বাইডেন জিতলে কমলা হবেন ভাইস প্রেসিডেন্ট

0
122

কমলা হলেন প্রথম কৃষ্ণাঙ্গ নারী এবং প্রথম এশিয়ান আমেরিকান যাঁকে নির্বাচনী জুটি হিসাবে বেছে নিলেন কোনো প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের প্রার্থী। ফলে বাইডেন জিততে পারলে কমলাও ইতিহাস গড়বেন। প্রথম নারী, প্রথম কৃষ্ণাঙ্গ ও প্রথম এশিয়ান আমেরিকান হিসাবে ভাইস প্রেসিডেন্ট হবেন। ৫৫ বছর বয়সী কমলার বাবার জন্ম জামাইকায় এবং মা ভারতীয় বংশোদ্ভূত ইন্ডিয়ান আমেরিকান।

বাইডেন টুইট করে জানিয়েছেন, ‘কমলা হ্যারিস আমার মতো এক ক্ষুদ্র মানুষের পক্ষে একজন নির্ভীক যোদ্ধা এবং দেশের অন্যতম প্রধান জনসেবক। তাঁকে নির্বাচনী জুটি হিসাবে পেয়ে আমি সম্মানিত।’ কমলাও টুইট করে বলেছেন, ‘বাইডেনের নির্বাচনী জুটি হতে পেরে আমি সম্মানিত। তাঁকে কম্যান্ডার ইন চিফ করার জন্য যা করার আমি করব।’

কমলা হ্যারিস বর্তমানে ক্যালিফোর্নিয়ার সেনেটর এবং দলের মধ্যে যাঁরা প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থী হতে চেয়ে বাইডেনকে চ্যালেঞ্জ জানিয়েছিলেন, তার মধ্যে অন্যতম। তিনি বাইডেনের প্রয়াত ছেলেরও ঘনিষ্ঠ বন্ধু ছিলেন।

মঙ্গলবার হ্যারিস টুইট করে বলেছিলেন, ‘সর্বোচ্চ পদে কৃষ্ণাঙ্গ ও অন্য বর্ণের মেয়েদের প্রতিনিধিত্ব খুব কম। সেটা বদলাবার সময় এসেছে। আমরা সেই কাজ শুরু করেছি।’ দলের প্রার্থী নির্বাচনের সময় প্রথমে বাইডেনের বিরুদ্ধে কমলা আক্রমণাত্মক প্রচার চালিয়েছেন। বাইডেনের বিরুদ্ধে তাঁর মনোভাব ছিল খুবই কড়া। অবশা গত ডিসেম্বর থেকে তিনি মত বদল করে বাইডেনকে সমর্থন করেন।

এদিকে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প জানিয়েছেন, কমলা হ্যারিসকে বাইডেন তাঁর নির্বাচনী জুটি হিসাবে বেছে নেওয়ায় তিনি অবাক। কারণ, দলীয় প্রার্থী নির্বাচনের সময় বিতর্কে বাইডেনের বিরুদ্ধে ‘অসম্মানজনক কথা’ বলেছিলেন কমলা। তিনি অত্যন্ত ‘কদর্যভাবে’ আক্রমণ করেছিলেন। সাংবাদিকদের কাছে ট্রাম্প বলেছেন, ‘এই ধরনের এক নেতাকে নির্বাচনী জুটি হিসাবে বেছে নেওয়া অবাক করার মতো ঘটনা।’

প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা অবশ্য বাইডেনের সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়ে বলেছেন, দেশের কাছে এটা সুসংবাদ। ওবামা টুইট করে বলেছেন, ‘কমলা হ্যারিস তাঁর পুরো কর্মজীবন আমাদের সংবিধান রক্ষার জন্য লড়াই করেছেন। তাই এটা আমাদের দশের পক্ষে ভালো দিন’।

ট্রাম্পের বিরুদ্ধে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছিলেন হিলারি ক্লিন্টন। তিনিও টুইট করে বলেছেন, ‘কমলা হ্যারিস অসাধারণ জনসেবক হিসাবে নিজেকে প্রমাণ করেছেন। আমি জানি, তিনি হবেন বাইডেনের শক্তিশালী নির্বাচনী জুটি। তাঁকে সমর্থন করুন ও জেতান।’

আগামী সপ্তাহে অনলাইনে ডেমোক্র্যাট ন্যাশনাল কনভেনশন হবে। সেখানেই বাইডেন ও হ্যারিস প্রার্থীপদ গ্রহণ করে ভাষণ দেবেন।

বিশেষজ্ঞদের ধারণা, কমলা হ্যারিসকে জোটসঙ্গী করার পিছনে বাইডেনের রাজনৈতিক অঙ্ক আছে। কমলাকে নির্বাচনী জুটি করে তিনি আসন্ন ভোটে কৃষ্ণাঙ্গ, ভারতীয় ও মেয়েদের সিংহভাগ ভোট নিশ্চিত করতে চান। তাছাড়া কমলা শক্তিশালী প্রার্থী। এভাবেই নিজের জয়ের সম্ভাবনা বাড়িয়ে নিতে চাইছেন বাইডেন। সূত্র: এপি, রয়টার্স, এএফপি, ডিডব্লিউ

অর্থসূচক/এএইচআর