অবশেষে সাত মাস পর ১৬ অক্টোবর খুলছে দেশের সিনেমা হল

0
27

করোনার কারণে স্থবির ছিলো সারা পৃথিবী। বেশ লম্বা সময়ের জন্য থেমে ছিলো প্রায় সকল কার্যক্রম। অন্যান্য দেশের মত বাংলাদেশেও ছিলো লগডাউন। যার ফলে স্কুল, কলেজ, অফিস-আদালতের মতো বন্ধ ছিলো দেশের প্রেক্ষাগৃহ গুলো।

অবশেষে দীর্ঘ ছয় মাস সাতাশ দিন পর খুলছে দেশের সিনেমা হল। প্রদর্শক সমিতির সঙ্গে একান্ত বৈঠকে তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ আজ দুপুরে এ ঘোষণা দেন।

প্রদর্শক সমিতির প্রধান উপদেষ্টা সুদীপ্ত কুমার দাসের নেতৃত্বে এ সময় সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট মিয়া আলাউদ্দিন এবং যুগ্ম সম্পাদক শরফুদ্দিন এলাহী সম্রাট উপস্থিত ছিলেন। হল খোলার বিষয়টি সমিতির সাধারণ সম্পাদক আওলাদ হোসেন উজ্জল নিশ্চিত করেছেন।

বৈঠকে তথ্যমন্ত্রী এ সময় বলেন, করোনার বৈষয়িক কারণকে পৃথিবীর কেউই অস্বীকার করতে পারেন নি। আমরাও তার ব্যতিক্রম নই। বাধ্য হয়েই সিনেমা হলগুলো বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলো সরকার। তবে এ সময় সরকার হাতপা গুটিয়ে বসে থাকেনি বরং দ্বিগুণ গতিতে বেশ কিছু পদক্ষেপ নিয়েছে যা সিনেমা হল এবং টোটাল ইন্ডাস্ট্রি ঘুরে দাঁড়াতে পারে। ইতোমধ্যেই সবকিছু আপনারা অবগত হয়েছেন।

তিনি বলেন, হল খোলার ঘোষণা দেওয়া মানে এই নয় দেশ করোনমুক্ত হয়ে গেছে। অবশ্যই স্বাস্থ্যবিধি মেনে হল খুলতে হবে। এ ব্যাপারে আমরা নজরদারি করবো।

সাংবাদিকদের করা এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, বাস্তবিক অর্থে কোনো ধরনের প্রণোদনা দিচ্ছে না সরকার তবে প্রধানমন্ত্রী ঘোষিত ‘বিশেষ তহবিল’ কোনভাবেই প্রণোদণা থেকে কম নয় বরং কিছুক্ষেত্রে এর বহুমুখি সুবিধা সিনেমা হল মালিকরা গ্রহণ করতে পারবে।

মন্ত্রীর কথায় এ সময় একমত পোষণ করে প্রদর্শক সমিতির উপদেষ্টা সুদীপ্ত কুমার দাস বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী স্ববিবেচনায় আমাদের যা দিচ্ছেন এতে সিনেমা হল মালিকদের পক্ষ থেকে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি। বিশেষ এই তহবিলটি দ্রুত ছাড় পেলে আশা করছি ২০২১-এ আমাদের মহান নেতার জন্ম শতবর্ষ এবং স্বাধীনতার অর্ধশত বছরকে কেন্দ্র করে আর্ন্তজাতিক মানের যে ছবিগুলো নির্মাণ হতে যাচ্ছে সেগুলো দর্শক উপভোগ করতে পারবেন।

হল খোলার ঘোষণা সরকারকে অভিনন্দন জানিয়েছেন প্রযোজক সমিতির সাধারণ সম্পাদক শামসুল আলম এবং পরিচালক সমিতির সাধারণ সম্পাদক বদিউল আলম খোকন। তারা বলেন, ৬ মাস ২৭ দিন! অনেকটা সময়। আশা করছি হল খোলার ঘোষণা সিনেমা নির্মাণে জোয়ার বইবে। অনিশ্চয়তা কাটবে প্রযোজক-নির্মাতাদের।

 

এর আগে করোনার প্রাদুর্ভাবের কারণে গত ১৮ মার্চ বন্ধ হয়ে যায় দেশের সকল সিনেমা হল।

প্রসঙ্গত ২৫ আগস্ট একনেক বৈঠকে সিনেমা হল বাঁচাতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ‘বিশেষ তহবিল’ গঠনের নির্দেশনা পেয়েছে তথ্যমন্ত্রণালয় এবং বাংলাদেশ ব্যাংক।

অর্থসূচক/এএ/এমএস