এক কেন্দ্রে জয়ী ট্রাম্প, অন্যটিতে বাইডেন

0
335

ট্রাম্প না বাইডেন? কোন প্রার্থীর জয় হবে, সেই প্রশ্ন পেছনে ফলে মাথাচাড়া দিচ্ছে অন্য এক সংশয়– গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়া কি এবার আদৌ নির্বিঘ্নে সম্পন্ন হবে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচন? সুষ্ঠু ও অবাধ নির্বাচন, বাধাহীন ভোটগণনা এবং শেষে জয়-পরাজয়ের ফয়সালা কি সম্ভব হবে? নাকি অশান্তি, হিংসা, কুৎসা ও বিচার বিভাগের হস্তক্ষেপের বেড়াজালে নির্বাচনের প্রকৃত ফলাফল জানতে দীর্ঘ সময় অপেক্ষা করতে হবে? তার মধ্যেই যুক্তরাষ্ট্রের নিউ হ্যাম্পশায়ারের ছোট্ট শহর ডিক্সভিলে নচেতে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের ভোটগ্রহণ ও গণনা এরইমধ্যে শেষ হয়েছে। সেখানকার সর্বমোট পাঁচটি ভোটের সবই পড়েছে ডেমোক্র্যাট প্রার্থী জো বাইডেনের পক্ষে। তবে অন্য একটি কেন্দ্রে বেশি ভোট পেয়েছেন ট্রাম্প।

সবার আগে ভোট হওয়া ডিক্সভিলে নচ শহরটি যুক্তরাষ্ট্র-কানাডা সীমান্তবর্তী এলাকায় অবস্থিত। এখানকার বাসিন্দারা ‘ঐতিহ্যগতভাবে’ ১৯৬০ সাল থেকে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে সবার আগে ভোট দিয়ে আসছেন।

২০১০ সালের পরিসংখ্যান থেকে জানা যায়, ডিক্সভিল নচ ১২ জন বাসিন্দার একটি ছোট্ট শহর। স্থানীয় সময় মঙ্গলবার রাত ১২টা ১৫ মিনিটের মধ্যেই কেন্দ্রের ফলাফল জানিয়ে দেওয়া হয়। এই কেন্দ্রে পাঁচটি ভোট পড়েছিল। পাঁচটি ভোটই ডেমোক্র্যাট প্রার্থী জো বাইডেন পেয়েছেন। একই সঙ্গে মিসফিল্ড নামের একটি এলাকায় একটি কেন্দ্রে একইভাবে ২১টি ভোট পড়ে। এ কেন্দ্রে বর্তমান প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প পেয়েছেন ১৬ ভোট এবং বাইডেন পেয়েছেন ৫ ভোট।

ঐতিহ্য অনুযায়ী, যুক্তরাষ্ট্রের অন্যান্য নির্বাচনী এলাকার অন্তত কয়েক ঘণ্টা আগেই এখানে ফল ঘোষণা হয়ে যায়। নির্বাচনের দিন কী ঘটতে যাচ্ছে তার আভাস নেওয়ার জন্য সাংবাদিক ও পর্যবেক্ষকদের কাছে এটি একটি পছন্দের জায়গাও। তবে ডিক্সভিলে নচের ফলের মধ্য দিয়ে যে সবসময় চূড়ান্ত ফলের সঠিক আভাস পাওয়া যায় তা নয়। ২০১৬ সালের নির্বাচনে এ এলাকায় ডেমোক্র্যাট প্রার্থী হিলারি ক্লিনটন জয়লাভ করেছিলেন। তবে শেষ পর্যন্ত ইলেক্টোরাল কলেজ ভোটে জয়টা রিপাবলিকান নেতা ডোনাল্ড ট্রাম্পেরই হয়েছে।

অর্থসূচক/এএইচআর