ওষুধ খাতের আয় বেড়েছে ৬৪ শতাংশ

0
177
Renata-RB-GXSL-Marico
আয় বেড়েছে এমন চার কোম্পানির লোগো
Renata-RB-GXSL-Marico
আয় বেড়েছে এমন চার কোম্পানির লোগো

পুঁজিবাজারের তালিকাভুক্ত ওষুধ ও রসায়ন খাতের ৬৪ শতাংশ কোম্পানির আয় বেড়েছে। আর আয় বাড়ার শীর্ষে রয়েছে এ খাতের বহুজাতিক কোম্পানিগুলো। কোম্পানিগুলোর সর্বশেষ প্রান্তিকের হিসাব থেকে এ তথ্য তথ্য জানা যায়।

বর্তমানে ওষুধ ও রসায়ন খাতে ওয়াটা কেমিক্যাল যুক্ত হয়ে কোম্পানির সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২৬ টি। তবে ২৫ টি কোম্পানির মধ্যে আয় বেড়েছে ১৬ টি কোম্পানির, ৮ টির কমেছে এবং ১ টির অপরিবর্তিত রয়েছে।

বিশ্লেষকদের মতে, বর্তমানে দেশের রাজনৈতিক পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে। আগের তুলনায় ওষুধ খাতের রপ্তানি আয় বেড়েছে সাম্প্রতিক সময়ে। এই খাতটির অবস্থান রপ্তানি আয়ের দিক থেকে পোশাক খাতের পরপরই রয়েছে। যার ফলে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত ওষুধ খাতের কোম্পানির শেয়ারের প্রতি বিনিয়োগকারীদের ঝোঁক বেশি দেখা যায়। তাই সার্বিক প্রভাব পড়েছে ওষুধ ও রসায়ন খাতের ওপর।

এই খাতে আয়ের দিক থেকে সবচেয়ে বেশি এগিয়ে আছে বহুজাতিক কোম্পানিগুলো। এর মধ্যে আবার শীর্ষে রয়েছে রেকিট বেনকিজার।

এই কোম্পানির প্রথম প্রান্তিকের (জানুয়ারি,১৪-মার্চ,১৪) তথ্য অনুযায়ী, কোম্পানিটি মুনাফা করেছে ৪ কোটি ৮৫ লাখ ৭০ হাজার টাকা। যা আগের বছর একই সময়ে ছিল ২ কোটি ৩২ লাখ ৬০ হাজার টাকা।

আলোচিত বছরে কোম্পানি শেয়ার প্রতি আয় বা ইপিএস করেছে ১০ টাকা ২৮ পয়সা । যা আগের বছর একই সময়ে ছিল ৪ টাকা ৯২ পয়সা। কোম্পানিটির আয় বেড়েছে ৫ টাকা ৩৬ পয়সা বা ১০৯ শতাংশ।

দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে ম্যারিকো বাংলাদেশ লিমিটেড। তৃতীয় প্রান্তিকের (অক্টোবর,১৩-ডিসেম্বর,১৩) তথ্য অনুযায়ী কোম্পানিটির আয় বেড়েছে ২ টাকা ২২ শতাংশ।

এই প্রান্তিকে কোম্পানিটি মুনাফা করেছে ৩৪ কোটি ৬৭ লাখ ৬০ হাজার টাকা। যা আগের বছর একই সময়ে ছিল ২৮ কোটি ৩৯ লাখ টাকা।

আলোচিত প্রান্তিকে কোম্পানি শেয়ার প্রতি আয় বা ইপিএস করেছে ১১ টাকা ১ পয়সা । যা আগের বছর একই সময়ে ছিল ৯ টাকা ১পয়সা।

প্রথম প্রান্তিকে ১৬ শতাংশ আয় বেড়েছে গ্ল্যাক্সোস্মিথ ক্লাইন কোম্পানির। এই প্রান্তিকে কোম্পানিটি মুনাফা করেছে ২২ কোটি ৯৫ লাখ ২০ হাজার টাকা। যা আগের বছর একই সময়ে ছিল ১৯ কোটি ৬৫ লাখ ৩০ হাজার টাকা।

আলোচিত প্রান্তিকে কোম্পানি শেয়ার প্রতি আয় বা ইপিএস করেছে ১৯ টাকা ৫ পয়সা । যা আগের বছর একই সময়ে ছিল ১৬ টাকা ৩১ পয়সা।

এছাড়া সর্বশেষ প্রান্তিকে দর বাড়ার তালিকায় রয়েছে এসি আই কোম্পানি, অ্যাকটিভ ফাইন, এএফসি অ্যাগ্রো বায়োটেক লিমিটেড, বেক্সিমকো ফার্মা, সেন্ট্রাল ফার্মা, গোল্ডেন হার্ভেস্ট লিমিটেড, ইবনে সিনা, কেয়া কসমেটিকস লিমিটেড, লিবরা ইনফিউশন লিমিটেড, ওরিয়ন ইনফিউশন, রেনেটা এবং স্কয়ার ফার্মাসিটিক্যালস লিমিটেড।

অর্থসূচক/এসএ/এমআরবি/