করোনায় আমেরিকায় মৃত আড়াই লাখ ছাড়াল

0
144
ফাইল ছবি

এখনো পর্যন্ত বিশ্বে সব চেয়ে বেশি করোনা মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে আমেরিকায়। বুধবার তা আড়াই লাখ ছাড়িয়ে গেল। তার মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় সব চেয়ে বেশি মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে।

জন হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের রিপোর্ট বলছে, গত মে মাসে করোনা মৃত্যু ভয়াবহ চেহারা নিয়েছিল আমেরিকায়। নভেম্বরের মধ্যবর্তী সময়ে তা মে মাসের চেয়েও ভয়াবহ অবস্থায় পৌঁছে গিয়েছে। আট দিন আগে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ছিল ১০ মিলিয়ন। এক সপ্তাহের ব্যবধানে তা ১১ মিলিয়নে পৌঁছে গিয়েছে। পরিস্থিতি এতটাই উদ্বেগজনক হয়ে গিয়েছে যে বেশ কয়েকটি রাজ্য নতুন করে লকডাউনের চিন্তাভাবনা শুরু করেছে।

বুধবার নিউইয়র্ক সিটির মেয়র রাজ্যের সমস্ত স্কুল কলেজ বন্ধ রাখার নির্দেশ দিয়েছেন। তিনি জানিয়েছেন, আপাতত সমস্ত ক্লাস অনলাইনে হবে। পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত স্কুল কলেজ খোলা যাবে না। বিশেষজ্ঞদের ধারণা, আরো বেশ কয়েকটি রাজ্য নিউইয়র্ক সিটিকে অনুসরণ করবে।

মার্কিন প্রশাসনের একাংশের ধারণা, ডিসেম্বরের গোড়ায় অন্তত কিছু মানুষকে ভ্যাকসিন দেওয়া সম্বব হবে। তবে সমস্ত অ্যাপ্রুভাল নিয়ে সকলকে ভ্যাকসিন দেওয়া শুরু করা যাবে ডিসেম্বরের দ্বিতীয় ভাগ থেকে। মার্কিন ড্রাগ এবং ফুড রেগুলেটারি সংস্থা জানিয়েছে, গুরুত্বের ভিত্তিতে ভ্যাকসিন দেওয়া শুরু করা হবে। প্রথমে বয়স্ক এবং অসুস্থদের ভ্যাকসিন দেওয়া হতে পারে। কিন্তু এই সবটাই নির্ভর করছে, যে ভ্যাকসিন দেয়ার কথা ভাবা হচ্ছে, তা চূড়ান্ত ছাড়পত্র পেলে।

এই মুহূর্তে মার্কিন প্রশাসন খানিকটা অব্যবস্থার মধ্যে আছে। নির্বাচনে জয়ী হয়েছেন জো বাইডেন। কিন্তু ডোনাল্ড ট্রাম্প অফিস ছাড়তে চাইছেন না। মঙ্গলবারই বাইডেন বলেছিলেন, ট্রাম্পের এই আচরণের কারণে সব চেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত হবে করোনার সঙ্গে লড়াইয়ের পরিকল্পনা। ইতিমধ্যেই বাইডেন এবং হ্যারিস একটি করোনা টাস্ক ফোর্স তৈরি করেছেন। কিন্তু ট্রাম্প না সরলে সেই টাস্ক ফোর্স কাজ করতে পারবে না। ভ্যাকিসন দেওয়ার বিষয়েও ওই টাস্ক ফোর্সের কিছু গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নেওয়ার কথা। ট্রাম্পের কারণে তাতেও দেরি হতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে।

ফাইজার অবশ্য জানিয়ে দিয়েছে তাদের ভ্যাকসিন সকলকে দেওয়ার জন্য তৈরি হয়ে গিয়েছে। ৯৫ শতাংশ পর্যন্ত কাজ করবে এই ভ্যাকসিন। সব ঠিক থাকলে ডিসেম্বর থেকে এই ভ্যাকসিনই দেওয়া হতে পারে আমেরিকায়। সূত্র: ডিডব্লিউ, রয়টার্স, এপি, এএফপি

 

অর্থসূচক/এএইচআর