শহীদ বেদীতে শ্রদ্ধা জানাতে গিয়ে ইবি কর্মকর্তাদের মারামারি!

প্রতিনিধি

0
256

বিজয় দিবসে শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদন করতে গিয়ে কুষ্টিয়ার ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে (ইবি) অস্থিতিশীল পরিবেশ সৃষ্টি হয়েছে। এ সময় কর্মকর্তা-কর্মচারীদের মধ্যে দফায় দফায় সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে।

আজ বুধবার (১৬ ডিসেম্বর) বেলা ১১টার দিকে মুক্তিযুদ্ধের স্মারক ভাস্কর্য মুক্ত বাংলায় শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদনকালে নির্বাচিত ও অনির্বাচিত দুই সংগঠনের কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের মধ্যে এ ঘটনা ঘটে। এসময় বেদির ফুল পদদলিত হতে দেখা যায়।

প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, বুধবার সকাল সাড়ে ১০টায় প্রশাসন ভবনের সামনে পতাকা উত্তোলন ও বেলুন ওড়ানোর মধ্যদিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে দিবসটির উদ্বোধন করেন উপাচার্য অধ্যাপক শেখ আবদুস সালাম। এরপর বিশ্ববিদ্যালয়ের মুক্তিযুদ্ধের স্মারক ভাস্কর্য মুক্ত বাংলায় প্রশাসনের পক্ষ থেকে শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদন করেন উপাচার্য। পরে একে একে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি, কর্মকর্তা সমিতি, শাখা ছাত্রলীগ ও কেন্দ্রঘোষিত বঙ্গবন্ধু পরিষদ শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদন করে।

পরবর্তীতে ফুল দেওয়ার জন্য বেদিতে ওঠে অফিসার্স অ্যাসোসিয়েশন ও বঙ্গবন্ধু পরিষদ কর্মকর্তা ইউনিট। এ সময় তারা জুতা পায়ে বেদিতে উঠেছেন বলে প্রতিবাদ করতে থাকেন ছাত্রলীগের কর্মীরা। কর্মকর্তা সমিতির সদস্যরাও এর প্রতিবাদ করেন। এতে অফিসার্স অ্যাসোসিয়েশনের সদস্যরা তাদের ওপর ক্ষিপ্ত হন। এ সময় উভয়পক্ষের মধ্যে তুমুল সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে এবং ফুলের ডালি নিয়ে টানাহেঁচড়ার একপর্যায়ে তা ভেঙে চুরমার হয়ে যায়।

পরে পরিস্থিতি কিছুটা স্বাভাবিক হলে শ্রদ্ধাঞ্জলি দিতে আসেন টেকনিক্যাল কর্মচারী সমিতির সদস্যরা। এসময় নির্বাচিত কর্মচারী সমিতি বাধা দেয়। একপর্যায়ে লাঠিসোটা নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে।

এ ঘটনার ইবি উপাচার্য শেখ আব্দুস সালাম দুই পক্ষের নেতৃবৃন্দকে ডেকে আলোচনার মাধ্যমে সমাধান করেন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি প্রফেসর ড. শেখ আবদুস সালাম বলেন, একদল লোক অনাকাঙ্ক্ষিত ও বিশৃঙ্খল পরিবেশ সৃষ্টি করতে চেষ্টা করেছে। এ ধরণের আচরণ অনভিপ্রেত ও শহীদদের প্রতি অবমাননার শামিল বলে আমি মনে করি।

উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. শাহীনুর রহমান জানান, বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্মকর্তাদের এমন ঘটনা অনাকাঙ্ক্ষিত। তিনি সকলের প্রতি সৌহার্দ্যপূর্ণ আচরণের আহ্বান জানান।

উল্লেখ্য, বেশ কিছুদিন ধরেই বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্মকর্তা সমিতি ও কর্মকর্তা অ্যাসোসিয়েশনের মধ্যে বিরোধ চলে আসছে।

অর্থসূচক/কেএসআর