাবে ক্ষতিগ্রস্ত’ হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন দেশটির নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন।

তিনি বলেন, প্রতিরক্ষা বিভাগ ও বাজেট ব্যবস্থাপনা কার্যালয়ে আমাদের টিম ‘রোড ব্লকের’ সম্মুখীন হচ্ছে। এখন আমরা বিদায়ী প্রশাসনের কাছ থেকে জাতীয় নিরাপত্তা খাতের প্রয়োজনীয় সব তথ্য পাচ্ছি না। এটা খাটো কোনো বিষয় নয়। আমার মতে, এগুলো দায়িত্বহীনতা। আমাদের নিরাপত্তার জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ বেশ কিছু সংস্থা চরমভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। অনেকগুলোর অভ্যন্তরে দক্ষতা ও নৈতিকতার ঘাটতি দেখা দিয়েছে। নীতি নির্ধারণ প্রক্রিয়া অকার্যকর হয়ে পড়েছে।

জাতীয় নিরাপত্তা ও পররাষ্ট্রনীতি বিষয়ক কর্মকর্তাদের দেওয়া একটি ব্রিফিং শেষে টুইটারে পোস্ট করা একটি ভিডিওতে তিনি এসব কথা বলেন।

৩ নভেম্বরের নির্বাচনের পর কয়েক সপ্তাহ ধরে গোয়েন্দা সংস্থাগুলোর ব্রিফিং পাননি বাইডেন। যুক্তরাষ্ট্রে সাধারণত নির্বাচনে জেতার পর থেকেই পদে বসার আগ পর্যন্ত এসব ব্রিফিং পান বিজয়ী প্রেসিডেন্ট। এগুলোকে ক্ষমতা হস্তান্তরের রুটিনকাজ ধরা হয়।

জো বাইডেন বলেন, সরকারের সংস্থাগুলো আমেরিকার নিরাপত্তার জন্য জটিল সব কাজ করে থাকে। ব্যক্তিগত প্রভাবে এসব সংস্থাকে নিয়ন্ত্রণ করা হচ্ছে এবং নৈতিকতা ধ্বংস করে দেওয়া হচ্ছে বলে তিনি উল্লেখ করেন।

নির্বাচনের পরই প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প নিরাপত্তামন্ত্রী মার্ক এস্পারকে বরখাস্ত করেন। নাগরিক আন্দোলনের সময় সেনা মোতায়েনের বিরোধিতা করার কারণে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের সঙ্গে এস্পারের সম্পর্কের অবনতি ঘটেছিল। প্রতিরক্ষা বিভাগে ডোনাল্ড ট্রাম্প তার প্রতি অনুগতদের জড়ো করার মাধ্যমে ক্ষমতায় থাকার শেষ সময়ে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির চেষ্টা করছেন বলেও মনে করা হচ্ছে।

প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এখনো স্বপ্ন দেখছেন, ৬ জানুয়ারি কংগ্রেসের যৌথ অধিবেশনে তার পক্ষে রিপাবলিকান আইনপ্রণেতারা দাঁড়াবেন। মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের শেষ সাংবিধানিক এ প্রক্রিয়াকে বাধাগ্রস্ত করে ট্রাম্প কোনো সুবিধা করতে পারবেন বলে মনে করা হচ্ছে না।

নানা মহল থেকে এখনো পরাজয় মেনে নেওয়ার জন্য ট্রাম্পকে আহ্বান জানানো হচ্ছে। তিনি কারও কথায় কান না দিয়ে তার টুইট বার্তা ও ফেসবুক পোস্টিং অব্যাহত রেখেছেন। সোমবার (২৮ ডিসেম্বর) দেওয়া সর্বশেষ টুইট বার্তায় ট্রাম্প বলেছেন, পেনসিলভানিয়া অঙ্গরাজ্যে ভোটারদের চেয়ে নাকি ২ লাখ ৫ হাজার বেশি লোক ভোট প্রদান করেছেন। তার এসব অমূলক দাবি নিয়ে মার্কিন কোনো মূলধারার সংবাদমাধ্যমও আর সংবাদ পরিবেশন করছে না।

এদিকে, বাইডেনের বক্তব্যের পর ট্রাম্প প্রশাসনের ভারপ্রাপ্ত প্রতিরক্ষামন্ত্রী ক্রিসটোফার মিলার বলেছেন, ক্ষমতা হস্তান্তর প্রক্রিয়ায় সহযোগিতা করতে কর্মকর্তারা সর্বোচ্চ পেশাদারিত্ব নিয়ে কাজ করছেন।

মিলার বলেন, প্রতিরক্ষা বিভাগ থেকে ৪০০ কর্মকর্তার ১৬৪টি সাক্ষাৎকার এবং পাঁচ হাজারের বেশি পৃষ্ঠার নথি দেওয়া হয়েছে। বাইডেনের ক্ষমতা হস্তান্তর টিমকে এসব চাওয়ার আগেই সরবরাহ করা হয়েছে।

ভারপ্রাপ্ত প্রতিরক্ষামন্ত্রী আরো দাবি করেন, বাইডেনের টিমের কাছে পেন্টাগন ‘পুরোপুরি স্বচ্ছ’।

সূত্র: বিবিসি।

অর্থসূচক/কেএসআর