চীনের বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা যুক্তরাজ্যের, ক্ষুব্ধ বেইজিং

0
148

হংকং ও উইগুর মুসলিমদের বিরুদ্ধে চীন যে ব্যবস্থা নিয়েছে, তাতে রীতিমতো অসন্তুষ্ট যুক্তরাজ্য। তাঁরা চীনের বিরুদ্ধে তিনটি ব্যবস্থা নিয়েছে বা নেওয়ার কথা বলেছে। হংকং-এর সঙ্গে বন্দি প্রত্যর্পণ চুক্তি সাময়িকভাবে স্থগিত রাখা হয়েছে। সেই সঙ্গে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে, এমন কোনও অস্ত্র বিক্রি করা হবে না, যা তারা হংকং-এ বিক্ষোভ মোকাবিলায় ব্যবহার করতে পারে। এ ছাড়া যুক্তরাজ্যে ৫-জি ব্যবস্থা চালুর ক্ষেত্রে চীনের কোম্পানিকে দেওয়া হচ্ছে না।

যুক্তরাজ্যের পররাষ্ট্র সচিব ডমিনিক রাব জানিয়েছেন, আমরা চাই বন্দি প্রত্যর্পণ চুক্তির বেশ কিছু সেফগার্ড রাখতে। যুক্তরাজ্য থেকে যাঁদের চীনের হাতে তুলে দেওয়া হবে, তাঁদের বিরুদ্ধে নতুন নিরাপত্তা আইনের অপব্যবহার করে কোনও ব্যবস্থা নেওয়া যাবে না। এছাড়া অস্ত্র বিক্রি না করার সিদ্ধান্ত অবিলম্বে কার্যকর হবে।

এর আগে আমেরিকা, অস্ট্রেলিয়া, কানাডাও চীনের সঙ্গে বন্দি প্রত্যর্পণ চুক্তি স্থগিত রেখেছে। যুক্তরাজ্যের এই সিদ্ধান্তে চীন অত্যন্ত ক্ষুব্ধ। তাদের অভিযোগ, চীনের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে নাক গলাচ্ছে যুক্তরাজ্য। তারা বারবার আন্তর্জাতিক আইন ও সম্পর্কের রীতি ভঙ্গ করছে। যদি তারা এই সব ভুলভাল সিদ্ধান্ত নিতে থাকে তা হলে যুক্তরাজ্যকেও তার ফল ভুগতে হবে বলে হুমকি দিয়েছে চীন।

এর আগে লন্ডনের চীনা রাষ্ট্রদূত জানিয়েছিলেন, নতুন সুরক্ষা আইন নিয়ে চীনকে চাপ দিলে লোকে তা প্রতিহত করবে। এই ধরনের চাপে কোনও কাজ হবে না।

হংকং-এ গণতন্ত্রপন্থী ও অধিকাররক্ষা কর্মীদের বিরুদ্ধে চীন ব্যবস্থা নেওয়ার পরই যুক্তরাজ্যের সঙ্গে তাদের সম্পর্ক খারাপ হচ্ছিল। যুক্তরাজ্যের দাবি, এর সঙ্গে আরও দুইটি বিষয় যুক্ত হয়েছে। উইগুর মুসলিমদের প্রতি চীনের ব্যবহার এবং করোনা ভাইরাস নিয়ে তথ্য গোপন করা। করোনা নিয়ে চীন সত্যি কথা বলেনি, তার ফল গোটা বিশ্বকে ভুগতে হচ্ছে বলে যুক্তরাজ্য মনে করে।

ইতিমধ্যেই মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প জানিয়েছেন, হংকং-কে আর বিশেষ বানিজ্যিক সুবিধা দেওয়া হবে না। এভাবেই চীনের উপর চাপ সৃষ্টি করছে আমেরিকা ও যুক্তরাজ্য।

চীন অভিযোগ করেছে, আমেরিকার কথাতেই যুক্তরাজ্য এই সব ব্যবস্থা নিচ্ছে। হংকং হলো চীনের অঙ্গ। ফলে হংকং-এর ব্যাপারে তারা যেন নাক না গলায়। হংকং এর বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা জারি করলে চীন সেটা কোনওভাবে মেনে নেবে না। সূত্র: রয়টার্স, এএফপি, ডিডব্লিউ

অর্থসূচক/এএইচআর