সম্মিলিতভাবে ৩০ শতাংশ শেয়ার নেই ২৮ কোম্পানির

0
386

নির্ধারিত সময়ের পরেও সম্মিলিতভাবে ৩০ শতাংশ শেয়ার ধারণ করতে ব্যর্থ হয়েছে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত ২৮ কোম্পানি। ফলে এসব কোম্পানির পরিচালনা পর্ষদ পুনর্গঠনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জে কমিশন (বিএসইসি)।

মঙ্গলবার (০১ ডিসেম্বর) বিষয়টি অর্থসূচককে নিশ্চিত করেছেন বিএসইসির নির্বাহী পরিচালক ও মুখপাত্র মোহাম্মদ রেজাউল করিম।

তিনি বলেন, ৩০ নভেম্বরের মধ্যে যেসব কোম্পানিতে উদ্যোক্তা-পরিচালকদের শেয়ার সম্মিলিতভাবে ৩০ শতাংশ হয়নি, সেসব কোম্পানিগুলোকে ভাল করতে কোম্পানির পর্ষদ পুনর্গঠন করা হবে।

বিএসইসির সূত্রে মতে, কমিশন উদ্যোগ নেওয়ার সময় ৪৩ কোম্পানির উদ্যোক্তা-পরিচালকদের শেয়ার ধারন ৩০ শতাংশের কম ছিল। দুই দফায় বাড়ানো সময় শেষ হয় সোমবার (৩০ নভেম্বর)। এই সময়ে ১৫টি কোম্পানির উদ্যোক্তা-পরিচালকরা বাজার থেকে শেয়ার কিনে ৩০ শতাংশ শেয়ার ধারণ করেছেন। বাকি ২৮টি কোম্পানির উদ্যোক্তা-পরিচালকরা শেয়ার কিনে ৩০ শতাংশ শেয়ার ধারনের বিধান পালন করেননি। সেই কোম্পানিগুলোতে বিএসইসির তৎপরতা আরও বৃদ্ধি করতে কোম্পানির পর্ষদ পুনর্গঠনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিএসইসি।

এই লক্ষ্যে বিএসইসি গত ৭৫০তম কমিশন সভায় ৩০ নভেম্বরের মধ্যে যেসকল তালিকাভুক্ত কোম্পানির উদ্যোক্তা ও পরিচালকগণ আইন অনুযায়ী সম্মিলিতভাবে ৩০ শতাংশ শেয়ার ধারণে ব্যর্থ হবেন, সে সকল কোম্পানির বোর্ড পুনর্গঠনের লক্ষ্যে প্রস্তাবিত কর্ম-পরিকল্পনা চূড়ান্ত করেছে।

কোম্পানিগুলো হলো- ইনটেক লিমিটেড, ফার্মা এইডস, পিপলস লিজিং অ্যান্ড ফাইন্যান্স, সালভো কেমিক্যাল,একটিভ ফাইন কেমিক্যাল, আফতাব অটোমোবাইলস, অগ্নি সিস্টেমস, আলহাজ্ব টেক্সটাইল, এপেক্স ফুটওয়্যার, এ্যাপোলো ইস্পাত,সিঅ্যান্ডএ টেক্সটাইল, সেন্ট্রাল ফার্মাসিউটিক্যালস,ডেল্টা স্পিনার্স, ফ্যামিলিটেক্স, ফাস ফাইন্যান্স অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট, ফাইন ফুডস,ফু-ওয়াং সিরামিক, ফু-ওয়াং ফুডস, জেনারেশন নেক্সট ফ্যাশনস, ইমাম বাটন, ইনফরমেশন সার্ভিসেস নেটওয়ার্ক, মিথুন নিটিং অ্যান্ড ডাইং, নর্দার্ণ জুট ম্যানুফ্যাকচারিং, অলিম্পিক এক্সেসরিজ, অলিম্পিক ইন্ডাস্ট্রিজ, সুহৃদ ইন্ডাস্ট্রিজ, তাল্লু স্পিনিং, ইউনাইটেড এয়ারওয়েজ, এবং কে অ্যান্ড কিউ।

অর্থসূচক/এমআই/কেএসআর