রাতে ভোট হওয়ার কোনো সুযোগ নেই: সিইসি

0
52

প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নূরুল হুদা বলেছেন, পাবনা-৪ আসনের উপনির্বাচন অবাধ, নিরপেক্ষ ও শান্তিপূর্ণ করতে গণপ্রতিনিধিত্ব অধ্যাদেশ অনুযায়ী সকল ব্যবস্থা নিচ্ছে নির্বাচন কমিশন। ভোটের দিন সকালে ভোটকেন্দ্রে যাবে ব্যালট পেপার। এরই মধ্যে সুষ্ঠু নির্বাচনের সব প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। নির্বাচন সংশ্লিষ্ট কোনো কর্মকর্তার বিরুদ্ধে পক্ষপাতিত্বের অভিযোগ পাওয়া গেলে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে।

বুধবার (২৩ সেপ্টেম্বর) সকালে পাবনা জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে নির্বাচনী আইন-শৃঙ্খলা বিষয়ক সভায় যোগ দেয়ার আগে সাংবাদিকদের তিনি এসব কথা বলেন।

প্রধান নির্বাচন কমিশনার বলেন, গণতান্ত্রিক ধারাবাহিকতা রক্ষার সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতায় করোনাকালে নির্বাচন করছে কমিশন। আগামী ২৬ সেপ্টেম্বর পাবনা-৪ আসনের উপনির্বাচন স্বাস্থ্যবিধি মেনে অনুষ্ঠিত হবে। প্রার্থীদের নির্বাচনী আচরণবিধি মেনে শান্তিপূর্ণ পরিবেশ বজায় রাখার আহ্বান জানান তিনি।

কে এম নূরুল হুদা বলেন, শুধু বাংলাদেশ নয়, পুরো বিশ্ব এখন করোনা সঙ্কটে রয়েছে। এরপরও কিছু থেমে নেই। বিশ্বের অনেক দেশ এর মধ্যেই নির্বাচন করেছে।

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে প্রধান নির্বাচন কমিশনার বলেন, ব্যালট পেপার সকালে যাবে। কাজেই রাতে ভোট হওয়ার কোনো সুযোগ নেই।

তিনি বলেন, এখন পর্যন্ত আচরণবিধি লঙ্ঘনসহ আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর কারও বিরুদ্ধে কোনো অভিযোগ পাওয়া যায়নি। তারপরও আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীসহ নির্বাচন সংশ্লিষ্ট কারও বিরুদ্ধে কোনো অভিযোগ পেলে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে।

পরে সিইসি জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে নির্বাচন উপলক্ষে আইন-শৃঙ্খলা বিষয়ক সভায় যোগ দেন। সভার সূচনা বক্তব্যে নির্বাচন সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের উদ্দেশে তিনি বলেন, সিইসি কোনো কিছু হাতে রেখে দেননি। একটি অবাধ ও শাস্তিপূর্ণ নির্বাচনের জন্য যা যা দরকার সবই কর্মকর্তাদের কাছে অর্পণ করা হয়েছে। নির্বাচন সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা সততার সঙ্গে তাদের দায়িত্ব পালন করবেন-এটাই দেশবাসীর আশা।

সভায় অন্যান্যের মধ্যে নির্বাচন কমিশনের সিনিয়র সচিব আলমগীর কবীর, রাজশাহী বিভাগের অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (রাজস্ব) আষ্টুল মান্নান, পাবনার জেলা প্রশাসক কবির মাহমুদ, পুলিশ সুপার শেখ রফিকুল ইসলাম, রাজশাহী আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা ফরিদুল ইসলাম, পাবনা-৪ আসনের উপনির্বাচনের রিটার্নিং অফিসার ও জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা আব্দুল লতিফ শেখ, আনসার ও ভিডিপির জেলা কমান্ড্যান্ট মো. শফিকুল আলম, পাবনার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) শাহেদ পারভেজ, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট জাহিদ নেওয়াজ, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মোখলেছুর রহমান, র‍্যাব-১২ এর পাবনা ক্যাম্পের অধিনায়ক আমিনুল কবির তরফদার, এনএসআই, ডিজিএফআইসহ গোয়েন্দা সংস্থার কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, গত ২ এপ্রিল সাবেক ভূমিমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্য শামসুর রহমান শরীফের মৃত্যুর পর পাবনা-৪ আসন শূন্য ঘোষণা করা হয়। আগামী ২৬ সেপ্টেম্বর এই আসনে উপনির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এতে আওয়ামী লীগের প্রার্থী নুরুজ্জামান বিশ্বাস, বিএনপির প্রার্থী হাবিবুর রহমান হাবিব এবং জাতীয় পার্টির রেজাউল করিম প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

অর্থসূচক/এমএস