ডিএসইর এমডি পদে ১৬ আবেদন

0
148

দেশের প্রধান পুঁজিবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) হতে চান ১৬ জন ব্যক্তি। তারা হার্ডকপি পদ্ধতিতে আবেদন জমা দিয়েছেন। তবে অনলাইন অর্থাৎ ই-মেইলে আবেদন করা হলে প্রার্থীর সংখ্যা আরো বাড়বে।

হয়তো এদের মধ্য থেকেই একজন বর্তমান এমডি কাজী ছানাউল হকের জায়গায় আগামী তিন বছর দায়িত্ব পালন করবেন। ডিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

ডিএসইর তথ্য মতে, আজ বৃহস্পতিবার (১৯নভেম্বর) এমডি পদে আবেদন জমার শেষ দিন ছিল। সে সময়ে সরাসরি মোট ১৬জন আবেদন করেছেন। ডিএসইর এনাআরসি কমিটি অথাৎ যাচাই-বাছাই কমিটি আবেদন বক্সটি খুলে প্রার্থীদের তথ্য যাচাই-বাছাই করবেন। তাদের তালিকা অনুসারে ডিএসই কর্তৃপক্ষ একটি চূড়ান্ত তালিকা প্রস্তুত করবেন। এরপর ডিএসইর পর্ষদ অনুমোদন করবে।

বিষয়টি অর্থসূচককে নিশ্চিত করেছেন ডিএসই একাধিক কর্মকর্তা। তারা বলেন, আবেদন জমার শেষ দিন ছিলো আজ। এসময়ে ১৫-১৬জন প্রার্থী সরাসরি সিভিসহ আবেদন জমা দিয়েছেন। তবে ই-মেইলে কেউ আবেদন করেছেন কি না জানা জায়নি।

উল্লেখ্য,ব্যক্তিগত কারণ দেখিয়ে কাজী ছানাউল হক গত ০৮ অক্টোবর ডিএসইর চেয়ারম্যান বরাবার পদত্যাগ পত্র দাখিল করেন। এরপর ২১অক্টোবর ডিএসইর ৯৭২ তম পর্ষদ সভায় তার পদত্যাগ পত্র গ্রহণ করা হয়। তবে নিয়ম অনুসারে তিনি আগামী ৮ জানুয়ারি পর্যন্ত এমডি হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন।

তিনি চলতি বছরের ৯ ফেব্রুয়ারি ডিএসইতে যোগদান করেন। তাকে ৩ বছরের জন্য নিয়োগ দেওয়া হয়েছিল।

ডিএসইতে যোগদানের আগে কাজী ছানাউল হক রাষ্ট্রায়ত্ত বিনিয়োগ প্রতিষ্ঠান ইনভেস্টমেন্ট করপোরেশন অব বাংলাদেশের (আইসিবি) এমডি ছিলেন। ২০১৭ সালের আগস্টে আইসিবির এমডি হিসেবে নিয়োগ পান তিনি।

অর্থাৎ তিনি মাত্র ৮মাস দায়িত্ব পালন করার পরই এমডি পদ থেকে পদত্যাগ করলেন। এর আগের এমডি হিসেবে পদত্যাগ করেছিলেন সতীপতি মৈত্র।

নিয়ম অনুসারে চাকরি ছাড়ার তিন মাস আগে চিঠি দিতে হয়। সে হিসেবে ছানাউল হকের মেয়াদ শেষ হবে আগামী ০৮ জানুয়রি।

গত ২৩ জানুয়ারি বিএসইসি ডিএসইর এমডি হিসেবে সানাউল হকের নিয়োগ অনুমোদন করেন।

অর্থসূচক/এমআই/এমএস