বৈরুতে বিস্ফোরণে ২ বাংলাদেশি নিহত

লেবাননের রাজধানী বৈরুত বন্দরের একটি ওয়্যারহাউসে ভয়াবহ বিস্ফোরণে এখন পর্যন্ত দুই বাংলাদেশি নিহত হয়েছেন। তারা হলেন- মেহেদি হাসান ও মিজানুর রহমান। এছাড়া আট শ্রমিক রফিক হারিরি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন বলে জানিয়েছেন লেবাননে বাংলাদেশ দূতাবাসের ফার্স্ট সেক্রেটারি আবদুল্লাহ আল মামুন

এছাড়া বিস্ফোরণে জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা কার্যক্রমে মেরিটাইম টাস্কফোর্সের অধীনে নিয়োজিত বাংলাদেশ নৌবাহিনীর জাহাজ বিজয়ের (বিএনএস বিজয়) ২১ সদস্য আহত হয়েছেন। তাদের মধ্যে একজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। তাঁকে আমেরিকান ইউনিভার্সিটি অব বৈরুত মেডিকেল সেন্টারে (এইউবিএমসি) ভর্তি করা হয়েছে। অন্যদের জাতিসংঘের অন্তর্বর্তীকালীন শান্তিরক্ষা বাহিনী কর্তৃপক্ষের (ইউনিফিল) তত্ত্বাবধানে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে হেলিকপ্টার ও অ্যাম্বুলেন্সযোগে হামুদ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। বর্তমানে তাঁরা আশঙ্কামুক্ত। শান্তিরক্ষা মিশন ইউনিফিলের সার্বিক তত্ত্বাবধানে আহত নৌ সদস্যদের চিকিৎসা চলমান রয়েছে।

নৌবাহিনীর ১১০ সদস্যের বাকি ৮১ জন কোথায় আছেন– জানতে চাইলে লেবাননে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মেজর জেনারেল মোহাম্মাদ জাহাঙ্গির আল মোসতাহিদুর রহমান বলেন, ‘তারা সবাই জাহাজে আছেন এবং ভালো আছেন। আমরা পররাষ্ট্র ও স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে যোগাযোগ রাখছি লেবাননে অবস্থিত বাংলাদেশিদের কারও কোনও সমস্যা আছে কিনা জানার জন্য।

তিনি আরও বলেন, ‘আমরা মঙ্গলবার বন্দর এলাকায় ব্যস্ত ছিলাম এবং দু’টি হাসপাতালে খোঁজ নিয়েছিলাম কোনও বাংলাদেশে আছে কিনা। আজকে আমরা সব জায়গায় খোঁজ নেব। এখানে যোগাযোগ ও বিদ্যুৎ ব্যবস্থা বিঘ্নিত হয়েছে। সে কারণে অনেকের সঙ্গে যোগাযোগ করতে সমস্যা হচ্ছে।’

প্রসঙ্গত, বৈরুতে ভয়াবহ বিস্ফোরণে শতাধিক মানুষ নিহত এবং চার হাজার মানুষ আহত হয়েছেন। দেশটির স্বাস্থ্যমন্ত্রী হামাদ হাসান জানিয়েছেন, বিস্ফোরণে চার হাজারের বেশি মানুষ আহত হয়েছে এবং বহু ঘরবাড়ি ও গাড়ি বিধ্বস্ত হয়েছে। লেবাননের অভ্যন্তরীণ নিরাপত্তা বিষয়ক প্রধান জানিয়েছেন, অত্যন্ত বিস্ফোরক রাসায়নিক পদার্থের গুদামে এ বিস্ফোরণ ঘটেছে।

অর্থসূচক/এএইচআর