আক্রান্তের সংখ্যায় শীর্ষ ২০ এ উঠে এল বাংলাদেশ

0
94

দেশে করোনাভাইরাস মহামারির ভয়ানক অবনতি চলছে। বিশ্বে রেকর্ড পরিমাণ কম পরীক্ষা করেও বিপুল সংখ্যায় নতুন রোগী শনাক্ত হচ্ছে। সাত দিনের মধ্যে ছয়দিনই দুই হাজারের বেশি করে নতুন রোগী শনাক্ত হয়েছে। এই সময়ে গড়ে প্রতিদিন দুই হাজার ৬শ ৩১ জন মানুষের শরীরে শনাক্ত হয়েছে ভাইরাসটির উপস্থিতি।

আজ শুক্রবার (৫ জুন) দুপুরে দেওয়া স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তথ্য অনুসারে, দেশে এখন পর্যন্ত মোট ৬০ হাজার ৩৯১ জন মানুষ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। তাদের মধ্যে মারা গেছেন ৮১১ জন। আর সুস্থ হয়েছেন ১২ হাজার ৮০৪ জন। এ হিসেবে দেশে এখন সক্রিয় রোগীর সংখ্যা ৪৬ হাজার ৭৭৬ জন, যা মোট আক্রান্তের ৭৭ দশমিক ৪৫ শতাংশ।


             প্রিয় পাঠক, করোনাভাইরাস সংক্রান্ত দেশ-বিদেশের নির্বাচিত নিউজ ও টিপস এখন থেকে পাওয়া যাবে 

                   ফেসবুক গ্রুপ Corona: News & Tips । গ্রুপটিতে যোগ দিয়ে সহজেই থাকতে পারেন আপডেট 


ঝড়ের গতিতে রোগীর সংখ্যা বাড়তে থাকায় বিশ্বে আক্রান্ত দেশগুলোর তালিকায় বাংলাদেশ ক্রমেই উপরে উঠে আসছে।আজ  সর্বশেষ পরিসংখ্যান প্রকাশের পর বিশ্বে বাংলাদেশের অবস্থান দাঁড়িয়েছে ২০তম।

গতকালও বাংলাদেশ ২১তম অবস্থানে ছিল।গতকাল ২০তম অবস্থানে ছিল ইউরোপের দেশ বেলজিয়াম। দেশটিতে মোট রোগীর সংখ্যা ছিল ৫৮ হাজার ৭৬৭জন।আর বাংলাদেশে শনাকৃত রোগীর সংখা ছিল ৫৭ হাজার ৫৬৩ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় বেলজিয়ামের চেয়ে বাংলাদেশে শনাক্তকৃত রোগী সংখ্যা ২ হাজার ৬৮৮ জন বেড়েছে।এই সময়ে বেলজিয়ামে ১৪০জন রোগী শনাক্তের বিপরীতে বাংলাদেশে শনাক্ত হয়েছে ২ হাজার ৮২৮জন।

বাংলাদেশের ঠিক উপরে থাকা কাতারে শনাক্তকৃত করোনা রোগীর সংখ্যা ৬৩ হাজার ৭৪১ জন।

বিশ্বে করোনায় সংক্রমণের হারের দিক থেকে বাংলাদেশ অনেক এগিয়ে থাকলেও আক্রান্তদের সুস্থ হয়ে উঠার চিত্র ঠিক বিপরীত।সুস্থতার হার কম হওয়ার কারণে বাড়ছে সক্রিয় রোগীর (যারা এখনো করোনা পজেটিভ)  সংখ্যা। বর্তমানে বাংলাদেশে সক্রিয় রোগীর সংখ্যা ৪৬ হাজার ৭৭৬ জন। সক্রিয় রোগীর সংখ্যার দিক থেকে বাংলাদেশের অবস্থান ৮ম।বাংলাদেশের ঠিক উপরে থাকা ফ্রান্সে এখন সক্রিয় রোগীর সংখ্যা ৫৩ হাজার ৪০৩ জন। বাকী ছয়টি দেশ হচ্ছে-যুক্তরাষ্ট্র, ব্রাজিল, রাশিয়া, ভারত, পেরু ও পাকিস্তান।