স্বাস্থ্যের ড্রাইভার মালেকের ঢাকায় একাধিক বাড়ি, ব্যাংকে অঢেল টাকা

অষ্টম শ্রেণি পাস করা আব্দুল মালেক স্বাস্থ্য অধিদফতরের পরিবহন পুলের একজন গাড়ি চালক (ড্রাইভার)। অধিদফতরের চাকরির পাশাপাশি নানা অবৈধ কর্মকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত ছিলেন তিনি।

তৃতীয় শ্রেণির সাধারণ কর্মচারী হয়েও ঢাকার বিভিন্ন স্থানে একাধিক বিলাসবহুল বাড়ি, গাড়ি ও ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানের মালিক ড্রাইভার মালেক। জাল টাকার ব্যবসা ছাড়াও তিনি এলাকায় চাঁদাবাজিতে জড়িত। শুধু তাই নয়, গ্রেফতারের পর বিভিন্ন ব্যাংকে নামে-বেনামে বিপুল পরিমাণ অর্থ গচ্ছিত রয়েছে বলে জানিয়েছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)।

আজ রোববার (২০ সেপ্টেম্বর) ভোরে র‌্যাব-১ এর একটি দল রাজধানীর তুরাগ এলাকা থেকে অবৈধ অস্ত্র, জালনোটের ব্যবসা ও চাঁদাবাজিসহ বিভিন্ন সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে আব্দুল মালেককে গ্রেফতার করে।

র‌্যাবের হাতে গ্রেফতারের পর আব্দুল মালেক ওরফে বাদল ওরফে ড্রাইভার মালেক প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে অবৈধ অস্ত্র, জালনোটের কারবারসহ চাঁদাবাজি করে টাকা হাতিয়ে নেওয়ার বিষয়টি স্বীকার করেছেন বলে জানিয়েছেন র‌্যাব-১ এর অধিনায়ক (সিও) লেফট্যানেন্ট কর্নেল শাফী উল্লাহ বুলবুল।

অবৈধ সব কর্মকাণ্ডের মাধ্যমে উপার্জিত টাকায় রাজধানীর তুরাগ থানা এলাকায় দক্ষিণ কামার পাড়ায় দুটি ৭তলা বিলাসবহুল ভবন, ধানমন্ডির হাতিরপুল এলাকায় সাড়ে ৪ কাঠা জমিতে একটি নির্মাণাধীন ১০তলা ভবন রয়েছে। এছাড়া দক্ষিণ কামার পাড়ায় ১৫ কাঠা জমিতে একটি ডেইরি ফার্ম গড়ে তুলেছেন তিনি। বিভিন্ন ব্যাংকে নামে-বেনামে তার বিপুল অংকের অর্থ থাকার তথ্যও জানিয়েছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)।

অর্থসূচক/কেএসআর