আজ মুক্ত হচ্ছেন সাকিব

0
96

২০১৯ সালের ২৯ অক্টোবর দেশের অগণিত ক্রিকেট ভক্ত একটি খবরে স্থম্ভিত হয়ে পড়েন। কেননা এ দিন ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট কাউন্সিলের (আইসিসি) কর্তৃক দুই বছরের (এক বছরের স্থগিতাদেশ) জন্য সকল প্রকার ক্রিকেট থেকে নিষিদ্ধ হন বাংলাদেশের ক্রিকেটের পোস্টারবয় সাকিব আল হাসান।

অবশেষে কাটতে যাচ্ছে সেই নিষেধাজ্ঞা। মুক্ত হচ্ছেন সাকিব। আইসিসির নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে সাকিবের ক্রিকেটে ফেরায় অপেক্ষা আর মাত্র ২৪ ঘন্টা। বুধবার (২৮ অক্টোবর) নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ শেষ হলেও ২৯ অক্টোবর (বৃহস্পতিবার) থেকে ক্রিকেটে অংশ নিতে আর কোনো বাঁধা থাকছে না দেশের ক্রিকেটের এই বরপুত্রের।

জুয়াড়ির দেয়া প্রস্তাবে আইসিসির কাছে গোপন করায় এই নিষেধাজ্ঞার সন্মূখীন হয়েছিলেন সাকিব আল হাসান। আইসিসি দুর্নীতি দমন আইনের লঙ্ঘনের তিনটি অভিযোগ স্বীকারও করেছিলেন তিনি। আইসিসি জানিয়েছিল, ২০১৮ সালেই চার মাসে তিনবার জুয়াড়ির কাছ থেকে ম্যাচ পাতানোর প্রস্তাব পেয়েছিলেন সাকিব। কিন্তু কোনোবারই তা জানাননি আইসিসিকে।

২০১৮ সালের জানুয়ারিতে বাংলাদেশ, জিম্বাবুয়ে ও শ্রীলঙ্কার মধ্যকার ত্রিদেশীয় সিরিজে দুবার ও একই বছর এপ্রিলে ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগে (আইপিএল) সানরাইজার্স হায়দরাবাদ ও কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবের মধ্যকার ম্যাচে একবার ম্যাচ ফিক্সিংয়ের প্রস্তাব পেলেও তা আইসিসির কাছে চেপে গিয়েছিলেন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব।

আইসিসির দুর্নীতি বিরোধী আইন অনুযায়ী, কোনো ক্রিকেটার যদি জুয়াড়ির কাছ থেকে ম্যাচ পাতানোর প্রস্তাব পান, এবং সেটি যদি আইসিসিকে না জানান তাহলে সেটা শাস্তিযোগ্য অপরাধ হিসেবে গণ্য করা হবে। অপরাধের মাত্রা অনুযায়ী, এই ধারা ভঙ্গের সাজা সর্বনিম্ন ছয় মাস থেকে সর্বোচ্চ পাঁচ বছরের নিষেধাজ্ঞা। এই বিধানের ভিত্তিতে দুই বছরের জন্য নিষিদ্ধ করা হয়েছিল সাকিব আল হাসানকে। সেই সঙ্গে তদন্তের কাজে সহযোগিতার জন্য তার শাস্তির মেয়াদ এক বছরে নামিয়ে আনে আইসিসি।

আশা করা হচ্ছিলো শ্রীলঙ্কা সফরের মধ্য দিয়েই ক্রিকেটে ফিরবেন বিশ্বসেরা এই অলরাউন্ডার। কিন্তু নানা জটিলতায় বাতিল হয়ে যায় সেই সিরিজটি। ধারণা করা হচ্ছে আসন্ন কর্পোরেট টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্ট দিয়ে ক্রিকেটে ফিরবেন সাকিব। আগামী ১৫ নভেম্বর থেকে মাঠে গড়ানোর কথা রয়েছে ঘরোয়া টুর্নামেন্টটির।

অর্থসূচক/এএইচআর