করোনায় আরও ৪১ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ৩০৫৭

নিজস্ব প্রতিবেদক

0
109

মহামারি করোনা ভাইরাস তাণ্ডবে বিপর্যস্ত বিশ্ব। তবে অনেক দেশে প্রকোপ কিছুটা কমলেও বাংলাদেশে সংক্রমণের ঊর্ধ্বমুখী ধারা এখনো অব্যাহত আছে। করোনা শনাক্তের পরীক্ষা কম হওয়ায় দেশে কয়েকদিন তুলনামূলক কম রোগী শনাক্ত হচ্ছে। গতকালের তুলনায় আজ মঙ্গলবার শনাক্ত রোগী কিছুটা বেড়েছে। তবে গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যুর সংখ্যা কমেছে।আজ মঙ্গলবার (২১ জুলাই) গতকালের চেয়ে বেশি রোগী শনাক্ত হয়েছে। এ সময়ে মৃত্যুর সংখ্যা কমেছে। অন্যদিকে করোনা থেকে সুস্থ হয়ে উঠার সংখ্যাও আজ কিছুটা কমেছে।

গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে ৩ হাজার ৫৭ জন নতুন রোগী শনাক্ত হয়েছে। আগের সাত দিনে দেশে যথাক্রমে ২৯২৮, ২৪৫৯, ২৭০৯, ৩০৩৪, ২৭৩৩, ৩৫৩৩ ও ৩১৬৩ জন রোগী শনাক্ত হয়েছে।

সর্বশেষ তথ্য অনুসারে- দেশে নভেল করোনা ভাইরাসে (কোভিড-১৯) মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২ লাখ ১০ হাজার ৫১০ জনে।

গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে মোট ১২ হাজার ৮৯৮টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। আর পরীক্ষাকৃত এসব নমুনার ২৩ দশমিক ৭০ শতাংশের মধ্যে করোনা ভাইরাসের উপস্থিতি পাওয়া গেছে।

গতকাল ১৩ হাজার ৩৬২টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছিল। এখন পর্যন্ত দেশে মোট ১০ লাখ ৫৪ হাজার ৫৫৯টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। আর মোট পরীক্ষার ১৯ দশমিক ৯৬ শতাংশ পজেটিভ।

আজ মঙ্গলবার (২১ জুলাই) দুপুরে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নিয়মিত অনলাইন বুলেটিনে সংস্থাটির অতিরিক্ত মহাপরিচালক ডা. নাসিমা সুলতানা এসব তথ্য জানিয়েছেন।


একনজরে দেশের করোনার চিত্র

নতুন করে শনাক্ত হয়েছেন: ৩০৫৭ জন

মোট আক্রান্তের সংখ্যা: ২১০৫১০ জন

২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু হয়েছে: ৪১ জনের

মোট মৃত্যু হয়েছে: ২৭০৯ জনের

২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন: ১৮৪১ জন

মোট সুস্থ হয়েছেন: ১১৫৩৯৭ জন


গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ৪১ জন মারা গেছেন। গত ৩০ জুন দেশে সর্বোচ্চ ৬৪ জনের মৃত্যু হয়েছিল। এর আগে গত ১৬ জুন করোনায় মারা গিয়েছিলেন ৫৩ জন।

গত সাত দিনে করোনা ভাইরাসে মারা গেছেন যথাক্রমে ৫০, ৩৭, ৩৪, ৫১, ৩৯, ৩৩ ও ৩৩ জন।

সর্বশেষ তথ্য অনুসারে মোট মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২ হাজার ৭০৯ জনে। মোট শনাক্তকৃত রোগীর বিপরীতে মৃত্যুর হার ১ দশমিক ২৯ শতাংশ।

গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে আরও ১ হাজার ৮৪১ জন সুস্থ হয়েছেন বলে জানানো হয়েছে। দেশে এখন পর্যন্ত করোনা থেকে মোট সুস্থ হয়েছেন ১ লাখ ১৫ হাজার ৩৯৭ জন। মোট শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৫৪ দশমিক ৮২ শতাংশ।

অর্থসূচক/কেএসআর