শনিবার, অক্টোবর ৩১, ২০২০
Home App Home Page প্রবাসীকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের সামনে সৌদি প্রবাসীদের বিক্ষোভ

প্রবাসীকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের সামনে সৌদি প্রবাসীদের বিক্ষোভ

প্রবাসীকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের সামনে সৌদি প্রবাসীদের বিক্ষোভ

সৌদি আরবে ফিরে যেতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে ও ফ্লাইটের দাবিতে আজ বুধবারও (২৩ সেপ্টেম্বর) বিক্ষোভ করছেন সৌদি প্রবাসীরা।

বেলা ১১টার দিকে তারা রমনা এলাকার ইস্কাটনে প্রবাসীকল্যাণ মন্ত্রণালয় ঘেরাও করেছেন। এ সময় তারা মন্ত্রণালয়ের সামনের সড়কে অবস্থান নেন।

সৌদি অ্যারাবিয়া এয়ারলাইন্স টিকিট বিক্রি সংক্রান্ত সব কার্যক্রম অনির্দিষ্টকালের জন্য স্থগিত করায় গতকালের মতো আজ (বুধবার) সকালেও কারওয়ান বাজারে সাউদিয়া কার্যালয়ের বাইরে বিক্ষোভ করেন প্রবাসীরা। সেখান থেকেই বিক্ষোভকারীদের একাংশ ইস্কাটন গার্ডেনের প্রবাসী কল্যাণ ভবনের সামনের সড়কে অবস্থান নেয়।

প্রবাসীদের একটি প্রতিনিধিদলের সঙ্গে প্রবাসীকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রীসহ উধ্বর্তন কর্মকর্তাদের আজ বৈঠকের কথা রয়েছে। পুলিশের রমনা জোনের সহকারী কমিশনার এস এম শামীম এ কথা জানিয়েছেন। তিনি বলেন, পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে। মন্ত্রণালয়ের সামনের সড়কের একপাশে প্রবাসীরা অবস্থান করছেন। দুপুরে তাদের পাঁচজনের একটি প্রতিনিধিদলের সঙ্গে প্রবাসীকল্যাণমন্ত্রীসহ সংশ্লিষ্টদের বৈঠক হবে।

ভবনের বাইরে অবস্থান নেওয়া সৌদি প্রবাসী বগুড়ার ফরহাদ হোসেন বলেন, আমি ২০১৯ সালের ২৯ ডিসেম্বর ছুটিতে দেশে ফিরি। লকডাউনের কারণে যেতে পারিনি। আমার ভিসার মেয়াদ, আকামা ও কোম্পানির ছুটি শেষ হয়ে গেছে। গত ১ মাস ধরে টিকিটের জন্য দ্বারে দ্বারে ঘুরছি। কেউই টিকিট দিতে পারছে না।

সাভার থেকে আসা মাইনুল ইসলাম বলেন, আমি এ বছরের ২৮ জানুয়ারি দেশে ফিরেছি। আমার সৌদির রিটার্ন টিকিট কাটা ছিল। তবে লকডাউনের কারণে যেতে পারিনি। এখন টিকিটের তারিখ পরিবর্তনের জন্য অতিরিক্ত টাকা চাচ্ছে এজেন্সি। এগুলো সমাধানের জন্যই এখানে অবস্থান করেছি।

১৫ সেপ্টেম্বর থেকে আন্তর্জাতিক ফ্লাইট চালুর অনুমতি দেয় সৌদি সরকার। সৌদি এয়ারলাইনসকে সপ্তাহে দুটি ফ্লাইট চালানোর অনুমতি দেয় সরকার। কিন্তু বাংলাদেশ বিমানকে ফ্লাইট চালানোর অনুমতি দেয়নি সৌদি কর্তৃপক্ষ। আর এতে বিপাকে পড়েন প্রবাসীরা। কেননা অধিকাংশেরই ফিরতি টিকিট সৌদি এয়ারলাইনস ও বিমানে করা আছে।

পুলিশের তেজগাঁও বিভাগের অতিরিক্ত উপকমিশনার রুবায়েত জামান গতকাল গণমাধ্যমকে বলেন, সৌদি এয়ারলাইনসের চলতি মাসে ৪টি ফ্লাইটে ১ হাজার ৬০টি টিকিট ছিল, যার সবই বিক্রি হয়ে গেছে। বিমানের পক্ষ থেকে জানানো হয়, সৌদি আরবে ল্যান্ডিং অনুমতি পেলে আগামী ১ অক্টোবর থেকে সৌদি আরবে তারা সপ্তাহে আটটি ফ্লাইট পরিচালনা করবে।

বিমানের মহাব্যবস্থাপক (এমডি) প্রধান নির্বাহী (সিইও) মো. মোকাব্বির হোসেন গতকাল বলেন, বিমানকে আটটি ফ্লাইটের স্লট দিয়েছে সৌদি কর্তৃপক্ষ। কিন্তু ল্যান্ডিং পারমিশন দেয়নি। পারমিশন মিললেই ফ্লাইট চালু করতে পারব।

অর্থসূচক/কেএসআর