আমিরাতের মঙ্গল অভিযান শুরু

0
140

আরব দুনিয়ার প্রথম মহাকাশ অভিযান। তাই হোপ-এর উৎক্ষেপণের দিকে তাকিয়ে ছিল গোটা বিশ্ব। জাপানের তানেগাশিমা স্পেস সেন্টার থেকে জাপানি রকেটে করে হোপ-এর নিখুঁত উৎক্ষেপণ হলো। সাত মাস লাগবে মঙ্গল পৌঁছতে। তারপর তা কাজ শুরু করবে এবং মঙ্গলের পরিবেশ ও আবহাওয়া নিয়ে তথ্য পাঠাবে।

আগামী বছর অর্থাৎ ২০২১-এর ফেব্রুয়ারিতে মঙ্গলের কক্ষপথে ঢুকবে হোপ। তারপর দুই বছর ধরে মঙ্গলের চারপাশে ঘুরবে। মহাকাশযানের যন্ত্রপাতি মঙ্গলের উপরিভাগের আবহাওয়া সম্পর্কে তথ্য সংগ্রহ করে পাঠাবে।

আমিরাতের দাবি, তাঁদের এই মঙ্গল অভিযানের ফলে বিভিন্ন ঋতুতে লাল গ্রহের আবহাওয়া কেমন থাকে তা জানা যাবে। হোপ এ বিষয়ে পুরো তথ্য দেবে, যা আগে পাওয়া যায়নি। গত ১৪ জুলাই হোপের মহাকাশে যাওয়ার কথা ছিল। কিন্তু খারাপ আবহাওয়ার জন্য দুই বার উৎক্ষেপণ পিছিয়ে দিতে হয়।

মঙ্গল অভিযানের কথা আমিরাত প্রথম ঘোষণা করে ২০১৪ সালে। এতদিন পর্যন্ত তারা ছিল পুরোপুরি তেল-নির্ভর দেশ। সেখান থেকে সরে এসে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির ক্ষেত্রে স্বনির্ভরতা পাওয়ার প্রয়াস শুরু হয় তখন থেকে। নিজস্ব প্রযুক্তিতে তৈরি হওয়া হোপ-এর সাফল্যের দিকে আমিরাত অনেক আশা নিয়ে তাকিয়ে আছে। কারণ, তাঁদের লক্ষ্য, ২১১৭ সালে মঙ্গলে বসতি স্থাপন করা।

আমিরাত মঙ্গল অভিযানের প্রধান ওমর শরাফ বলেছেন, ‘এটা আরবের তরুণদের কাছেও আশার বার্তা পাঠিয়েছে। যদি আমিরাতের মতো নবীন দেশ ৫০ বছরের কম সময়ের মধ্যে মঙ্গলে পৌঁছতে পারে, তা হলে আমরা এবং এই এলাকার দেশগুলি অনেক কিছু করতে পারি।’

এর আগে আমিরাত তিনটি উপগ্রহ পাঠিয়েছিল। কিন্তু তারা পৃথিবীর কক্ষপথের বাইরে কোনো অভিযান করেনি। এ বারই তারা প্রথম মঙ্গলে মহাকাশযান পাঠাল। সূত্র: রয়টার্স, এপি, ডিডব্লিউ

অর্থসূচক/এএইচআর