‘গণসংযোগ করতে না দিলে সিইসির অফিসে বসা ছাড়া উপায় থাকবে না’

নিজস্ব প্রতিবেদক

0
232

ঢাকা-১৮ উপ-নির্বাচনে বিএনপি প্রার্থী এস এম জাহাঙ্গীর হোসেনের উত্তরখান মাজার থেকে গণসংযোগ শুরু কথা ছিল আজ সোমবার সকাল ১০টায়। কিন্তু সেখানে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা পাল্টা কর্মসূচি দিয়েছে। গত ২৪ অক্টোবর থেকেই পুলিশের অনুমতি নিয়ে এস এম জাহাঙ্গীর যেখানেই কর্মসূচি দিচ্ছে সেখানে আওয়ামী লীগ হয় পাল্টা কর্মসূচি দিচ্ছে অথবা প্রশাসনের ছত্রছায়ায় আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীরা লাঠিসোঠা হাতে মহড়া দিচ্ছে অথবা ধানের শীষের কর্মী সমর্থকদের ওপর হামলা করছে। এভাবেই এস এম জাহাঙ্গীরকে গণসংযোগে বাধা দেয়া হচ্ছে বলে অভিযোগ বিএনপির এ প্রার্থীর।

আজ সোমবার (০২ নভেম্বর) বেলা সাড়ে ১১টার দিকে যখন বিকল্প সড়কে গণসংযোগে নামেন তখন ধানের শীষের পক্ষে জনস্রোত বয়ে যায়। উত্তরা ৮ নং সেক্টরের মালেকাবানু আদর্শ বিদ্যানিকেতন, আইচি হাসপাতাল, মহিলা ও শিশু হাসপাতাল,পল্লী বাজার এলাকায় গণসংযোগ গণসংযোগ শেষে পলওয়েল শপিং মলের সামনে সংক্ষিপ্ত পথসভায় এস এম জাহাঙ্গীর হোসেন বলেন, আমরা কোনো ঝামেলায় জড়াতে চাই না। তারেক রহমানের সরাসরি নির্দেশ আওয়ামী লীগ বাধা দিলেও শান্ত থেকেই গণসংযোগ কর্মসূচি করতে হবে। আপনারা দেখছেন, আমরা যেখানে কর্মসূচি দিচ্ছি, সেখানে আওয়ামী লীগ পাল্টা কর্মসূচিসহ নানাভাবে বাধা দিচ্ছে। তা সত্ত্বে যেখানে যাচ্ছি ধানের শীষের পক্ষে জনসমূদ্র হয়ে যাচ্ছে। শক্তি সামর্থ ও জনসমর্থণ থাকার পরও আমরা শান্তিতে বিশ্বাস করি এবং সেপথেই আছি।

ধানের শীষের এ প্রার্থী বলেন, আমরা সম্প্রতি প্রধান নির্বাচন কমিশনারের সাথে মিটিং করেছিলাম। তিনি আমাদের কথা দিয়েছিল বৈঠকের দিন ২৭ অক্টোবরের পর থেকে আপনারা প্রশাসনের সাথে কথা বলে যেখানে যেভাবে কর্মসূচি দিবেন তা করতে পারবেন কোনো সমস্যা হবে না। কিন্তু আমরা শুধু দেখেছি, সিইসি আমাদের যে কথা দিয়েছিল তা এখন পর্যন্ত বাস্তবায়ন হয়নি।

তিনি বলেন, আমরা প্রধান নির্বাচন কমিশনের উদ্দেশ্যে বলতে চাই, আপনারা যদি লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড তৈরি না করেন, এলাকায় যদি গণসংযোগ করতে না পারি, জনগণের শান্তিশৃঙ্খলা রক্ষার জন্য কোনো রকম বিশৃঙ্খলা হবে না, আওয়ামী লীগ বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির চেষ্টা করছে- তা আমরা এড়িয়ে যাওয়ার চেষ্টা করছি। কিন্তু এলাকায় ভোট চাইতে পারবো না, এলাকায় গণসংযোগ করতে পারবো না তাহলে কিন্তু আমাদের ওই সিইসি’র অফিসে বসে থাকা ছাড়া কোনো উপায় থাকবে না।

গণসংযোগ থেকে ধানের শীষকে গণতন্ত্রের প্রতীক, ভোটাধিকার ফিরিয়ে আনার প্রতীক এবং ধর্ষণ, দুর্নীতি ও সন্ত্রাস ও দুঃশাসনের বিরুদ্ধের প্রতীক হিসেবে উল্লেখ করে নতুন নতুন শ্লোগান দেওয়া হয়।

গণসংযোগ শেষ করে পুলিশের উদ্দেশে এস এম জাহাঙ্গীর বলেন, আপনারা আমাদের কারো বাবা, কারো ভাই, কারো সন্তান। আপনাদের কাছে অনুরোধ করবো, একটি লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড তৈরি করার জন্য যা যা করা দরকার সেটা চেষ্টা করেন। পুলিশ ভাইদের বলব, সব পুলিশ সদস্য খারাপ তা বলব না। সেখানেও বিবেকবান মানুষ আছেন, সেখানে বিবেকবান পুলিশ আছে। যারা বিবেকবান, তারা যদি তাদের বিবেক কাজে লাগিয়ে জনগণের অধিকার রক্ষার্থে, জনগণের ভোটাধিকার রক্ষার্থে, গণতন্ত্র রক্ষার্তে কাজ করেন, তাদের সাথে জনগণ আছে থাকবে। আপনারা অবশ্যই অবশ্যই সফল হবেন।

অর্থসূচক/কেএসআর