‘বাস ভাড়া বাড়ানো জনগণকে জিম্মি করে সরকারের রক্তচোষা নীতি’

নিজস্ব প্রতিবেদক

0
122

করোনা ভাইরাসে জনগণের দুর্বিসহ পরিস্থিতির মাঝেই সরকার বাস ভাড়া বাড়ানোয়, নিন্দা জানিয়ে তা প্রত্যাহারের দাবি জানিয়েছে বিএনপি। এই মুহূর্তে বাস ভাড়া বাড়ানোর সিদ্ধান্ত জনগণকে জিম্মি করে সরকারের রক্তচোষার নীতি বলেও জানায়।

রোববার দুপুরে এক ভার্চুয়াল ব্রিফিংয়ে দলটির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী দলটির পক্ষে এ দাবি জানান।

দীর্ঘ লকডাউনে বন্ধ থাকার পর সোমবার থেকে চলাচল শুরু করতে যাওয়া বাসের ভাড়া ৮০ শতাংশ বাড়ানোর সুপারিশ করে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষ-বিআরটিএ। রোববার ৬০ শতাংশ ভাড়া বাড়িয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করে সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়।

বাস ভাড়া বৃদ্ধির বিরোধিতা করে বিএনপির এই মুখপাত্র বলেন, ‘মড়ার ওপর খাঁড়ার ঘা নীতি- আওয়ামী লীগ সরকারের প্রতিষ্ঠিত কর্মসূচি। জনগণকে জিম্মি করে রক্তচোষার নীতি এদের একমাত্র চালিকা শক্তি।’

রুহুল কবির রিজভী বলেন, করোনার আঘাতে জনজীবন মহাবিপর্যয়ের মধ্যে। দিন আনে দিন খায় মানুষ, দিনমজুর, রিকশাচালকসহ নিম্ন-মধ্যবিত্ত ও নিম্ন আয়ের মানুষ কর্মহীন হয়ে পড়েছে। এর ওপর বাস ভাড়া বৃদ্ধি ওই নিরন্ন ও বিপন্ন মানুষের ওপর কষাঘাত। বাস চালুর আগেই বাস ভাড়া বৃদ্ধির সিদ্ধান্তেই প্রমাণিত হয়, এই সরকার শোষণ করা ও গরিব মারার যন্ত্র।

তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদের দেয়া বক্তব্যের সমালোচনা করে রিজভী বলেন, তথ্যমন্ত্রী বলেছেন- ত্রাণ নিতে আসার লোক পাওয়া যাচ্ছে না। তার এই বক্তব্য ফরাসি বিপ্লবের সময়ের ষোড়শ লুইর স্ত্রী কথাই মনে পড়ে যায়- ‘রুটি নাই তো কি হয়েছে, কেক খাবে।’ জনগণের ক্ষুধা, হাহাকার, কর্মহীনতা আমলে না নিয়ে সারাক্ষণ এই সরকার জনগণকে নিয়ে উপহাস করতেই ব্যস্ত।

বিশেষজ্ঞদের মতামত নিয়ে ছুটি প্রত্যাহার করা হয়েছে-আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের এই বক্তব্যের সমালোচনা করে রিজভী বলেন, তার এই বক্তব্যে গোটা জাতি বিস্মিত ও হতবাক হয়েছে।

অর্থসূচক/এমএস