অলরাউন্ডার হবার গল্প শোনালেন সাইফউদ্দিন

0
165

আন্তর্জাতিক অঙ্গনে অভিষিক্ত হয়েছিলেন ২০১৭ সালে। নিজেকে খুব অল্প সময়েই প্রতিষ্ঠিত করেছেন জাতীয় দলের অন্যতম তারকা অলরাউন্ডার হিসেবে। বাংলাদেশের ক্রিকেটের একদম তৃণমূল থেকে জাতীয় দলে উঠে এসেছেন তিনি। বলছি জাতীয় দলের অন্যতম ভরসাবান অলরাউন্ডার মোহাম্মদ সাইফউদ্দিনের কথা।

জাতীয় দলে অলরাউন্ডার হিসেবে অভিষিক্ত হলেও ক্যারিয়ারের শুরুতে কিন্তু এই রূপে ছিলেন না সাইফউদ্দিন। ব্যাটসম্যান সাইফউদ্দিন হিসেবে ক্রিকেটে আত্মপ্রকাশ করলেও প্রয়োজনের তাগিদে পরিনত হয়েছেন আজকের এই অলরাউন্ডার সাইফউদ্দিনে।

সম্প্রতি এক লাইভ সাক্ষাৎকারে ব্যাটসম্যান থেকে অলরাউন্ডার হবার কথা জানিয়েছেন তিনি। সাইফউদ্দিন বলেন, ‘ছোটবেলা থেকেই যদি বয়সভিত্তিক খেলাগুলো দেখেন তাহলে দেখবেন আমি ব্যাটসম্যান হিসেবে খেলে আসছি। এর পাশাপাশি আমি বোলিংও করতাম। তখন হয়তো আমার বোলিংটা ওইরকম দরকার হতো না, আমি করতামও না। কিন্তু যখন আমার ব্যাটিং সময়টা খারাপ যাচ্ছিলো তখন আমি ভাবলাম যে না এর পাশাপাশি আমার বোলিংটা করা উচিৎ।’

তবে অলরাউন্ডার বনে যাওয়াটাকে আশীর্বাদ হিসেবেই দেখছেন সাইফউদ্দিন। ২৩ বছর বয়সী এই ক্রিকেটার বলেন, ‘আমি যখন ব্যাটিং করতাম তখন আমার ভেতর একটা জড়তা কাজ করতো। এই বুঝি আউট হয়ে গেলাম, রান যদি না পাই তখন কি হবে। আমার বোলিংটা আমাকে অনেক সাহায্য করেছে আমার ব্যাটিংয়ে। আমি যদি ব্যাটিংয়ে খারাপ করি তাহলে বল করে সেটা পুষিয়ে দেবার চেষ্টা করি। আবার যদি বোলিংয়ে খারাপ করি তাহলে সেটা ব্যাটিংয়ে ভালো করে পুষিয়ে দেবার চেষ্টা করি। এই দুইটা জিনিস আমাকে বেশ উৎসাহ জাগায়।’

জাতীয় দলের জার্সি গায়ে এখন পর্যন্ত ২২টি ওয়ানডে এবং ১৫টি টি-টোয়েন্টি খেলেছেন মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন। এর ভেতর ব্যাট হাতে নেমেছেন ২২ বার এবং সংগ্রহ করেছেন ৩৯৮ রান। ব্যাট হাতে ওয়ানডেতে তাঁর স্ট্রাইক রেট ৮৬.০৫ এবং টি-টোয়েন্টিতে ১১৩.৬৮। বল হাতে ক্রিকেটের দুই ফরম্যাট মিলিয়ে খেলেছেন মোট ৩৭ ম্যাচ। ঝুলিতে পুরেছেন ৪৫টি উইকেট।

অর্থসূচক/এএইচআর