বাইডেনকে নিয়ে ‘ভুয়া’ ভিডিও প্রচার ট্রাম্পের

এ বার ফেক ভিডিও প্রচারের অভিযোগ উঠল মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের বিরুদ্ধে। প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী জো বাইডেনের একটি ভিডিও সম্প্রতি রিটুইট করেছেন তিনি। সঙ্গে সঙ্গেই বাইডেন শিবির জানায়, ভিডিওটি ভুয়া। শেষ পর্যন্ত টুইটারও স্বীকার করে নেয় যে, ট্রাম্প যে ভিডিও শেয়ার করেছেন, তা ফেক। টুইটার ভিডিওটিকে ‘ম্যানিপুলেটেড মিডিয়া’ বলে লেবেল করেছে।

ট্রাম্প যে ভিডিওটি শেয়ার করেছেন, সেখানে দেখা যাচ্ছে, বাইডেন কোনও এক সভায় বক্তৃতা করতে উঠে পকেট থেকে ফোন বার করছেন। তারপর একটি গান চালাচ্ছেন। গানটি এনডাব্লিউএ বলে একটি দলের গাওয়া। ফ্লোরিডায় জর্জ ফ্লয়েড হত্যার প্রতিবাদের সময় তারা এই গানটি গেয়েছিল। সেই গানটিতে পুলিশের বিরুদ্ধে বেশ কিছু ‘অশ্লীল’ বক্তব্য আছে। ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, বাইডেন সেই গানটি চালিয়ে সকলকে শোনাচ্ছেন এবং নিজেও গানের ছন্দে ছন্দে সামান্য নাচছেন।

ট্রাম্প এই ভিডিওটি শেয়ার করার সঙ্গে লেখেন, পুলিশ সম্পর্কে ডেমোক্র্যাট প্রার্থীর এই হলো বক্তব্য। ট্রাম্প টুইটটি করার পরে এখনও পর্যন্ত প্রায় চার দশমিক পাঁচ মিলিয়ন ভিউ হয়েছে। বহু মানুষ মন্তব্য করেছেন। বাইডেন শিবির জানায়, ভিডিওটি সম্পূর্ণ মিথ্যা। বাইডেনের একটি বক্তৃতার ফুটেজ নিয়ে ভিডিওটি বানানো হয়েছে।

বাইডেন শিবিরের কথা মেনে নেয় টুইটার। ভিডিওটি পরীক্ষা করে তারা জানায়, ভিডিওটি ‘ম্যানিপুলেটেড’। অর্থাৎ, তৈরি করা। তবে এখনও পর্যন্ত এ বিষয়ে কোনও মন্তব্য করেননি ট্রাম্প। ফেক ভিডিও প্রচারের জন্য দুঃখপ্রকাশও করেননি। বিশেষজ্ঞদের একাংশের বক্তব্য, ট্রাম্প যা করতে চেয়েছিলেন, তা হয়ে গিয়েছে। বহু মানুষ ভিডিওটি দেখে ফেলেছেন। সকলে জানতেও পারবেন না যে ভিডিওটি ফেক। এর আগেও ভূয়া খবর টুইটের অভিযোগ উঠেছে মার্কিন প্রেসিডেন্টের বিরুদ্ধে। কিন্তু এ সব নিয়ে ট্রাম্প কোনো মন্তব্য করেননি। সূত্র: রয়টার্স, ডিডব্লিউ

অর্থসূচক/এএইচআর