পুড়ে ছাই মহাখালী বস্তির অর্ধশতাধিক ঘর

0
145

রাজধানীর মহাখালীর সাততলা বস্তিতে আগুনে পুড়েছে অর্ধশতাধিক ঘর। যার অধিকাংশ ছিল বিভিন্ন ধরনের দোকান। তবে এ ঘটনায় হতাহতের কোনো খবর পাওয়া যায়নি।

সোমবার (২৩ নভেম্বর) রাত ১২টার দিকে আগুনের সূত্রপাত। পরে ফায়ার সার্ভিসের ১২টি ইউনিটের প্রচেষ্টায় রাত ১২টা ৫৫ মিনিটে আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে। ফায়ার সার্ভিস সূত্র বলছে, আগুনের সূত্রপাত কীভাবে হয়েছে সেটি এখনই স্পষ্টভাবে বলা যাবে না। তবে ধারণা করা হচ্ছে, অবৈধ বৈদ্যুতিক লাইনের শর্ট সার্কিট থেকে আগুন লেগেছে।

ছবি: সংগৃহীত

স্থানীয়রা বলছে, দোকান থেকে লাগা আগুন পরবর্তীতে বস্তিতে ছড়িয়ে পড়ে।

ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স অধিদফতরের পরিচালক (অপারেশন) লেফটেন্যান্ট কর্নেল জিল্লুর রহমান বলেন, ‘প্রায় ঘণ্টাখানেক ফায়ার সার্ভিসের চেষ্টার পর আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে। হতাহতের কোনও খবর পাওয়া যায়নি। আগুন লাগার ঘটনায় একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হবে।’

আগুনের ঘটনা তদন্তে কমিটি গঠন করা হবে জানিয়ে ফায়ার সার্ভিসের আরও এই কর্মকর্তা বলেন, ‘অনেকেই মালামাল নিয়ে বের হতে পারেনি। আগুন লাগার পর তারা মোটেই সময় পাননি। ফলে পুড়ে যাওয়া ঘরের অনেক সম্পদ নষ্ট হয়েছে। রাত হওয়াতে বেশি অসুবিধা হয়েছে তাদের। তবে কী পরিমাণ ক্ষতি হয়েছে, তা তদন্ত প্রতিবেদন না পেলে জানা যাবে না।’

ফায়ার সার্ভিস সদর দফতর সূত্র জানায়, এর আগে ২০১২, ২০১৫ ও ২০১৬ সালে ডিসেম্বরে এই মহাখালীর সাততলা বস্তিতে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। প্রত্যেক বারই বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়। অবৈধ বৈদ্যুতিক সংযোগের দুর্বল তারের কারণেই এমন ঘটনা ঘটছে। আর সেই ঝুঁকি এখনও রয়ে গেছে। যার ফলে কিছুদিন পর পরই আগুন লাগে। আর একটা পর একটা ঘর লাগানোর থাকার কারণে মুহূর্তেই আগুন ছড়িয়ে পড়ে।

অর্থসূচক/এএইচআর